আমাদের হিরো : সূচনা পর্ব

প্রকাশ: ২০১৬-০৬-০৬ ৫:১৩:০৩ পিএম
| রাইজিংবিডি.কম

৫০ বছর, ৪৪৭টি বই, একটি চরিত্র পাঠ্য বইয়ের বাইরে যারা বই পড়তে শিখেছেন তারা জানেন মাসুদ রানার কথাই বলছি। যখন ইন্টারনেট, স্মার্ট ফোন, ব্লু রে, থ্রিডি মুভির জন্ম হয়নি তখন তরুণদের বিনোদনের একমাত্র মাধ্যম ছিলো মাসুদ রানা। ঘরে ঘরে ডিভিডি, টিভি, কম্পিউটার ছিলো না তখনও মাসুদ রানা ছিলো, এখনও আছে। এতো দীর্ঘ সময় ধরে এতোটা প্রভাব বাংলা ভাষায় আর কোন চরিত্র রাখতে পারেনি। মাসুদ রানার নাম শোনেননি এমন কোন শিক্ষিত বাঙালি খুঁজে পাওয়া যাবে কি না সন্দেহ। কাজী আনোয়ার হোসেন রচিত মাসুদ রানা বাংলার অনবদ্য এক সৃষ্টি। পাকিস্তান আমলে সৃষ্টি হওয়া এই গুপ্তচর দেশ স্বাধীন হওয়ার পর বাংলাদেশের হয়ে বিশ্বের নানা দেশে গেছেন নানা মিশন নিয়ে।

সিরিজ উপন্যাস হলেও মাসুদ রানার প্রতিটি শিরোনামই আলাদা। কাজেই সিরিজের অন্য উপন্যাস না পড়লেও পাঠকের বুঝে নিতে অসুবিধা হয় না। তবে মাসুদ রানা উপন্যাসের প্রতিটির সূচনাতে একটি পরিচিতি কথন থাকে। এই কথন মাসুদ রানা পাঠের পূর্ব প্রস্তুতি হিসাবে কাজ করে। পরিচিতি কথনটি হলো :
Masud_Rana‘‘মাসুদ রানা।
বাংলাদেশ কাউন্টার ইন্টেলিজেন্সের
এক দূর্দান্ত, দুঃসাহসী স্পাই।
গোপন মিশন নিয়ে ঘুরে বেড়ায় দেশ-দেশান্তরে।
বিচিত্র তার জীবন। অদ্ভূত রহস্যময় তার গতিবিধি।
কোমলে কঠোরে মেশানো নিষ্ঠুর, সুন্দর এক অন্তর।
টানে সবাইকে, কিন্তু বাঁধনে জড়ায় না।
কোথাও অন্যায়-অবিচার অত্যাচার দেখলে
রুখে দাঁড়ায়।
পদে পদে তার বিপদ-শিহরণ-ভয়
আর মৃত্যুর হাতছানি।
আসুন, এই দুর্ধর্ষ, চিরনবীন যুবকটির সঙ্গে
পরিচিত হই।
সীমিত গণ্ডিবদ্ধ জীবনের একঘেয়েমি থেকে
একটানে তুলে নিয়ে যাবে ও আমাদের
স্বপ্নের এক আশ্চর্য মায়াবী জগতে।
আপনি আমন্ত্রিত।’’

এই পরিচিতি কথনেই মাসুদ রানার জনপ্রিয়তার রহস্য উন্মোচিত হয়েছে। আমরা অধিকাংশ বাঙালি খুব ঘরোয়া আটপৌরে একঘেয়ে জীবন যাপন করি। মাসুদ রানার বিচিত্র জীবন যথার্থই আমাদের স্বপ্নের মায়াবী জগতে নিয়ে যায়। কম বেশি সবাই আমরা দেশকে ভালোবাসি, দুঃসাহসী হতে চাই। আমাদের সেই সব চাওয়া পূর্ণ করেই সৃষ্টি হয়েছে মাসুদ রানা চরিত্র। মাসুদ রানার বিচিত্র জীবন আর অদ্ভূত রহস্যময় গতিবিধি আমাদের আকৃষ্ট করে। দেশপ্রেমী এই স্পাই আমাদের স্বপ্নের পুরুষ হয়ে ওঠে।

একটা কথা মনে রাখতে হবে আমাদের দেশে কমিকসের চর্চাটা সে অর্থে নেই, নেই কোন সুপার ম্যান। স্পাইডার ম্যান, ব্যাটম্যান, আয়রন ম্যানসহ পাশ্চাত্যে অনেক সুপার হিরো আছে যাদের রয়েছে নানা রকম বিশেষ দক্ষতা, অলৌকিক ক্ষমতা। মাসুদ রানা সে অর্থে সুপার হিরো নয়। কিন্তু বাঙালি তরুণের কাছে চিরতরুণ এই যুবক অবশ্যই হিরো। বিদেশি কাহিনি অবলম্বনে তৈরি হলেও মাসুদ রানার সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য সে বাঙালি। ‘কোমলে কঠোরে মেশানো নিষ্ঠুর, সুন্দর এক অন্তর’ কেবল বাঙালি বীরেরই থাকে। মাসুদ রানা তাই আমাদের বাঙালি তরুণদের হিরো।

বাংলা সাহিত্যের একাধিক কারণেই মাসুদ রানা বিশেষ আলোচনার দাবি রাখে। দুঃখজনক হলেও সত্য মূল ধারার বাংলা সাহিত্যে মাসুদ রানা সিরিজ নিয়ে সে অর্থে আলোচনা হয় না। আমাদের খ্যাতিমান সাহিত্যিক বা সমালোচকরা মাসুদ রানা সম্পর্কে এক ধরনের অজ্ঞতার অভিনয় করেন। অভিনয় বলছি এই কারণে যে, ব্যক্তিগতভাবে অনেককেই চিনি যারা মাসুদ রানা পড়েছেন, একটা সময় ভালোও বেসেছেন। কিন্তু তারা মাসুদ রানা নিয়ে নিশ্চুপ থাকেন। তারা মাসুদ রানার প্রশংসা করতে পারেন না, তাতে তাদের সিরিয়াস সাহিত্যিক ভঙ্গিটা কমে যেতে পারে। আবার দুর্নামও করতে পারেন না কারণ মাসুদ রানাকে কোন রকম দুর্নামে হঠানো যাবে না, যায় না। কাজেই মাসুদ রানা নিয়ে এক ধরনের ভয়াবহ নীরবতা লক্ষ্য করা যায়।

কিন্তু যার মনোভঙ্গি যাই হোক, মাসুদ রানা তার পথে এগিয়ে চলেছে। বাংলা সাহিত্যে মাসুদ রানা অবশ্যই একটি ভিন্ন এবং গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। মাসুদ রানা সকল অর্থেই বাংলা সাহিত্যে প্রথম সৃজনশীল প্রকাশনা। বহু ক্ষেত্রেই মাসুদ রানা অগ্রজ এবং কোথাও বা একমাত্র। ইংরেজিতে যাকে পাইওনিউর বলে বাংলার মাসুদ রানা তাই। এক বাক্যে মাসুদ রানাকে বলা যায় :
১.    বাংলা সাহিত্যে দীর্ঘতম সিরিজ
২.    বাংলা সাহিত্যে প্রথম এডাল্ট ফিকশন
৩.    বাংলা সাহিত্যে প্রথম স্পাই থ্রিলার
৪.    বাংলা সাহিত্যে প্রথম ঘোষ্ট রাইটিং
৫.    প্রথম দেশপ্রেমী গুপ্তচর
৬.    প্রথম বাঙালি চরিত্র যা বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে বিস্তৃত
৭.    গুপ্তবৃত্তি উপন্যাসের নতুন ভাষা সৃষ্টি
৮.    পেপারব্যাক বই, যা ভীষণভাবে জনপ্রিয়

মাসুদ রানা সিরিজের প্রথম বই ‘ধ্বংস পাহাড়’। প্রথম বই থেকেই চরিত্রটি পাঠকপ্রিয়। যে কারণে সেবা প্রকাশনীর মতো লাভজনক একটি প্রতিষ্ঠানের ভিত্তি দাঁড়িয়ে আছে এই সিরিজের ওপর। বিবিসি বাংলাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে কথাসাহিত্যিক রাহাত খান জানান, বাংলাদেশ থেকে একমাত্র এই বইটি চোরাকারবারিরা পশ্চিমবঙ্গে নিয়ে যেতো। পশ্চিমবঙ্গ থেকে তখন অনেক বই এ দেশে আসতো। আমাদের এখান থেকে যেতো মাত্র এই একটি বই।

মাসুদ রানা প্রকাশনা হিসেবে এ দেশে নতুন ধারা সৃষ্টি করেছে। নিউজপ্রিন্টে ছাপা, পেপারব্যাক এই বইয়ে আকর্ষণীয় প্রচ্ছদে দেশি বিদেশি নারী-পুরুষের মুখ উঠে এসেছে, কখনো বা অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র, যানবাহন, দূর্গ, যুদ্ধক্ষেত্র ইত্যাদির ছবি উঠে এসেছে। শুরুর দিকে প্রচ্ছদ আঁকা হলেও শেষের দিকে বিদেশি ম্যাগাজিন বা পত্র-পত্রিকা থেকে কোলাজ ছবি নিয়ে প্রচ্ছদ সাজানো হতো। মাসুদ রানার প্রচ্ছদ করেছেন বিখ্যাত চিত্রশিল্পী হাশেম খান, সাপ্তাহিক বিচিত্রা ও সাপ্তাহিক ২০০০ এর সম্পাদক শাহাদাত চৌধুরী, অনুবাদক লেখক হাসান খুরশিদ রুমি, লেখক-সম্পাদক-অনুবাদক আলিম আজিজসহ আসাদুজ্জামান, ইসমাইল আরমান, ভিক্টর নীল, রনবীর আহমেদ বিপ্লব, শরাফাত খান প্রমুখ। (চলবে)




 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৬ জুন ২০১৬/তারা

     


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

তুরস্কে বাস উল্টে ১৭ জন নিহত

২০১৯-০৭-১৮ ১০:৩২:৩৭ পিএম

শেষ ম্যাচে হারল বাংলাদেশ

২০১৯-০৭-১৮ ১০:৩০:৪৫ পিএম

২৯৯ রানে পিছিয়ে বিসিবি একাদশ

২০১৯-০৭-১৮ ১০:২২:৪৪ পিএম

জমে থাকা পানি নিষ্কাশনের আহ্বান

২০১৯-০৭-১৮ ৯:০৩:৫৫ পিএম

সরকার গণতন্ত্র হরণ করেছে : ফখরুল

২০১৯-০৭-১৮ ৮:৩৫:৩৩ পিএম