ওয়ালটন এসির কম্প্রেসরে ১০ বছর গ্যারান্টি, ফ্রি ইনস্টলেশন

প্রকাশ: ২০১৯-০২-১১ ৪:৩৭:৩১ পিএম
একরাম হোসেন পলাশ | রাইজিংবিডি.কম

একরাম হোসেন পলাশ : বাসাবাড়িতে ব্যবহৃত ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ইনভার্টার প্রযুক্তির এয়ার কন্ডিশনার বা এসির কম্প্রেসরে ১০ বছরের গ্যারান্টি সুবিধা ঘোষণা করেছে বাংলাদেশি মাল্টিন্যাশনাল ইলেকট্রনিক্স ব্র্যান্ড ওয়ালটন।

আগে এই সুবিধাটি ছিল ৮ বছরের জন্য। মূলত, এসিতে ব্যবহৃত কম্প্রেসরের সর্বোচ্চ গুণগতমান নিশ্চিত করায় গ্যারান্টির মেয়াদ আরো দুই বছর বাড়িয়েছে দেশীয় প্রতিষ্ঠানটি। ফেব্রুয়ারির ১০ তারিখ থেকে ইনভার্টার এসি ক্রয়ের ক্ষেত্রে কম্প্রেসরের বর্ধিত এই গ্যারান্টি সুবিধা পাচ্ছেন ক্রেতারা। এছাড়াও ওয়ালটন এসির সকল ক্রেতা পাচ্ছেন দক্ষ টেকনিক্যাল টিম কর্তৃক ফ্রি ইনস্টলেশন সুবিধা।

এসব সুবিধার পাশাপাশি সারা দেশে ‘এসি এক্সচেঞ্জ অফার’ শুরু করেছে ওয়ালটন। এর আওতায় ওয়ালটন প্লাজা ও শোরুমে গ্রাহকরা যেকোনো ব্র্যান্ডের ব্যবহৃত পুরাতন এসি জমা দিয়ে ওয়ালটনের যেকোনো মডেলের নতুন এসি কেনার সুযোগ পাচ্ছেন। পুরনো এসি জমা দিলে গ্রাহক তার পছন্দকৃত নতুন ওয়ালটন এসির মূল্য থেকে ২৫ শতাংশ ছাড় পাবেন। অফারটি ফেব্রুয়ারির ৭ তারিখ খেকে সারা দেশে শুরু হয়েছে। চলবে ৩১ মার্চ পর্যন্ত।
 


পুরাতন এসির গ্রাহকদের জন্য একটি বড় সুযোগ তৈরি করেছে এই এক্সচেঞ্জ অফার। এর আওতায় গ্রাহকরা এখন সহজেই ঘরের পুরাতন এসি বদলে সাশ্রয়ী মূল্যে ওয়ালটনের নতুন এসি কিনতে পারবেন।

ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক উদয় হাকিম বলেন, বাংলাদেশের প্রতিটি ঘরে দেশীয় প্রযুক্তি পণ্যের সুফল পৌঁছে দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ওয়ালটন। শুধু পণ্য বিক্রিই নয়; দেশের মানুষকে সর্বোত্তম সেবা প্রদানও ওয়ালটনের মূখ্য উদ্দেশ্য। তাই, এসির গ্রাহকদের বাড়তি সুবিধা দিতে এক্সচেঞ্জ অফার, কম্প্রেসরে দীর্ঘস্থায়ী গ্যারান্টিসহ ফ্রি ইনস্টলেশন সুবিধা ঘোষণা করেছেন তারা। এসিতে যুক্ত করেছেন ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ইনভার্টার, আয়োনাইজার, আইওটি বেজড স্মার্টের মতো বিশ্বের লেটেস্ট প্রযুক্তি।


ওয়ালটন এসির চিফ অপারেটিং অফিসার প্রকৌশলী ইসহাক রনি জানান, ইনভার্টার প্রযুক্তির কম্প্রেসরে রয়েছে কার্বোমুড। যা কিনা রুমের তাপমাত্রা দ্রুত কমিয়ে এনে রুমকে দ্রুত ঠান্ডা করে। ইনভার্টার প্রযুক্তিতে পিসিবি বা মাদারবোর্ডের মাধ্যমে রুমের তাপমাত্রা অনুযায়ী কম্প্রেসরের গতি নিয়ন্ত্রিত হয়। অর্থাৎ রুমের তাপমাত্রা কমার পাশাপাশি কম্পেসরের গতিও কমে আসে। কম্প্রেসরে বিশ্ব স্বীকৃত সম্পূর্ণ পরিবেশবান্ধব আর-৪১০এ রেফ্রিজারেন্ট ব্যবহার করছে ওয়ালটন। কম্প্রেসরের অ্যাকুইরেসি এবং কুলিং সিস্টেম-এ নিশ্চিত করেছে সর্বোচ্চ পারফেকশন। এছাড়ও, কম্প্রেসরে বিল্ট-ইন অটোমেটিক ভোল্টেজ প্রোটেকশন সিস্টেম থাকায় বিদ্যুৎ প্রবাহের বিচ্যুতি বা তারতম্যেও ওয়ালটন কম্প্রেসারের তেমন কোনো ক্ষতি হবে না। এসির কনডেনসারে ব্যবহার করা হচ্ছে মরিচারোধক গোল্ডেন কালার ফিন প্রযুক্তি। এসব কারণে ওয়ালটনের ইনভার্টার এসিতে বিদ্যুৎ সাশ্রয় হয় ৬০ শতাংশ পর্যন্ত। কম্প্রেসরের স্থায়ীত্বও বেড়েছে অনেক।

তিনি আরো জানান, ওয়ালটনের প্রতিটি এসি আন্তর্জাতিকমানের টেস্টিং ল্যাব নাসদাত-ইউটিএস থেকে মান নিয়ন্ত্রণ সনদ পাওয়ার পরে বাজারজাত করা হয়।

সূত্রমতে, এ বছর স্থানীয় বাজারে লেটেস্ট প্রযুক্তির ১৮ মডেলের এসি ছেড়েছে ওয়ালটন। এর মধ্যে রয়েছে ১ থেকে ২ টনের ১৪ মডেলের স্প্রিট এসি, ৪ ও ৫ টনের সিলিং ও ক্যাসেট টাইপ এসি। ৭৮ হাজার টাকা থেকে শুরু করে সর্বনিম্ন ৩৫ হাজার ৫০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে স্প্রিট এসি। এছাড়া ৫ টন এসি পাওয়া যাচ্ছে ১ লাখ ৪১ হাজার টাকা থেকে ১ লাখ ৫৯ হাজার টাকায়। স্প্রিট এসির ভেনচুরি ও রিভারাইন সিরিজে ১.৫ ও ২ টনের ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ইনভার্টার প্রযুক্তির নতুন মডেলের স্মার্ট এসি ছেড়েছে ওয়ালটন। এসিতে প্রতিদিন বা মাসিক বিল আসছে কত? ভোল্টেজ লো না হাই? কম্প্রেসর কি ওভারলোডে চলছে? স্মার্ট এসিতে মিলবে এসবের উত্তর। বাংলাদেশে ওয়ালটনই প্রথমবারের মতো আইওটি বেইজড স্মার্ট এসি নিয়ে এসেছে যা ভয়েস কমান্ড ও মুঠোফোনে নিয়ন্ত্রণযোগ্য। অর্থাৎ ‘ভয়েস কন্ট্রোল’ বা ‘অ্যামাজন ইকো’র মাধ্যমে রিমোট কন্ট্রোল ছাড়াই স্মার্ট এসির শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা বাড়ানো, কমানো, চালু বা বন্ধ করা যাবে।

ওয়ালটনের এসিতে সংযোজন করা হয়েছে আয়োনাইজার প্রযুক্তি। যা রুমকে ঠান্ডা করার পাশাপাশি রুমের বাতাসকে ধূলা-ময়লা ও ব্যাকটেরিয়ামুক্ত করবে।

কর্তৃপক্ষ জানায়, বিশ্বের লেটেস্ট প্রযুক্তির ব্যবহার ব্যবহার, উচ্চ গুণগত মান ও সঠিক বিটিইউ’র নিশ্চয়তা,  বৈচিত্র্যময় ডিজাইন, সাশ্রয়ী মূল্য, ৬ মাসের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টি ও দেশব্যাপী বিস্তৃত সেলস ও সার্ভিস নেটওয়ার্ক থাকায় স্থানীয় বাজারে গ্রাহকপ্রিয়তার শীর্ষে ওয়ালটন এসি। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে মেড ইন বাংলাদেশ ট্যাগযুক্ত ওয়ালটন পণ্য রপ্তানি হচ্ছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে।
 


জানা গেছে, গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটনের নিজস্ব কারখানায় চতুর্থ প্রজন্মের সর্বাধুনিক এয়ার কন্ডিশনিং ব্যবস্থা ভিআরএফ (ভেরিয়্যবল রেফ্রিজারেন্ট ফ্লো) প্রযুক্তির এসি তৈরি করছে ওয়ালটন। এই প্রযুক্তির এসি একই সময়ে পুরো ভবনের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা রাখে। ভিআরএফ প্রযুক্তিতে একটি ভবনের ইনডোর এয়ার কন্ডিশনিং ইউনিটগুলোকে একটি সেন্ট্রাল কন্ট্রোল সিস্টেমের মাধ্যমে পরিচালনা করা হয়। ওয়ালটনের ভিআরএফ এসিতে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে কমফোর্ট কুলিং এবং ডুয়াল সেন্সিং সিস্টেম। ফলে, প্রয়োজন অনুযায়ী ঠান্ডা ও গরম বাতাস পাওয়া যাবে। এটি সুবিধামতো ঘরের যেকোনো স্থানে স্থাপন করা যাবে।

ওয়ালটন ছোট স্থাপনার জন্য ৫ থেকে ১৫ টনের মিনি ভিআরএফ এসি বানাচ্ছে। মাঝারি স্থাপনার জন্য তৈরি করছে ১৭ থেকে ৩২ টনের সিঙ্গেল মডিউলার ভিআরএফ এসি। আবার বড় পরিসরে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার জন্য ওয়ালটনের থাকছে মাল্টি মডিউলার ভিআরএফ এসি।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/পলাশ/সাইফ

   
 


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

বইমেলায় বক্তৃতা শেখার বই

২০১৯-০২-২০ ১০:১৪:৪৪ পিএম

বিএনপিতে নতুন নেতৃত্ব আনার দাবি

২০১৯-০২-২০ ৮:২৩:৫৭ পিএম