ঠান্ডা আবহাওয়ার ১০ বিস্ময়কর স্বাস্থ্য উপকারিতা

প্রকাশ: ২০১৮-১২-০৯ ১০:১০:৫৫ পিএম
এস এম গল্প ইকবাল | রাইজিংবিডি.কম

প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : কোনো সন্দেহ নেই যে শীতকাল আমাদের শরীর ও সার্বিক সুস্থতার জন্য নেতিবাচক, কিন্তু এই ঋতু আমাদের উপকারও করে। এখানে শীতকাল বা ঠান্ডা আবহাওয়ার ১০ বিস্ময়কর স্বাস্থ্য উপকারিতা আলোচনা করা হলো।

* মস্তিষ্ক উন্নত করে
ঠান্ডা তাপমাত্রা মানুষকে স্পষ্ট কিংবা পরিচ্ছন্ন চিন্তা করতে সাহায্য করে। গবেষণা বলছে, লোকজন উষ্ণ কক্ষ তাপমাত্রার চেয়ে ঠান্ডা কক্ষ তাপমাত্রায় তুলনামূলক ভালো কাজ করে। অন্য একটি গবেষণা বলছে, লোকজন শীতকালের তুলনায় গ্রীষ্মকালে জ্ঞানীয় সমাধান কম করে, কারণ উষ্ণ তাপমাত্রা অধিক গ্লুকোজ ব্যবহার করে যা আপনার মানসিক প্রক্রিয়ার জন্য প্রয়োজন। তাই শীতকালে বাইরে কিছু সময় দ্রুত হাঁটুন যা আপনাকে কাজের বড় কোনো ধারণা দিতে পারে।

* ক্যালরি পোড়াতে সাহায্য করে
ঠান্ডার সময় আপনার শরীর কোর টেম্পারেচার বজায় রাখার জন্য কঠোর পরিশ্রম করে। আলমিডা ল্যাবসের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রাকৃতিক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ স্ট্যাসি টাকার বলেন, ‘আমাদের শরীর আমাদেরকে উষ্ণ রাখতে উল্লেখযোগ্য পরিমাণে শক্তি ব্যবহার করে এবং আমরা যখন ঠান্ডায় বাইরে থাকি তখন আমাদের শ্বাসগ্রহণের বায়ুকে আর্দ্র করে।’

* বাদামী চর্বি বৃদ্ধি করে
মানব শরীরের অধিকাংশ চর্বির বর্ণ সাদা, কিন্তু আমাদের দেহে অন্য বর্ণের একটি চর্বিও থাকে এবং তা হচ্ছে বাদামী চর্বি। বাদামী চর্বি হচ্ছে, মাইটোকন্ড্রিয়া-সমৃদ্ধ চর্বি কোষ যা শক্তি পোড়ায় এবং শরীরে তাপ উৎপাদন করে। টাকার বলেন, ‘একসময় ধারণা করা হতো যে শুধুমাত্র শিশুদের বাদামী চর্বি থাকে, কিন্তু একটি গবেষণায় প্রাপ্তবয়স্কদের শরীরেও কিছু বাদামী চর্বি পাওয়া গেছে এবং নিম্ন বডি মাস ইনডেক্সের লোকদের তুলনামূলক বেশি বাদামী চর্বি থাকে। গবেষণায় দেখা গেছে, যখন পুরুষেরা ঠান্ডা তাপমাত্রায় থাকে তখন তাদের শরীরে বাদামী চর্বি বৃদ্ধি পায় এবং বিপাকও বেড়ে যায়।

* আউটডোর অ্যালার্জিকে নিষ্ক্রিয় করে
যদি আপনার আউটডোর অ্যালার্জি থাকে, তাহলে সুখবর! ঠান্ডা ও তুষারাচ্ছন্ন আবহাওয়ায় পলেন কাউন্টের ভার্চুয়ালি অস্তিত্ব থাকে না। কিন্তু যদি আপনার ইনডোর অ্যালার্জি থাকে, তাহলে আপনি এই অ্যালার্জি থেকে নিরাপদ নন- কারণ, মোল্ড ও ডাস্ট মাইট অ্যালার্জি শীতকালে আরো খারাপ হতে পারে, বিশেষ করে যদি আপনি ইনডোরে বেশি সময় কাটান, বলেন টাকার।

* প্রদাহ কমাতে পারে
ইনজুরির পর ফোলা ও ব্যথা হ্রাস করতে বরফের প্যাক ব্যবহার করা হয়। আপনি হয়তো লক্ষ্য করেছেন যে, শীতকালে আপনার জয়েন্টে ফোলা কম হয়, এর কারণ হচ্ছে- ঠান্ডা বাতাস প্রদাহ কমাতে প্রাকৃতিক বরফের প্যাক হিসেবে কাজ করে, টাকার ব্যাখ্যা করেন।

* রোগের ঝুঁকি কমায়
কোনো সন্দেহ নেই যে শীতকালে আপনার কমন কোল্ড বা সাধারণ ঠান্ডা লাগার প্রবণতা বেশি, কিন্তু কিছু রোগ ও ভাইরাসের ক্ষেত্রে আপনার ঝুঁকি কমে যায়- বিশেষ করে যেসব রোগ ও ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব উষ্ণ তাপমাত্রায় বেশি। শীতকালে সমস্যা সৃষ্টিকারী মশা হাইবারনেট থাকে, যার ফলে শীতের মৌসুমে মশা-বাহিত রোগের (যেমন- জিকা, ওয়েস্ট নিল ভাইরাস, ডেঙ্গু জ্বর ও ম্যালেরিয়া) ঝুঁকি হ্রাস পায়, বলেন টাকার।

* ভালো ঘুম আনে
যখন আপনি ঘুমাতে চেষ্টা করেন, আপনার শরীরের কোর টেম্পারেচার প্রাকৃতিকভাবে হ্রাস পায়; গ্রীষ্মকালে এই প্রক্রিয়া শুরু হতে দুই ঘণ্টা পর্যন্ত লাগতে পারে, কিন্তু শীতকালে তা অধিক দ্রুত হয়, বলেন টাকার। এছাড়া শীতকালে ছোট দিনের একটি ইতিবাচক দিক হচ্ছে অন্ধকারাচ্ছন্ন সকাল, তাই আপনি সকালে বেশি সময় ঘুমাতে পারেন। যদি আপনার শয়নকক্ষের তাপমাত্রা ৬০ থকে ৬৭ ডিগ্রির মধ্যে থাকে, আপনার অধিক ক্যালরি পুড়তে পারে।

* ইনফেকশনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে সাহায্য করে
যদিও শীতকালে আপনার কমন কোল্ড হওয়ার সম্ভাবনা বেশি, কিন্তু এই সময় আপনার ইমিউন সিস্টেম অধিক কার্যকরভাবে ইনফেকশনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে, ঠান্ডার সংস্পর্শে হিউম্যান ইমিউন সিস্টেম সক্রিয় হতে পারে এবং এটি ইনফেকশনের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য সামর্থ্য বৃদ্ধি করে, টাকার ব্যাখ্যা করেন।

* ত্বককে তারুণ্যদীপ্ত করতে পারে
পরিমিত ঠান্ডা তাপমাত্রা ত্বকের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো হতে পারে। কারণ, এটি রক্তনালীকে সংকুচিত করে। এর ফলে, রক্ত প্রবাহ কমে যাওয়ার কারণে ত্বকে লালতা ও ফোলা হওয়ার প্রবণতা কমে যায়, বলেন টাকার। এছাড়া শীতে তেল ও সিবাম কম নিঃসরণ হয়, তাই ব্রণ হওয়ার প্রবণতাও হ্রাস পায়।

* হার্টের স্বাস্থ্য উন্নত করতে পারে
প্রকৃতপক্ষে, ঠান্ডা আবহাওয়া আপনার হার্টের কিছু উপকার করতে পারে, যখন আপনি বাইরে ব্যায়াম করেন। ঠান্ডা আবহাওয়া ব্যায়ামকে চ্যালেঞ্জিং অ্যাক্টিভিটি করে তোলে এবং আপনার হার্ট অধিক অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত সরবরাহ করে- এটি শুধু অ্যাক্টিভিটিকে সাপোর্ট দেয় না, এটি আপনার শরীরে ভারসাম্যপূর্ণ উষ্ণ তাপমাত্রা বজায় রাখতে এবং তাপমাত্রা কমে যাওয়া জনিত ঝুঁকি এড়াতেও সাহায্য করে। টাকার বলেন, ‘শীতকালে ব্যায়াম চর্চা হার্টের মাংসপেশীকে শক্তিশালী করে।’ কিন্তু আপনার হৃদরোগ থাকলে বাইরে ঠান্ডা আবহাওয়ায় ব্যায়াম করার সময় সতর্কতা অবলম্বন করা উচিৎ।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৯ ডিসেম্বর ২০১৮/ফিরোজ

   
 


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

তৃতীয় লিঙ্গের নাদিরা এমপি হতে চান

২০১৯-০১-১৭ ১০:১৯:১১ পিএম

লোকালয়ে বাঘ, মাইকিং করে সতর্ক

২০১৯-০১-১৭ ৯:২৫:১৫ পিএম

আপেল যে কারণে ফ্রিজে রাখবেন

২০১৯-০১-১৭ ৯:১৭:৪৫ পিএম

দুই ‘জিনের বাদশা’ গ্রেপ্তার

২০১৯-০১-১৭ ৯:০৩:৩১ পিএম

রংপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত

২০১৯-০১-১৭ ৮:৫৬:০৬ পিএম

রান পেতে আত্মবিশ্বাসী আরিফুল

২০১৯-০১-১৭ ৮:৪০:২৩ পিএম