বিতর্কের জবাব দিলেন অজয়

প্রকাশ: ২০১৯-০৪-১৯ ৪:১৮:৩০ পিএম
মারুফ খান | রাইজিংবিডি.কম

অজয় দেবগন

বিনোদন ডেস্ক: বলিউড অভিনেতা অজয় দেবগন অভিনীত পরবর্তী সিনেমা দে দে পেয়ার দে। সিনেমাটির একটি চরিত্রে অভিনয় করছেন যৌন হেনস্তার অভিযোগে অভিযুক্ত অভিনেতা অলোক নাথ। এ নিয়ে রোষানলে পড়েছেন অজয়।

গত বছর অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে প্রথম যৌন হেনস্তার অভিযোগ করেন অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। এরপর যৌন হেনস্তা নিয়ে সোচ্চার হয় বলিপাড়া। ‘মি টু’ আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে তাদের সঙ্গে ঘটা নানা আপত্তিকর মুহূর্তের কথা তুলে ধরেন অভিনয়শিল্পীরা।

দে দে পেয়ার দে সিনেমায় অলোক নাথকে নেয়া প্রসঙ্গে তনুশ্রী বলেন, ‘পোস্টার ও ট্রেইলার প্রকাশের আগে কেউ জানতেন না অলোক নাথ সিনেমাটিতে আছেন, সুতরাং অজয় ও নির্মাতা যদি ইচ্ছে করতেন তারা নীরবেই তাকে পরিবর্তন করে পুনরায় শুটিং করতে পারতেন।’

‘মি টু’ আন্দোলনের সময় অলোক নাথের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তোলেন লেখিকা-প্রযোজক বিনতা নন্দা। এ বিষয়ে মামলাও দায়ের হয়েছে। বর্তমানে জামিনে রয়েছেন অলোক নাথ। এ প্রসঙ্গে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় না, এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার ইচ্ছা অজয়ের ছিল, সুতরাং আমি তার কাছ থেকে কোনো কিছু আশা করি না। সিনেমা থেকে অর্থ উপার্জন করাই এই সব মানুষের প্রধান ধর্ম।’

তবে এ প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন অজয়। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘সবাই জানে সিনেমা নির্মাণ একটি সম্মিলিত প্রক্রিয়া। অলোক নাথকে পরিবর্তন করার বিষয়টি শুধু আমার একার সিদ্ধান্ত ছিল না। এই ক্ষেত্রে আমাকে পুরো টিমের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে হয়েছে। এটা ভুলে গেলে চলবে না, পুরো কলাকুশলীকে সেটে নিয়ে ৪০ দিন পুনরায় শুটিং করা সম্ভব নয় কারণ এতে বাজেট দ্বিগুণ হয়ে যাবে, এতেও আমার সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার নেই। এই সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার নির্মাতাদের। যদি পরিস্থিতি কিছুটা ভিন্ন হতো, আমি অন্য অভিনয়শিল্পীদের সমন্বয়ে তা করতাম। দুর্ভাগ্যবশত, তা হয়নি।’

এ অভিনেতা আরো বলেন, ‘যখন মি টু আন্দোলন হয়, ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে আমার অনেক সহকর্মীর সঙ্গে আমিও স্বতন্ত্রভাবে জানিয়েছিলাম, কর্মক্ষেত্রে প্রতিটি নারীকে আমি সম্মান করি এবং তাদের সঙ্গে কোনো অন্যায় ও নৃশংসতা মেনে নিব না। এ বিষয়ে আমার অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়নি। আমি পুনরাবৃত্তি করছি, মি টু আন্দোলনের ব্যাপারে আমি খুবই সংবেদনশীল। কিন্তু যখন পরিস্থিতি আমার আওতায় নেই, বুঝতে পারছি না শুধু আমাকেই কেন অসংবেদনশীল বলা হচ্ছে। এটি মোটেও সত্য নয়।’

রোমান্টিক-কমেডি ঘরানার দে দে পেয়ার দে সিনেমাটিতে ৫০ বছর বয়সি পুরুষের সঙ্গে ২৬ বছর বয়সি নারীর প্রেম দেখানো হয়েছে। এতে ২৬ বছর বয়সি নারীর চরিত্রে দেখা যাবে রাকুল প্রীত সিংকে। সিনেমাটিতে আরো রয়েছেন অভিনেত্রী টাবুসহ অনেকে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৯ এপ্রিল ২০১৯/মারুফ/শান্ত

     


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

আবারো বা‌লিশ নি‌য়ে বিক্ষোভ

২০১৯-০৫-২১ ২:৫০:০৭ পিএম