১৭ রানে শেষ ৫ উইকেট হারিয়ে হারল মোহামেডান

প্রকাশ: ২০১৮-০২-১১ ৫:৩০:৩৫ পিএম
ইয়াসিন | রাইজিংবিডি.কম

ম্যাচসেরা আব্দুল মাজিদের হাতে ‍পুরস্কার তুলে দিচ্ছেন ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর মিলটন আহমেদ

ক্রীড়া প্রতিবেদক, ফতুল্লা থেকে : দুই দলই নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেরেছিল। আজ জয়ের খাতা খোলার দরকার ছিল দুই দলেরই। কিন্তু পারল না মোহামেডান। লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের কাছে ৬২ রানে হেরেছে মতিঝিল পাড়ার ঐতিহ্যবাহী দলটি।

ব্যাট হাতে আব্দুল মজিদের ৭০ ও বল হাতে মোশাররফ হোসেন রুবেলের ৪ উইকেটে সহজেই জয় পায় রূপগঞ্জ। বল হাতে ৩টি করে উইকেট নেন মোহাম্মদ শহীদ ও আসিফ হাসান। ব্যাটিং-বোলিং নৈপূণ্যে বড় ব্যবধানে মৌসুমের প্রথম জয় তুলে নেয় লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ।

বৃথা যায় মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের বাঁহাতি পেসার কাজী অনিকের বোলিং সাফল্য। প্রথমবারের মতো ক্যারিয়ারে পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন অনিক। কিন্তু দলের জয়ে কোনো কাজে আসেনি তার বোলিং অবদান।  বল হাতে ভালো করলেও ব্যাট হাতে মোহামেডান ছিল ফ্লপ। ১৭ রানে শেষ ৫ উইকেট হারিয়ে বড় পরাজয়ের তিক্ত স্বাদ পেতে হয়েছে তাদেরকে।

ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী ক্রিকেট স্টেডিয়াম টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে ৭ উইকেটে ২৩১ রান করে রূপগঞ্জ। ওই রান তাড়া করতে গিয়ে ১৬৯ রানে গুটিয়ে যায় মোহামেডান।

বল হাতে ৪৪ রানে ৫ উইকেট নিয়ে রূপগঞ্জের রান বড় হতে দেননি কাজী অনিক। প্রতিপক্ষের সেরা ব্যাটসম্যানদের উইকেট নিয়েছিলেন বাঁহাতি এ পেসার। শুরুতে রূপগঞ্জকে ৪৮ রানের জুটি এনে দেন আব্দুল মজিদ ও সালাউদ্দিন পাপ্পু।  ১৫তম ওভারে এ জুটি ভাঙেন অনিক। উইকেটের পিছনে ক্যাচ দেন ২২ রান করা পাপ্পু। এক ওভার পরই অনিকের বলে পুল করতে গিয়ে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দেন পাকিস্তানের সামি আসলাম (১)।

তৃতীয় উইকেটে নাঈম ও মজিদ ৮০ রানের জুটি গড়েন।  এ জুটিতে বড় সংগ্রহের ভিত পায় রূপগঞ্জ। কিন্তু ১ রানের ব্যবধানে দুই ব্যাটসম্যান আউট হলে কিছুটা পিছিয়ে পড়ে তারা। স্পিনার এনামুল হক জোড়া আঘাত করেন রূপগঞ্জ শিবিরে।  ৩৬ রান করা নাঈম ইসলাম বোল্ড হন অফস্পিনারের বলে। সর্বোচ্চ ৭০ রান করে ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হওয়া মজিদ ক্যাচ দেন উইকেটের পিছনে। ১১৫ বলে ৩ চার ও ৩ ছক্কায় ইনিংসটি সাজান মজিদ।

পঞ্চম উইকেটে তুষার ইমরান ও অভিষেক মিত্রের ৮২ রানের সুবাদে ২৩১ রানের পুঁজি পায় রূপগঞ্জ। তুষার ৪০ ও অভিষেক ৪৫ রান করেন। শেষ দিকে তুষার, মিলন ও শহীদের উইকেট নিয়ে প্রথমবারের মতো পাঁচ উইকেটের স্বাদ পান অনিক। 

মোহামেডানের ব্যাটিংয়ের শুরুটা ভালো হয়েছিল। ৪৮ রান করেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান।  ৩৭ বলে ৩০ রান করা রনি তালুকদারকে ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন প্রথম ম্যাচে হ্যাটট্রিক করা আসিফ হাসান। কিছুক্ষণ পরই বাঁহাতি এ স্পিনার রূপগঞ্জকে দেন বড় সাফল্য। পাকিস্তানের ওপেনার সালমান বাট এগিয়ে এসে খেলতে গিয়ে স্ট্যাম্পড হন ২১ রানে।  ৪৯ বলে ২ বাউন্ডারিতে ২১ রান করেন গত ম্যাচে ফিফটি পাওয়া বাট।

অধিনায়ক মোশাররফ হোসেন রুবেলের বোলিংয়ে রূপগঞ্জ তৃতীয় সাফল্য পায় ২৬তম ওভারে।  রুবেলের বলে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দেন ইরফান শুক্কুর (১৯)।

চতুর্থ উইকেটে প্রতিরোধ গড়েন শামসুর রহমান শুভ ও রকিবুল হাসান। এ জুটি ৯৮ থেকে দলকে টেনে নেন ১২১ রান পর্যন্ত। রূপগঞ্জের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল এ জুটি ভাঙা। কাজটা করে দেন আসিফ। মোহামেডানের অধিনায়ক শুভ বাঁহাতি স্পিনারের স্পিনের বিপরীতে খেলতে গিয়ে বোল্ড হন ৩৪ রানে। পরের ওভারে রুবেল নেন আমিনুল ইসলামের (২) উইকেট। তাতেই শেষ মোহামেডানের পাঁচ উইকেট।

উইকেটে এসে এনামুল দুই বাউন্ডারিতে প্রতিরোধের ইঙ্গিত দিলেও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। মোহাম্মদ শহীদের লাফিয়ে উঠা বলে কাট করতে গিয়ে ক্যাচ দেন উইকেটের পিছনে। তাইজুল ইসলাম প্রথম বলে এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে ক্যাচ দেন লং অনে। পরপর দুই বলে দুই উইকেট শহীদের।

বল হাতে ৫ উইকেট পাওয়া অনিক এক ছক্কায় আশা জাগিয়েছিলেন। কিন্তু রুবেলের ঘূর্ণিতে পরাস্ত হতে হয় তাকে। ৪৪তম ওভারে দ্বিতীয় বলে রুবেলকে এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে মিড উইকেটে ক্যাচ দেন অনিক। ৩২ রান করা রকিবুল শেষ বলে তুলে মারতে গিয়ে ক্যাচ দেন লং অফে। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে ইবাদতকে আউট করে তৃতীয় উইকেটের স্বাদ পান শহীদ। তাতেই জয় নিশ্চিত রূপগঞ্জের। 

২৩ বল, ১৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে শেষ মোহামেডানের জয়ের স্বপ্ন। দীর্ঘদিন পর মোহামেডানের বিপক্ষে জয় পেয়ে উজ্জীবিত রূপগঞ্জ শিবির।



রাইজিংবিডি/ফতুল্লা/১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮/ইয়াসিন/আমিনুল

   
 



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

শোডাউন ছাড়া কোনো চমক নেই এরশাদের

২০১৮-১০-২০ ৮:৫৯:২৫ পিএম

রূপসায় হেইয়ো হেইয়ো, পাড়ে করতালি

২০১৮-১০-২০ ৮:৪৮:৫৪ পিএম