রূপপুর: একক উৎস থেকে জ্বালানি সংগ্রহ করা হবে

প্রকাশ: ২০১৯-০৪-২৭ ৮:০০:৩৪ পিএম
কেএমএ হাসনাত | রাইজিংবিডি.কম

কেএমএ হাসনাত: দেশের বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে সরকার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশ পরমানু শক্তি কমিশন (বিএইসি)। প্রকল্পের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। এরই মধ্যে প্রকল্পে ব্যবহৃত নিউক্লিয়ার ফুয়েল সংগ্রহের উদ্যোগ নিয়েছে প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা। একক উৎস থেকে এই জ্বালানি সংগ্রহ করা হবে।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে ব্যবহৃত সব জ্বালানি (নিউক্লিয়ার ফুয়েল) তথা ইউরেনিয়াম রাশান ফেডারেশন নির্ধারিত টিভিএল জয়েন্ট স্টক কোম্পানি থেকে আমদানি করবে সরকার। সরাসরি ক্রয়পদ্ধতিতে এসব জ্বালানি আনার জন্য বাংলাদেশ পরমাণু কমিশন ও রাশান ফেডারেশনের সঙ্গে চুক্তি করতে সম্প্রতি নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশ সরকার ও রাশান ফেডারেশন সরকারের মধ্যে ২০১১ সালের ২ নভেম্বর রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের বিষয়ে স্বাক্ষরিত ইন্টার গভার্মেন্টাল অ্যাগ্রিমেন্ট (আইজিএ) অনুসারে এ বিদ্যুৎকেন্দ্রের নিউক্লিয়ার প্রযুক্তি সরবরাহকারী দেশ রাশান ফেডারেশন কর্তৃক বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিচালনার পুরো লাইফ টাইমে নিউক্লিয়ার ফুয়েল সরবরাহ করার বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত আছে।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রটি দুটি ধাপে নির্মাণ হচ্ছে। প্রাথমিক পর্যায়ের নির্মাণ কার্যাদি ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে শেষ হয়েছে। এর আগে ৩০ নভেম্বর বিদ্যুৎকেন্দ্রের ১ম ইউনিট এবং ২০১৮ সালের ১৪ জুলাই ২য় ইউনিটের প্রথম কংক্রিট ঢালাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করেন। বর্তমানে রাশান ফেডারেশনের এএসসি এবং বিএইসি’র মধ্যে স্বাক্ষরিত জেনারেল কন্ট্রাক্ট অনুয়ায়ী বিদ্যুৎকেন্দ্রের মূল নির্মাণ কাজ পুরোদমে চলছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, নিউক্লিয়ার ফুয়েল সরবরাহ পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কর্মসূচির সবচেয়ে সংবেদনশীল ও স্পর্শকাতর অংশ। সে কারণে পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিচালনার ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ লাইফ টাইমের জন্য নিউক্লিয়ার ফুয়েল সরবরাহ নিশ্চিত করা একটি অত্যাবশ্যকীয় বিষয়। এছাড়া নিউক্লিয়ার ফুয়েল উৎপাদন, ক্রয়-বিক্রয় এবং পরিবহনের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক নিয়ম মানার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার (আইএইএ) কঠোর অনুশাসন অনুসরণে নিউক্লিয়ার ফুয়েল আমদানি ও পরিবহন করতে হয়। অন্যদিকে নিউক্লিয়ার ফুয়েল সাধারণত টেকনোলজি অর্থাৎ প্ল্যান্ট স্পেসিফিক হয়ে থাকে। সুনির্দিষ্ট উৎস ব্যতিরেকে আন্তর্জাতিক খোলা বাজারে এ ফুয়েল প্রাপ্তি অসম্ভব। এ বিবেচনায় বাংলাদেশ সরকার ও রাশান ফেডারেশন সরকারের মধ্যে স্বাক্ষরিত এজিএ’র আর্টিকেল ৮ দশমিক ১ উপ-অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রাশান ফেডারেশনের নির্ধারিত প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে পৃথক চুক্তির মাধ্যমে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের লাইফ টাইমের জন্য নিউক্লিয়ার ফুয়েল প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

টিভিইএল জয়েন্ট স্টক কোম্পানি রাশান সরকারের ফুয়েল ম্যানুফ্যাকচারিং/ফুয়েল সাপ্লায়ার সংশ্লিষ্ট একটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান। রাশান ফেডারেশন আইজিএ-এর আর্টিকেল ৮ দশমিক ১ পরিপালনের জন্য টিভিইএল জয়েন্ট স্টক কোম্পানিকে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের পুরো লাইফ টাইমের জন্য নিউক্লিয়ার ফুয়েল সরবরাহের জন্য নিয়োগ দিয়েছে। বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য যে, জেনারেল কন্ট্রাক্টের আওতায় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের ১ম লোড এবং পরবর্তী ২টি রিলোডের জন্য প্রয়োজনীয় নিউক্লিয়ার ফুয়েল টিভিইএল জয়েন্ট স্টক কোম্পানি থেকে রাশার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জেএসসি অ্যাটমস্ট্রয়েক্সপোরট সরবরাহ করবে। কাজেই আইজিএ এর শর্তানুসারে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের পুরো লাইফ টাইমের জন্য একক উৎস হিসেবে রাশান রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান টিভিইএল জয়েন্ট স্টক কোম্পানি থেকে নিউক্লিয়ার ফুয়েল আমদানি করতে হবে।

সূত্র জানায়, একটি ফ্রেমওয়ার্ক চুক্তির আওতায় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রটি স্থাপন করা হচ্ছে। এ কারণে প্রতি ইউনিট নিউক্লিয়ার ফুয়েল ক্রয়ের জন্য আন্তর্জাতিক যে মানদ- রয়েছে তা অনুসরণ করা হবে। আন্তর্জাতিক বাজারের ভিত্তিতেই এ ফুয়েল আমদানি করবে সরকার।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৭ এপ্রিল ২০১৯/হাসনাত/শাহনেওয়াজ

     


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

দেশের সংরক্ষিত বন ১৮ লাখ একর

২০১৯-০৬-১৭ ৯:৩৪:৫০ পিএম

সাকিবের ৬০০০

২০১৯-০৬-১৭ ৯:০৮:৩৩ পিএম

আবেদন পড়ে থাকে মাসব্যাপী!

২০১৯-০৬-১৭ ৮:১৬:৫৩ পিএম

যুবক হত্যায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

২০১৯-০৬-১৭ ৭:৫১:১৯ পিএম