মুক্তি পাচ্ছেন না খালেদা জিয়া

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-১৬ ৯:৫৮:৪০ এএম
মেহেদী হাসান ডালিম | রাইজিংবিডি.কম

নিজস্ব প্রতিবেদক : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার হাইকোর্টের জামিন আপিল বিভাগ বহাল রাখলেও তার কারামুক্তিতে বিলম্ব হবে।

খালেদার আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলছেন, কুমিল্লা, নড়াইল ও ঢাকায় থাকা মামলায় জামিন নেওয়ার পরই তিনি জামিনে মুক্তি পাবেন।

বুধবার খালেদার জামিন বাতিলে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের করা আপিল খারিজ করে দিয়ে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ জামিন বহাল রাখেন। একইসঙ্গে নিম্ন আদালতের সাজার বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া যে আপিল করেছেন তা বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চকে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছেন।

রায়ের পর খালেদা জিয়ার মুক্তিতে বাধা আছে কি না এমন প্রশ্নে খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, কিছুটা বাধা আছে। কুমিল্লা, নড়াইল ও ঢাকায় যে মামলাগুলো আছে। সেগুলোতে জামিন নিতে হবে। এখন আমরা দ্রুত চেষ্টা করব আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার। তিনি শিগগরই আমাদের মাঝে মুক্ত হয়ে আসবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন মওদুদ।

আরেক আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, সরকার তো সব সময় বাধা দেয়। এখন তার বিরুদ্ধে অন্য যেসব মামলা আছে সেগুলোতে দ্রুত হাইকোর্ট থেকে জামিন নেওয়ার চেষ্টা করব। আইনি প্রক্রিয়ায় সব বাধা দূর করা হবে।

দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলেন, আমরা হাইকোর্ট বিভাগে এ মামলার আপিল শুনানিতে প্রস্তুত আছি।

গত ১৪ মার্চ খালেদা জিয়ার হাইকোর্টের দেওয়া চার মাসের জামিন স্থগিত করে লিভ টু আপিল দায়েরের জন্য দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষকে নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ।

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি শেষ হয়। গত ২২ ফেব্রুয়ারি একই বেঞ্চ খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন। এ ছাড়া এই মামলায় নিম্ন আদালতের দেওয়া অর্থদণ্ড স্থগিত করা হয়। পাশাপশি নিম্ন আদালতের নথি ১৫ দিনের মধ্যে পাঠাতে ঢাকা বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারককে নির্দেশ দেওয়া হয়।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন নিম্ন আদালত। এ মামলার অপর আসামি খালেদা জিয়ার বড় ছেলে ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ বাকি পাঁচজনকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা জরিমানাও করা হয়।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ মে ২০১৮/মেহেদী/ইভা

   
 



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

ভুলুয়ার চরে জীবনযাপন যেমন

২০১৮-১০-২৩ ১০:০৫:১১ পিএম

ভাঙা হাতে ক্যামেরাবন্দি মেসি

২০১৮-১০-২৩ ৯:২৭:০২ পিএম

আবারো ভর্তুকি দাবি বিএসএফআইসি’র

২০১৮-১০-২৩ ৯:০৪:৫৯ পিএম

টি-ব্যাগে যতো সমস্যা

২০১৮-১০-২৩ ৮:৩৭:৩৩ পিএম