যেসব ছোট চিন্তা তীব্র উদ্বেগ বাড়ায় (শেষ পর্ব)

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-০৪ ৯:১০:৫৫ এএম
এস এম গল্প ইকবাল | রাইজিংবিডি.কম

প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : এই প্রতিবেদনে আলোচিত প্রচলিত শব্দগুচ্ছগুলো সর্বোপরি নির্দোষ নয়। প্রকৃতপক্ষে, এসব ভাবনা আপনার মধ্যে অ্যানজাইটি বা তীব্র উদ্বেগ সৃষ্টি করে। আপনি কিভাবে এসব ভাবনা পুনর্বিবেচনা করবেন তা এখানে তুলে ধরা হলো। এ নিয়ে দুই পর্বের প্রতিবেদনের আজ থাকছে শেষ পর্ব।

* ‘আমি এ কাজটি শেষ করতে পারব না’

‘আমি এ কাজটি শেষ করতে পারব না’- এ ধরনের চিন্তা সন্দেহ ও অনিশ্চয়তার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। এ প্রকৃতির চিন্তা কাজের প্রতি উৎসাহ কিংবা উদ্দীপনা হ্রাস করে। মনের ভেতর এরকম ভাবনা ঘুরপাক খেতে থাকলে আত্মবিশ্বাস তলানিতে নেমে যায়। কোনো দ্বিধাপূর্ণ বা কঠিন কাজ করার জন্য কাজটিকে ছোট ছোট অংশে ভাগ করে পর্যায়ক্রমে প্রত্যেকটি অংশ সম্পন্ন করতে পারেন। একটি অংশ সম্পন্ন করলে আপনার মধ্যে আত্মবিশ্বাস জন্মাবে, যার ফলে আপনি পরবর্তী অংশ সম্পন্ন করার জন্য উৎসাহ পাবেন। কোনো বিভক্ত অংশ বা কাজ কত ছোট সেটা কোনো ব্যাপার নয়, আত্মবিশ্বাসটাই মুখ্য। ‘আমি এ কাজটি কখনো সম্পন্ন করতে পারব না’- এরকম ভাবার পরিবর্তে মনকে বলার চেষ্টা করুন, ‘আমি এ ছোট কাজটি সম্পন্ন করতে যাচ্ছি’ এবং তা করা হয়ে গেলে বলুন, ‘আমি এটা করেছি। আমি আরো বেশি কাজ করতে পারব।’

* ‘আমি এ প্রেজেন্টেশন গুলিয়ে ফেলব’

‘আমি এ প্রেজেন্টেশন/প্রজেক্ট/স্পিচ/(অথবা অন্য কিছু) গুলিয়ে ফেলব’- এ ধরনের কথা নিজেকে বলা ভালো নয়।’ ভুল করাই যাবে না- এ জাতীয় অযৌক্তিক বিশ্বাস থেকে এরকম ভাবনার উদয় হয়। মানুষ মাত্রই ভুল করে। আপনি কোনো ভুল করতেই পারেন, তার মানে এই নয় যে সম্পূর্ণ বিষয়টি বা সবকিছু গুলিয়ে ফেলছেন। এরকম নেতিবাচক চিন্তার দ্বারা নিজের কনফিডেন্সকে ব্লক না করে নিজের ওপর আস্থা রাখুন। ‘আমি কাজটি গুলিয়ে ফেলতে যাচ্ছি’- এরকম না ভেবে নিজেকে বলার চেষ্টা করুন, ‘আমি ভুল করতে পারি এবং তা নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো মানে হয় না, কারণ আমি নিজেকে সংশোধন করে নেব এবং আমার কাজ চালিয়ে যাব। প্রত্যেক মানুষই ভুল করে।’

* ‘আমার এ কথা বলা উচিত হয়নি’

আপনি যা বলে ফেলেছেন তা আর ফিরিয়ে নিতে পারবেন না। আপনি হয়তো এমন কথা বলেছেন যা বলা উচিত হয়নি, কিন্তু তা সত্ত্বেও ‘উচিত’ শব্দটি নিয়ে আর মাথা ঘামাবেন না, অন্যথায় আপনার উদ্বেগ বেড়ে যেতে পারে। কখনো কখনো আমরা ‘কেন এমনটা বলেছি’ এটা ভেবে হতাশ হয়ে পড়ি এবং নিজেদের বা অন্যদের প্রতি ক্রুদ্ধ হই। কি বলা উচিত ছিল কিংবা কি বলা উচিত হয়নি- এসবের ওপর ফোকাস না করে যা বলা হয়ে গেছে তা থেকে মন ফিরিয়ে নিন এবং পরবর্তীতে সুন্দর আলাপের প্রত্যাশায় থাকুন। ‘আমার এ কথা বলা উচিত হয়নি’- এরকম ভাবার পরিবর্তে ভাবুন, ‘আমি তা বলে ফেলেছি। হয়তো তার চেয়ে ভালো কিছু বলতে পারতাম। যাইহোক, আমি আশাবাদী যে পরবর্তীতে সুন্দর কথা বলতে পারব।’

* ‘সবাই আমাকে নির্বোধ মনে করছে’

অধিকাংশ লোক তাদের আশপাশে কি ঘটছে তাতে খুব বেশি মনোযোগ দেন। তারা ‘অন্যদের সামনে আমাকে কেমন লাগছে বা অন্যরা আমার সম্পর্কে কি ভাবছে’- এ জাতীয় ভাবনায় ব্যস্ত থাকে এবং তাদের প্রতি অন্য কেউ ততটা মনোযোগ না দিলে তারা নিজেদেরকে বোকা মনে করে উদ্বিগ্ন হয়। ‘সবাই আমাকে নির্বোধ  মনে করছে’- এরকম চিন্তা না করে নিজেকে বলুন, ‘প্রত্যেকে নিজেকে নির্বোধ দেখাচ্ছে ভেবে উদ্বিগ্ন এবং তারা আসলেই আমার প্রতি ফোকাস করছে না।’

* ‘আমি খুব মোটা’

‘আমি খুব মোটা’- এরকম ভাবনা আপনাকে মেদ কমাতে সাহায্য করবে না। আপনার অস্বস্তিদায়ক অনুভূতি দূর করার জন্য উপায় অনুসন্ধান করুন। মেদ কমানোর পরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে আপনি অস্বস্তি ও উদ্বেগের কবল থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবেন। ‘আমি খুব মোটা’- এরকম না ভেবে নিজেকে বলুন, ‘আমি এক্সারসাইজ করবো এবং ভালো-সুষম খাবার খাবো।’

* ‘আমি ভীত’

‘আমি চিকিৎসা/খবর/আবহাওয়া/(অথবা অন্য কিছু) নিয়ে ভীত’- এরকম পরিস্থিতির ক্ষেত্রে আপনি আউটকাম বা ফলাফল সম্পর্কে অনিশ্চিত- যার ওপর আপনার রয়েছে জিরো কন্ট্রোল। এটি স্নায়ু-বিধ্বংসী, তাই মেনে নিন যে আপনি যেটার মধ্য দিয়ে যাবেন সেটা ভীতিকর। কিন্তু নিজের মনে শক্তি যোগানোর জন্য স্মরণ করুন যে আপনি এর পূর্বে ভীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছেন এবং আপনি আবার তা পারবেন। নিজের ভেতর আত্মবিশ্বাস জাগ্রত করা এবং নিজেকে আশ্বস্ত করা গুরুত্বপূর্ণ। ‘আমি ভীত’- এরকম ভাবার পরিবর্তে ভাবতে চেষ্টা করুন, ‘এটি একটি ভীতিকর পরিস্থিতি, কিন্তু আমি তা মোকাবেলা করতে পারবো।’

পড়ুন : যেসব ছোট চিন্তা তীব্র উদ্বেগ বাড়ায় (প্রথম পর্ব)

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৪ মার্চ ২০১৮/ইকবাল/ফিরোজ

   
 



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

বার্সার রেকর্ড রাজস্ব আয়

২০১৮-০৭-১৭ ৫:০২:১১ পিএম

যে ৮ বিষয় গুগলে খুঁজবেন না

২০১৮-০৭-১৭ ৪:৪৩:৫২ পিএম

শতাধিক প্রেক্ষাগৃহে ‘সুলতান’

২০১৮-০৭-১৭ ৪:০৩:৪৬ পিএম