জানুয়ারিতে ওয়ালটন ফ্রিজ বিক্রিতে ৭২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি

প্রকাশ: ২০১৯-০২-০৭ ১০:০৮:২২ পিএম
একরাম হোসেন পলাশ | রাইজিংবিডি.কম

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশে চলতি বছর ২০ লাখ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেট নিয়েছিল ওয়ালটন। বছরের প্রথম মাসেই করেছে বাজিমাত। জানুয়ারিতে টার্গেট ছিল ১ লাখ ৪ হাজার ফ্রিজ বিক্রির। মাস শেষে বিক্রি হয়েছে ১ লাখ ১২ হাজার ইউনিট। যা গত বছরের জানুয়ারি মাসের ফ্রিজ বিক্রির তুলনায় ৭২ শতাংশ বেশি।

লক্ষ্য ছাড়িয়ে যাওয়ার এই অর্জনকে সামনে রেখে বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজধানীতে ওয়ালটন করপোরেট অফিসের সম্মেলন কক্ষে ‘অ্যাচিভমেন্ট সেলিব্রেশন প্রোগ্রাম’ এর আয়োজন করা হয়।

এই সাফল্যে বিশেষ অবদান রাখায় শীর্ষ ১০ এরিয়া ম্যানেজারকে পুরস্কৃত করা হয়। এদের মধ্যে একজনকে দেওয়া হয় ‘ওয়ারিয়র অব দ্য মান্থ অ্যাওয়ার্ড’। এছাড়া, দেশব্যাপী চলমান ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৪ এর আওতায় ব্যাপক প্রচারণা চালানোয় চারজন এরিয়া ম্যানেজার ও চারজন ডিস্ট্রিবিউটরকে দেওয়া হয় ‘বেস্ট ব্র্যান্ডিং অ্যাওয়ার্ড’। অনুষ্ঠানে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম আশরাফুল আলম ও ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক এস এম মাহবুবুল আলম।  

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, গত বছরের জানুয়ারিতে ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে প্রস্তুতকৃত ৬৫ হাজার ১১৬ ইউনিট ফ্রিজ বিক্রি হয়েছিল সারা দেশে। এ বছর ১ লাখ ১২ হাজার ইউনিট ফ্রিজ বিক্রি হয়েছে। সেই হিসাবে ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসের তুলনায় গত জানুয়ারিতে ফ্রিজ বিক্রিতে ৭২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে।



অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ওয়ালটনের সেলস বিভাগের প্রধান সমন্বয়ক ইভা রেজওয়ানা, ডিস্ট্রিবিউটর মার্কেটিং চ্যানেলের প্রধান মো. এমদাদুল হক সরকার, প্লাজা সেলস অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট বিভাগের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ রায়হান, মার্সেলের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর ড. মো. সাখাওয়াৎ হোসেন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে এস এম আশরাফুল আলম বলেন, ওয়ালটন ২০১৯ সালকে নতুন মাইলফলক অর্জনের চ্যালেঞ্জিং ইয়ার হিসেবে নিয়েছে। এ বছর ‘১৯ এ ২০’ অর্থাৎ ২০১৯ সালে ২০ লাখ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেটর বিশ্ব ইলেকট্রনিক্স পণ্যের বাজারে ওয়ালটনকে সেরা ব্র্যান্ডে পরিণত করার যাত্রা শুরু করেছি আমরা। এই বিশাল মাইলফলক অর্জনের লক্ষ্যে তৈরি করেছি রোডম্যাপ। এটি বাস্তবায়নে নেওয়া হয়েছে দীর্ঘমেয়াদি কর্মপরিকল্পনা। যেগুলো ধাপে ধাপে কাজে লাগানো হচ্ছে। ফলে রোডম্যাপ বাস্তবায়নের শুরুতেই সফলতা পেয়েছি।

তিনি জানান, ‘১৯ এ ২০’ লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হলে বাংলাদেশের ফ্রিজ বাজারে ওয়ালটনের মার্কেট শেয়ার হবে ৮০ শতাংশ।

এস এম মাহবুবুল আলম বলেন, চলতি বছর ‘১৯ এ ২০’ এর লক্ষ্যমাত্রা পূরণের পাশাপাশি বাংলাদেশের ফ্রিজ বাজারে নতুন মাইলফলক অর্জনে সক্ষম হবে ওয়ালটন।



অনুষ্ঠানে কর্মকর্তারা জানান, চলতি বছরের শুরুতেই সাইড বাই সাইড, গ্লাস ডোরের মতো লেটেস্ট প্রযুক্তি, বৈচিত্র্যময় ডিজাইন ও ব্যাপক বিদ্যুৎসাশ্রয়ী ফ্রস্ট ও নন-ফ্রস্ট ফ্রিজ বাজারে ছেড়েছ ওয়ালটন। নতুন মডেলের এসব ফ্রিজ গ্রাহকদের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে। সেই সঙ্গে কম্প্রেসরে ১২ বছরের রিপ্লেসমন্টে গ্যারান্টি ঘোষণা করায় ওয়ালটন ফ্রিজের প্রতি গ্রাহকদের আস্থাও আরো সুসংহত হয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বছরের শুরুতেই লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি ফ্রিজ বিক্রি হয়েছে ওয়ালটনের।

সকল শ্রেণির গ্রাহকের দোরগোড়ায় ওয়ালটন ফ্রিজ পৌঁছে দিতে প্লাজা, পরিবেশক, করপোরেট, অনলাইন এবং আন্তর্জাতিক বিপণন- এই ৫ ধরনের বিপণন চেইনকে কাজে লাগানো হচ্ছে। সেজন্য এসব চ্যানেলকে করা হয়েছে আরো আধুনিক ও কার্যকরী।

এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকা অঞ্চলের পর এবার ইউরোপ, আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়ার মতো উন্নত বিশ্বের বাজারে রপ্তানির বৃহৎ পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। সেজন্য বিশ্বের সবচেয়ে দামী এবং শৈল্পিক ফ্রিজ তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে ওয়ালটন। সেই লক্ষ্যে ইতোমধ্যে ফ্রিজের দেশী-বিদেশী বিশেষজ্ঞ ডিজাইনার ও প্রযুক্তিবিদদের নিয়ে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন করেছে ওয়ালটন। সেই সঙ্গে আরো শক্তিশালী করা হয়েছে আন্তর্জাতিক বিজনেস ইউনিট। সেখানে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে বিশ্ব ইলেকট্রনিক্স বাজারের বিপণন বিশেষজ্ঞদের।

আন্তর্জাতিক বাজার সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় সব প্রতিযোগিতা এবং শীর্ষ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলাগুলোতে নিয়মিত অংশ নেওয়া হচ্ছে। চলতি বছরেই কনজ্যুমার ইলেকট্রনিক্স এবং হোম অ্যাপ্লায়ান্সে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ মেলা বার্লিনে ‘আইএফএ ফেয়ার’ ও লাস ভেগাসে ‘সিইএস ফেয়ার’ এ অংশ নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে ওয়ালটনের।



অনুষ্ঠানে বেস্ট অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত এরিয়া ম্যানেজাররা হচ্ছেন: গাজীপুর জোনের মিজানুর রহমান, চট্টগ্রাম জোনের তারেকুল হক, কুমিল্লা জোনের মামুন আহমেদ, খুলনা জোনের ফিরোজার রহমান, নোয়াখালী জোনের মো. সাখাওয়াৎ হোসেন, খুলনা জোনের ফিরোজার রহমান ও শাহানুর আলম, যশোর জোনের ফজলে রাব্বি সিদ্দিক, ফেনী জোনের আরিফ মহিউদ্দিন, নোয়াখালীর জাহিদ হাসান।

অনুষ্ঠানে ‘বেস্ট ব্র্যান্ডিং অ্যাওয়ার্ড’ এর ১ম পুরস্কার পেয়েছেন মার্সেলের রাজশাহী জোনের এরিয়া ম্যানেজার জাহিদ হাসান ও মার্সেলের ডিস্টিবিউটর আউটলেট মেসার্স নিয়ামত মটরস অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স। যৌথভাবে ২য় পুরস্কার পেয়েছেন ওয়ালটন জামালপুর জোনের এরিয়া ম্যানেজার রেদোয়ানুর রহমান চৌধূরী ও টাঙ্গাইল ধনবাড়ীতে ওয়ালটনের ডিস্ট্রিবিউটর আউটলেট মেসার্স লিজা এন্টারপ্রাইজ এবং ওয়ালটনের ঢাকা উত্তরা জোনের এরিয়া ম্যানেজার মওদুদ পারভেজ মামুন ও রাজধানীর গুলশানে ওয়ালটনের ডিস্ট্রিবিউটর আউটলেট প্যানেল এন্টারপ্রাইজ। ৩য় পুরস্কার পেয়েছেন ওয়ালটনের চট্টগ্রাম জোনের এরিয়া ম্যানেজার সাখাওয়াৎ হোসেন এবং চট্টগ্রামের আমান বাজারে ওয়ালটনের ডিস্ট্রিবিউটর আউটলেট শাহ আমানত ইলেকট্রনিক্স 





রাইজিংবিডি/ঢাকা/৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/পলাশ/রফিক

   
 


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

মাতৃভাষা দিবস ও একুশের চেতনা

২০১৯-০২-২১ ৬:২৭:৪৫ পিএম

শিশুদের কলাগাছের শহীদ মিনার

২০১৯-০২-২১ ৫:০৯:৪১ পিএম

চকবাজারের ঘটনায় তারকাদের শোক

২০১৯-০২-২১ ৪:৫৪:০৭ পিএম

চুড়িহাট্টা এখন মৃত্যুপুরী

২০১৯-০২-২১ ৪:৩১:৩৫ পিএম

স্বজনরা লাশ বুঝে নিচ্ছেন

২০১৯-০২-২১ ৪:০৩:২৭ পিএম