পাবলিক টয়লেটের যেসব স্থানে স্পর্শ করা উচিত নয়

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-০২ ১১:৫০:১৬ এএম
এস এম গল্প ইকবাল | রাইজিংবিডি.কম

প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : পাবলিক টয়লেট মানেই জীবাণু বা ব্যাকটেরিয়ার ছড়াছড়ি এবং এদের থেকে নিজেকে বাঁচাতে আপনার সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। এ প্রতিবেদনে পাবলিক টয়লেটের এমন কিছু জিনিস বা স্থানের উল্লেখ করা হলো যেখানে স্পর্শ করা উচিত নয়।

* পানির ট্যাপের হ্যান্ডেল : কেন পাবলিক টয়লেটের ফসেট বা পানির ট্যাপের হ্যান্ডেল স্পর্শ করা উচিত নয় তা একপ্রকার নো-ব্রেইনার বা সহজে বোধগম্য একটি বিষয়। আপনি নোংরা ও জীবাণুযুক্ত হাত দিয়ে ফসেট বা পানির ট্যাপ ছাড়েন এবং পানি ব্যবহারের পর পরিষ্কার হাত দিয়ে তা বন্ধ করেন- এভাবে আপনার হাতের জীবাণু পুনরায় আপনার হাতে চলে আসতে পারে। এছাড়া পাবলিক টয়লেট অনেকে ব্যবহার করে বলে ফসেট বা পানির ট্যাপের হ্যান্ডেলে লেগে থাকা তাদের জীবাণু আপনার হাতে চলে আসতে পারে। হাত ধোয়ার পর পেপার টাওয়েল দিয়ে ফসেট বা পানির ট্যাপ বন্ধ করুন।

* হ্যান্ড ড্রায়ার : পাবলিক টয়লেটের হ্যান্ড ড্রায়ার শুধুমাত্র স্পর্শ নয়, ব্যবহার করাও উচিত নয়। লন্ডনে অবস্থিত ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টমিনিস্টারে সম্পাদিত একটি গবেষণা অনুসারে, পেপার টাওয়েলের তুলনায় জেট এয়ার ড্রায়ার ১৯০ গুণ বেশি ভাইরাস ছড়ায়। যখন আপনি পেপার টাওয়েল দিয়ে হাত শুকাবেন, আপনার হাত দ্রুত শুকাবে ও ফ্রিকশন হবে- যার ফলে ব্যাকটেরিয়া দূর হবে এবং হাত অধিকতর পরিষ্কার হবে।

* মেঝে : কেন পাবলিক টয়লেটের ফ্লোর বা মেঝে স্পর্শ করা উচিত নয় তাও একটি নো-ব্রেইনার টপিক। অধিকাংশ লোকের ক্ষেত্রে পাবলিক টয়লেটের ফ্লোর স্পর্শ এড়িয়ে যাওয়া সহজ। আপনার পার্স, ডায়াপার ব্যাগ অথবা ব্যাকপ্যাক কখনো বাথরুমের ফ্লোরে রাখবেন না, কারণ ফ্লোরের ফেকাল ব্যাকটেরিয়া এসব আইটেমে চলে আসতে পারে।

* ফ্লাশ হ্যান্ডেল : অনেক লোক টয়লেট ফ্লাশ করার জন্য তাদের পা ব্যবহার করে (না, আমরা মজা করছি না), যার মানে হচ্ছে- এতে তাদের জুতার তলা থেকে প্রচুর পরিমাণে জীবাণু লেগে থাকে। লোকজন শৌচকর্ম করে পরিষ্কার হওয়ার পর ফ্লাশ হ্যান্ডেল স্পর্শ করে এবং তাদের হাতে প্রচুর পরিমাণে ব্যাকটেরিয়া লাগে।

* সোপ ডিসপেনসার : যদি সোপ ডিসপেনসার ম্যানুয়াল হয়, আপনি এটি স্পর্শ করার পর আপনার হাত ভালোভাবে পরিষ্কার করতে চাইবেন। বাথরুম ব্যবহারের পর অনেক লোক সোপের কাছে যায় এবং তাদের জীবাণুযুক্ত হাত দিয়ে এটি পাম্প আউট করে।

* দেয়াল : টয়লেট প্লুম অথবা টয়লেট ফ্লাশ করার ফলে বায়ুবাহিত হওয়া পার্টিকেল বাথরুমের দেয়ালের সর্বত্র লেগে থাকে এবং এমনকি অধিকাংশ পাবলিক টয়লেট ভালোভাবে পরিষ্কার করা হয় না। তাই বাথরুমের দেয়াল স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন।

* দরজার হাতল : ফসেটের মতো লোকজন বাথরুম ব্যবহারের পর দরজার হাতলও স্পর্শ করে। এটিতে প্রতিনিয়ত নোংরা ও জীবাণুযুক্ত হাতের ছোঁয়া লাগে। কিন্তু এটি স্পর্শ না করে থাকা কঠিনই বটে, তাই এটি স্পর্শ করার পর সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে ভুলবেন না।

* দরজা : যারা হাত পরিষ্কার করার পর যারা পেপার টাওয়েল ব্যবহার করে, তারা প্রচুর জীবাণু থেকে নিজেদেরকে রক্ষা করে। কিন্তু অনেক লোক বাথরুম ব্যবহার করে তাদের হাত পরিষ্কার করে না এবং দরজার হাতল স্পর্শ করে। ওয়াক! দরজা খুলতে পেপার টাওয়েল ব্যবহার করুন।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট
 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২ মার্চ ২০১৮/ফিরোজ

   
 



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

পুরুষের মেনোপজ : যা জানা জরুরি

২০১৮-১০-১৭ ৯:০৩:৫৩ পিএম

সুজি দিয়ে তালের বড়া

২০১৮-১০-১৭ ৮:৫১:১৮ পিএম

মনোবিদের ক্লাসে ক্রিকেটাররা…

২০১৮-১০-১৭ ৮:৩৫:৫৩ পিএম