৫ দিনব্যাপী ডিজিটাল আইসিটি মেলা উদ্বোধন

প্রকাশ: ২০১৮-০২-০৭ ২:৪২:৫৫ পিএম
মনিরুল হক ফিরোজ | রাইজিংবিডি.কম

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : বুধবার সকাল ১১টায় দেশের সর্ববৃহত্তম আইটি মার্কেট কম্পিউটার সিটি সেন্টারে ৫ দিনব্যাপী ‘ডিজিটাল আইসিটি ফেয়ার-২০১৮’ উদ্বোধন করা হয়েছে। মেলার উদ্বোধন করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

নবম বারের মতো আয়োজিত ডিজিটাল আইসিটি ফেয়ারের এবারের প্রতিপাদ্য বিষয়: ডিজিটাল লিটারেসি ফর এভরিওয়ান। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলা চলবে। মেলার সমাপনী আগামী ১১ ফেব্রুয়ারি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘দেশের কম্পিউটার বাজার অনেক বড় হয়েছে। দেশ পরিবর্তন হয়েছে। একটা সময় দেশে প্রযুক্তি পণ্য আসতে সময় লাগতো, এখন আর সময় লাগে না। মানুষ দ্রুত প্রযুক্তি পণ্যে হাতে পাচ্ছে। বর্হিবিশ্বের সঙ্গে তাল মিলেয়ে সর্বশেষ প্রযুক্তি পণ্যে এখন বাংলাদেশে পাওয়া যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘৫৬০ জিবিপিএস ইন্টারনেট বর্তমানে ব্যবহার করা হচ্ছে। আমাদের ইন্টারনেট রয়েছে ১৭০০ জিবিপিএস। আমরা ২০১৮ সালের মধ্যে দেশের সকল এলাকায় উচ্চ গতির ইন্টারনেট পৌঁছে দিতে চাই। আমরা কম্পিউটার আমদানিকারক দেশে থেকে উৎপাদনকারী দেশ হয়েছি। আশার কথা হলো, আমরা এই মাসেই নেপাল ও ভুটানে দেশের তৈরি কম্পিউটার রপ্তানি করবো।’

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন মুক্তিযুদ্ধকালীন ঢাকা জেলা কমান্ডার ও সাবেক সাংসদ এবং বৃহত্তর এলিফ্যান্ট রোড দোকান মালিক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা মোস্তফা মহসীন মন্টু। তিনি বলেন, ‘মোবাইলের মাধ্যমে হাতের মুঠোয় বিশ্বকে পাচ্ছি। মাঝি, রিকশাচালক, কৃষক সবাই এখন মোবাইল ব্যবহার করে তাদের প্রয়োজনীয় কাজ করতে পারছে। ইন্টারনেটের অপব্যবহার রোধ করতে হবে। ইন্টারনেটের যেমন ভালো ব্যবহার আছে তেমন এর অপব্যবহার রয়েছে। এই সেক্টরকে বিকাশমান করতে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন মেলার আহবায়ক ও কম্পিউটার সিটি সেন্টারের সভাপতি তৌফিক এহ্সোন। সভাপতির বক্তব্যে তৌফিক এহ্সোন বলেন, ‘বর্তমান সরকার তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে অগ্রাধিকার খাত হিসেবে ঘোষণা করেছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বাজেটে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে বরাদ্দ বেড়েছে দ্বিগুণের বেশি। এই বরাদ্দ গত বছরের তুলনায় ২ হাজার ১৩৯ কোট টাকা বেশি।  বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, চলমান ধারা অব্যাহত রাখা গেলে ২০১৮ সালে রফতানি ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং ২০২১ সালে রফতানি ৫ বিলিয়ন ডলারের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সম্ভব হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশের কাতারে যাওয়ার যে স্বপ্ন দেখছে তার জন্য ডিজিটাল লিটারেসির বিকল্প নেই। আধুনিক ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে এ মেলার গুরুত্ব অত্যাধিক। দেশের আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে এ ধরনের মেলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবিদ ও ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক এর উপাচার্য অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী, এফবিসিসিআই এর সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন), ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শাহে আলম মুরাদ, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি আলী আশফাক, বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির চেয়ারম্যান মো. হেলাল উদ্দিন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জসীম উদ্দিন আহমেদসহ বিশিষ্টজনেরা।

মেলার প্ল্যাটিনাম স্পন্সর এসার, ডেল, এইচপি, লজিটেক, এক্সট্রিম। গোল্ড স্পন্সর আসুস, এফোরটেক, লেনেভো। সিলভার স্পন্সর টিপি-লিংক, ডি-লিংক, ইউসিসি। স্পন্সর টেন্ডা এবং গেমিং পাটনার গিগাবাইট।

মেলায় বিশ্বের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি পণ্যসমূহ সুলভ মুল্যে পাওয়া যাবে। প্রযুক্তি পণ্যে রয়েছে মূল্যছাড় ও উপহার। মেলায় বিশেষ আয়োজন হিসেবে থাকছে- শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, গেমিং জোন এবং আকর্ষনীয় নানা আয়োজন। এছাড়াও মেলা চলাকালীন প্রবেশ টিকেটের ওপর র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হবে। মেলার প্রবেশ টিকেটের মূল্য রাখা হয়েছে দশ টাকা মাত্র। স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের জন্য মেলায় প্রবেশ উন্মুক্ত রাখা হয়েছে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮/ফিরোজ

   
 



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

রুবেলের ‘নষ্ট আমি’

২০১৮-০৮-১৮ ১:১৪:৪৭ পিএম

মওলানা আকরম খাঁ প্রয়াণের ৫০ বছর

২০১৮-০৮-১৮ ১:০৫:২৬ পিএম

অজ্ঞানপার্টির ৫৭ সদস্যসহ আটক ৭৯

২০১৮-০৮-১৮ ১২:৫৬:১০ পিএম

জমজমাট কোরবানির পশুর হাট

২০১৮-০৮-১৮ ১২:৫৩:০২ পিএম