স্বয়ংক্রিয় টয়লেট!

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-১০ ২:১৬:৪১ পিএম
মো. রায়হান কবির | রাইজিংবিডি.কম

মো. রায়হান কবির : কার্টুন ছবিতে অনেক কাল্পনিক বিষয় দেখানো হয়। যা সাইফাই বা বিজ্ঞানভিত্তিক কল্পকাহিনিকেও হার মানায়। কিন্তু বাস্তবে সেসব কাল্পনিক কার্টুনের চিন্তাধারাকে যখন প্রতিফলিত হতে দেখা যায়, তখন বিষয়গুলো ভাবায়।

অনেক আগের সাদাকালো টিভির জমানার কার্টুনগুলোতে এমন কিছু ডিভাইস দেখানো হতো যা মজাদার ছিল বটে কিন্তু অবাস্তব মনে হতো। সাম্প্রতিক প্রযুক্তির বিকাশে অনেক অসম্ভবই এখন সম্ভব। এই যেমন আপনি টয়লেটে গেলে কমোডের ঢাকনা আপনি থেকেই খুলে যাবে। আবার আপনি প্রয়োজন সেরে যখন চলে যাবেন তখন নিজ থেকেই বন্ধ হবে।

এ ধরনের স্বয়ংক্রিয় টয়লেট তৈরি করেছে টোটো কোম্পানি। চোখ ধাঁধানো ডিজাইনের ‘নিউরেস্ট এন এক্স’ মডেলের এই টয়লেটের আসল কারিশমা কিন্তু ভেতরে। এই টয়লেট ব্যবহার করলে আপনার হাতের ব্যবহারের দরকার নেই। ভেতরে স্বয়ংক্রিয় ভাবে পানি আপনাকে পরিস্কার হতে সহায়তা করবে। এছাড়া আপনি ভেজাও থাকবেন না, ভেতরে থাকা বাষ্পের ব্যবস্থা আপনাকে শুকনো রাখবে। একই সঙ্গে আপনি যে প্যানে বসবেন, সেটাও নিজ থেকে গরম হয়ে আপনাকে শুকাতে সাহায্য করবে।

আর সবচেয়ে বড় বিষয় এটা দুর্গন্ধকেও নিজ থেকে শুষে নেয়। ফলে আপনি যখন আপনার প্রয়োজনে টয়লেটে যাবেন, এবং প্রয়োজন শেষে ফিরে আসবেন কেউ আপনাকে দেখলে আঁচ করতে পারবে না। কেননা কোনো রকম পানির অস্তিত্ব ছাড়াই আপনি আপনার সকল প্রয়োজনীয় কাজ সেরে আসতে পারবেন। তবে এর জন্য আপনাকে খরচ করতে হবে মাত্র ১১০০০ ডলার! হ্যাঁ, বিশ্বব্যাপী সমাদৃত টোটো কোম্পানির টয়লেটগুলো এমনিতেই আকর্ষণীয়, তার ওপর নিউরেস্ট এন এক্স এসেছে আধুনিক সব সুবিধা নিয়ে। আজকাল প্রায় সব কিছুতে ডিজিটাল ছোঁয়া, তবে সবচেয়ে প্রয়োজনীয় জায়গাটি কেন অবহেলিত থাকবে? এখানেও লাগলো প্রযুক্তির ছোঁয়া।
 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১০ মার্চ ২০১৮/ফিরোজ

   
 



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

শিশু বিল পাস

২০১৮-১০-২২ ৯:১২:৩০ পিএম

সিরিজ জিততে চট্টগ্রামে বাংলাদেশ

২০১৮-১০-২২ ৭:৩৩:৩৫ পিএম