সুস্থ পরিবারের যত অভ্যাস (তৃতীয় পর্ব)

প্রকাশ: ২০১৯-০৫-২২ ৯:৪৯:৪৪ পিএম
এস এম গল্প ইকবাল | রাইজিংবিডি.কম

প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : সুস্থ পরিবার হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমাতে পারে এবং দীর্ঘদিন বেঁচে থাকার সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে। একটি একটি করে অনেকগুলো ভালো অভ্যাসে গড়ে ওঠে একটি সুস্থ পরিবার। পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের সমগ্র স্বাস্থ্যের উন্নয়নে সুস্থ পরিবারের অবদান অনস্বীকার্য। আপনার পরিবারকে সুস্থ করতে চান? তাহলে এ প্রতিবেদনে আলোচিত সুস্থ পরিবারের অভ্যাসগুলো সম্পর্কে জেনে নিন। ছয় পর্বের প্রতিবেদনের আজ থাকছে তৃতীয় পর্ব।

* তারা পরিবারের সদস্যদের ভালোলাগাকে গুরুত্ব দেন
সুস্থ পরিবারের সদস্যরা যা যা ভালোবাসেন তা শেয়ার করেন এবং একে অপরকে গুরুত্ব দেন- তারা পরিবারের কারো ভালোলাগাকে উপহাস করেন না। পরিবারের সদস্যদের ভালোলাগাকে সমাদর করলে তাদের মনে ক্ষোভ সৃষ্টি হয় না বা জমে থাকা ক্ষোভ দূর হয়ে যায় এবং তারা অধিক কঠিন কাজও সহজে ব্যবস্থাপনা করতে পারে।
- বেইলি গ্যাডিস, সার্টিফায়েড হিপনোথেরাপিস্ট এবং ফেং শুই মমি: ক্রিয়েটিং ব্যালেন্স অ্যান্ড হারমনি ফর ব্লিসফুল প্রেগন্যান্সি, চাইল্ডবার্থ অ্যান্ড মাদারহুড’র লেখক

* তারা অগ্রগতিরও প্রশংসা করেন, শুধুমাত্র সফলতার নয়
সুস্থ পরিবারের একটি ভালো অভ্যাস হলো তারা একে অপরের অগ্রগতি ও সফলতার ওপর ফোকাস করেন। উদাহরণস্বরূপ, যদি পরিবারের কোনো সদস্যের সপ্তাহে পাঁচবার রুম পরিষ্কারের কথা থাকে এবং তিনি ওই সপ্তাহে তিনবার রুম পরিষ্কার করেছেন, তাহলে যে দুদিন তিনি রুম পরিষ্কার করেননি তার সমালোচনা না করে তার প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানানো উচিত। অগ্রগতিকে প্রশংসা করলে পরিবারের সদস্যরা বুঝতে পারে যে তাদের প্রচেষ্টাকে মূল্যায়ন করা হয়েছে। এটি আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়।
- এমিলি গ্রিফিন, মেরিল্যান্ডের জার্মানটাউনের লাইসেন্সড সার্টিফায়েড প্রফেশনাল কাউন্সেলর

* তারা অর্থসংক্রান্ত বিষয়ে খোলাখুলি আলোচনা করেন
অনেক পরিবারে অর্থ হলো থার্ড রেল, কিন্তু এমনটা হওয়া উচিত নয়। সুস্থ পরিবার অর্থসংক্রান্ত বিষয়ে ভান করেন না এবং তারা এ বিষয়টি এড়িয়ে যান না। তারা এ বিষয়ে খোলাখুলি আলোচনা করেন এবং পরিবার অর্থ ব্যয়ের উৎস জেনে একত্রে সিদ্ধান্ত নেন। যেকারণেই অর্থের প্রয়োজন হোক না কেন, এ বিষয়ে পরিবারকে জানানো উচিত এবং পরিবার বিভিন্ন আলোচনা করে যে সিদ্ধান্তে পৌঁছেন তাকে শ্রদ্ধা করা উচিত। পরিবার অর্থসংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা না করলে অথবা সিদ্ধান্ত না নিলে পরিবারটি ডিফল্ট প্রোগ্রামে এগিয়ে চলে, যা পরিবারের কোনো সদস্যের জন্যই ভালো কিছু নয়।
- এপ্রিল মাসিনি, সম্পর্ক বিশেষজ্ঞ ও লেখক

* তারা শরীরচর্চা হয় এমন বিনোদনে অংশ নেন
সুস্থ পরিবার সেসব বিনোদন কার্যক্রমে জড়িত হন যেখানে হাঁটাচলা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে বা শরীরচর্চা হয়। এখানে এক্সারসাইজের কথা বলা হচ্ছে না, পরিবার নিয়ে এক্সারসাইজ করবেন সেটা আলাদা বিষয়। কিন্তু স্বাস্থ্য উন্নতির কথা বিবেচনা করলে জাদুঘর বা পার্ক বা সমুদ্রসৈকত বা চিড়িয়াখানায় যাওয়ার মতো বিনোদনমূলক কাজগুলো সিনেমা থিয়েটারে (যেখানে পপকর্ন ও সোডা খাওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়) যাওয়ার তুলনায় ভালো। এভাবে বিনোদনমূলক কাজেও পুরো পরিবারের শরীরচর্চা হয় এবং তারা কোয়ালিটি টাইম কাটাতে পারে।
- লরা আর্নডট, সার্টিফায়েড পার্সোনাল ট্রেইনার, পরিবার বিশেষজ্ঞ ও ম্যাট্রিয়ার্কের সহপ্রতিষ্ঠাতা

* তারা একাকী খান না
আমাদের ব্যস্ত বিশ্বে পরিবারের সবাইকে একসঙ্গে নিয়ে খাবার খাওয়া অসম্ভব মনে হতে পারে, কিন্তু যদি আপনি পরিবারে নিয়ম প্রতিষ্ঠা করেন যে কেউ একাকী খেতে পারবে না, তাহলে এটি শারীরিক ও মানসিক উন্নতি ঘটাবে। পরিবারের সবাইকে নিয়ে খাবার খাওয়ার উপযুক্ত সময় হলো ডিনার টাইম অথবা ব্রেকফাস্ট টাইম। কিন্তু অন্যান্য সময়ে বা দুপুরে ছেলেমেয়েরা মায়ের সঙ্গে খেতে পারে, যেহেতু এ সময় বাবা ঘরে থাকেন না। খাবার টেবিলে বসার পূর্বে ডিভাইস বা টেকলোলজি বন্ধ রাখতে হবে এবং বই বা সংবাদপত্র হাতে নেয়া যাবে না।
- লিজা বেকার, হেলথ কোচ, প্রফেশনালি ট্রেইনড শেফ ও রান্না বিষয়ক বইয়ের লেখক

* তারা মাঝেমাঝে বাইরে খাবার খান
সুস্থ পরিবারের পিতামাতারা মাঝেমাঝে ছেলেমেয়েদেরকে নিয়ে ঐতিহ্যবাহী ও বিভিন্ন স্বাদের খাবার খেতে বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে যেতে পারেন। এর ফলে ছেলেময়েরা নতুন নতুন খাবারের সঙ্গে পরিচিত হতে পারে। এ মজার অ্যাডভেঞ্চার ছেলেমেয়েদের মনকে প্রফুল্ল করে তোলে, যা তাদের মানসিক বিকাশে সাহায্য করে। কিন্তু আপনাকে সেসব রেস্টুরেন্টে যেতে হবে যেখানে স্বাস্থ্যকর খাবার পরিবেশন করা হয়।
- বেকি ব্লেক, সাইকোনিউরোলজিস্ট ও রিয়েল লাইফ মেরি পপিন্স।

* তারা পারিবারিক বাগানে কাজ করেন
পারিবারিক বাগানে একসঙ্গে কাজ করা হলো বাইরে সময় কাটানো ও নতুন খাবার সম্পর্কে জ্ঞানার্জন করার একটি চমৎকার উপায়। এটি স্ক্রিন বা ডিজিটাল লাইফ থেকে দূরে থাকতে ও বাইরের পরিবেশ উপভোগ করতে সুযোগ দেয়।
- র‍্যাশেল কে. জনসন, ইউনিভার্সিটি অব ভারমন্টের নিউট্রিশন বিভাগের অধ্যাপক ও আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের মুখপাত্র

* তারা একসঙ্গে স্ট্রেস নিয়ন্ত্রণ করেন
সুস্থ পরিবার দিনের শেষে স্ট্রেস বা মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণ অথবা শিথিলতার জন্য সময় দেন, কিছু পারিবারিক যোগব্যায়াম করেন, মাইন্ডফুলনেস প্র্যাকটিস বা মেডিটেশন করেন অথবা একসঙ্গে বই পড়েন। নিশ্চিত হোন যে পরিবারের অন্য সদস্যদেরও স্ট্রেস নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে। স্ট্রেস নিয়ন্ত্রণে থাকলে শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য ভালো থাকে।
- কেলসি টর্জারসন, কমপ্যাশনেট কাউন্সেলিং সেন্ট লুইসের সনদপ্রাপ্ত সমাজকর্মী

* তারা মিষ্টান্ন এড়িয়ে চলেন
মানুষের একটি স্বাভাবিক প্রবণতা হচ্ছে, সামনে যে খাবার দেখা যায় তা খেতে চাওয়া। তাই আপনার কিচেনে স্বাস্থ্যকর স্ন্যাকস রাখুন এবং চিনিযুক্ত খাবার বা মিষ্টান্নকে চোখের আড়ালে রাখুন। কাউন্টার অথবা ফ্রিজে বর্ণিল ফল ও শাকসবজি রাখুন, যেন ক্ষুধা অনুভব করলে পুষ্টিকর স্ন্যাকস খেতে পারেন। প্রাপ্তবয়স্ক ও শিশুদের জন্য উপকারি খাবার হলো ব্লুবেরি। সুস্থ থাকার অন্যতম পূর্বশর্ত হলো ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা এবং ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার অন্যতম উপায় হলো স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া।
- সোনালি রুদির, জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ও ফুডি ফিজিশিয়ানের প্রতিষ্ঠাতা

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট

পড়ুন : * সুস্থ পরিবারের যত অভ্যাস (প্রথম পর্ব)

* সুস্থ পরিবারের যত অভ্যাস (দ্বিতীয় পর্ব)

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২২ মে ২০১৯/ফিরোজ

     


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

বেনাপোল স্থলবন্দরে পণ‌্য জব্দ

২০১৯-০৬-২৭ ৫:৩৩:৫৬ পিএম

শিশু ধর্ষণ : ইমামসহ দুজনের সাজা

২০১৯-০৬-২৭ ৫:০৯:৫৫ পিএম

‘বলিউডে বন্ধুত্ব করতে আসিনি’

২০১৯-০৬-২৭ ৪:৪৩:৩১ পিএম