শাইনপুকুরের ‘প্রথমে’ সাব্বিরের ১ রানের আক্ষেপ

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-২৩ ৪:৩৯:০৫ পিএম
আবু হোসেন পরাগ | রাইজিংবিডি.কম

অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে ম্যাচসেরা হয়েছেন সাব্বির হোসেন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : হাত ঘুরিয়ে ৩ উইকেট নিয়ে উত্তরা স্পোর্টিং ক্লাবকে অল্প রানে বেঁধে রাখতে বড় ভূমিকা তারই। সাব্বির হোসেন পরে ব্যাট হাতেও শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের সেরা পারফরমার। কিন্তু তার শেষটা হলো বড় এক আফসোস নিয়ে। আউট হয়েছেন যে ৯৯ রানে!

ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের পঞ্চম রাউন্ডে শনিবার সাব্বিরের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে উত্তরাকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে শাইনপুকুর। আগে ব্যাট করতে নামা উত্তরাকে ১৪৫ রানে গুটিয়ে দিয়ে শাইনপুকুর সেটি পেরিয়ে যায় ১৪৯ বল বাকি থাকতেই।

টুর্নামেন্টে টানা চার হারের পর প্রথম জয়ের স্বাদ পেল শাইনপুকুর। অন্যদিকে নবাগত উত্তরা হারল প্রথম পাঁচ ম্যাচের চারটিই।

শাইনপুকুরের জয়ের জন্য যখন দরকার ১১ রান, সাব্বিরও তখন সেঞ্চুরি থেকে ১১ রান দূরে। ডানহাতি ব্যাটসম্যান ২৫তম ওভারে জাহাঙ্গীর আলমের দ্বিতীয় ও চতুর্থ বলে হাঁকান দুটি চার, মাঝের বলে নেন ডাবল।

সাব্বিরের সেঞ্চুরি আর শাইনপুকুরের জয়ের মাঝে তখন ১ রানের ব্যবধান। কিন্তু পঞ্চম বলে সাঈদুল ইসলামকে ক্যাচ দিয়ে ৯৯ রানে আউট হয়ে যান ২২ বছর বয়সি এই ব্যাটসম্যান। পরের ওভারে চার হাঁকিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন অমিত হাসান।



টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় ম্যাচেই সাব্বির লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে তার প্রথম সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন। দুই ম্যাচ পরই সেঞ্চুরি-সংখ্যাটা দুইয়ে নিয়ে যাওয়ার দারুণ সুযোগ এসেছিল তার সামনে। কিন্তু ১ রানের জন্য পারলেন না।

ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল উত্তরা। তানজিদ হাসান ও আনিসুল ইসলাম ইমন উদ্বোধনী জুটিতে যোগ করেছিলেন ৩৫ রান।

কিন্তু এ জুটি ভাঙার পর নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারিয়েছে উত্তরা। ৮৫ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে এক শর আগেই অলআউট হওয়ার শঙ্কায় পড়েছিল তারা। সেখান থেকে সংগ্রহটা দেড় শর কাছাকাছি গেছে মূলত মিনহাজুল আবেদীন ও সোহেল রানার ৪১ রানের শেষ উইকেট জুটির কল্যাণে।

এ জুটির সব রানই মিনহাজুলের! শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে রান আউট হওয়া সোহেল ৮ বলে করেন শূন্য। সাত নম্বরে নামা মিনহাজুল ৭৩ বলে ৬ চারে ৫১ রানে অপরাজিত ছিলেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৫ রান আসে ওপেনার তানজিদের ব্যাট থেকে।

মিডিয়াম পেসে ১০ ওভারে ২৭ রানে ৩ উইকেট নিয়ে শাইনপুকুরের সেরা বোলার সাব্বির। ৯ ওভারে ১৮ রানে ২ উইকেট নেন রকিবুল হাসান। শরিফুল ইসলাম, দেলোয়ার হোসেন ও সোহরাওয়ার্দী শুভর ঝুলিতে জমা পড়ে একটি করে উইকেট।



ছোট লক্ষ্য তাড়ায় সাদমান ইসলামের সঙ্গে সাব্বিরের ১১৭ রানের উদ্বোধনী জুটিতেই বেশিরভাগ কাজটা করে ফেলে শাইনপুকুর। সাদমান ৭৩ বলে ২ চার ও এক ছক্কায় ৩৮ রান করে নাঈমুল ইসলামের বলে বোল্ড হলে ভাঙে জুটি।

আর সাব্বির দলকে জয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গিয়ে ওই ১ রানের আক্ষেপে পোড়েন। ৭২ বলে সমান ৭টি করে চার ও ছক্কায় ইনিংসটি সাজান তিনি। অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে ম্যাচসেরার পুরস্কারটা উঠেছে তার হাতেই।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৩ মার্চ ২০১৯/পরাগ

     


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

২০তম দিনের বিজয়ী যশোরের রানা

২০১৯-০৬-২০ ১০:৪৫:৪৫ পিএম

পার্ট-টাইমার যখন সেরাদের সেরা

২০১৯-০৬-২০ ৯:২৫:২৫ পিএম