অ্যাপলকে ছাড়িয়ে যাবে অ্যামাজন!

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-১০ ৪:৩৬:৩৬ পিএম
মোখলেছুর রহমান | রাইজিংবিডি.কম

মোখলেছুর রহমান : বিশ্বের সবচেয়ে দামি পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি অ্যাপল ইনকর্পোরেটেড। কিন্তু বর্তমানে কোম্পানিটি মূলধনের দিক থেকে তার শীর্ষস্থান হারানোর হুমকিতে পড়েছে। কারণ বাজার বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন, অ্যাপলকে ছাড়িয়ে অ্যামাজন ইনকর্পোরেটেড প্রথমবারের মতো ১ ট্রিলিয়ন ডলারের মাইলস্টোন স্পর্শ করতে যাচ্ছে।

ওয়াল স্ট্রিট গত বছর আইফোনের ১০ বছর পূর্তিতে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, গত ১২ মাসের তুলনায় এ বছর অ্যাপলের স্টক ২৪% বাড়বে। এতে করে অ্যাপলের মোট মূলধনের পরিমাণ দাঁড়াবে ৮৯৩ বিলিয়ন ডলার। এই সংখ্যা ৭৫২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যমানের বিশ্বের তৃতীয় দামি পাবলিক তালিকাভুক্ত কোম্পানি অ্যামাজনের চেয়ে ১৪১ বিলিয়ন ডলার বেশি।

কিন্তু অ্যামাজনের মূলধন ওয়াল স্ট্রিট এর বাজার বিশ্লেষকদের ধারণার চেয়েও দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে গ্যাপ পূরণ করে এখন বরং অ্যাপলকে টপকে যাচ্ছে অ্যামাজন।

অ্যামাজনের স্টক গত বছরের তুলনায় ৮৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, যা দ্রুতগতিতে দ্রুত রাজস্ব বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গেই বেড়েছে। অ্যামাজনে শপিং প্রক্রিয়াও বেড়েছে। এছাড়াও অ্যামাজনের ওয়েব সার্ভিসের বাজারও বেড়েছে।

জানুয়ারিতে, অ্যামাজন ঘোষণা দেয় যে, বার্কশায়ার হাটওয়ে ইনকর্পোরেটেড এবং জেপি মরগান চেজ অ্যান্ড কোং তাদের কর্মচারীদের জন্য স্বাস্থ্যসেবা খরচ কমানোর জন্য একটি কোম্পানি গঠন করবে। এটিকে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থার জন্য হুমকি হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছিল এবং বাজারে ব্যাঘাত ঘটানোর জন্য অ্যামাজন এর ক্ষমতা সম্পর্কে নীতিবাচক ধারণা তৈরি হয়েছিল।

কিন্তু ওই রেশ কাটিয়ে অ্যামাজন ফেব্রুয়ারি মাসে বাজার মূলধন এর ক্ষেত্রে মাইক্রোসফট কর্পোরেশনকে ছাড়িয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৩ নম্বর কোম্পানি হিসেবে জায়গা করে নেয়।

৭৮৩ বিলিয়ন ডলার মূলধন নিয়ে এক্ষেত্রে অ্যালফাবেট ইনকর্পোরেটেড দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। গুগলের এই প্যারেন্ট কোম্পানিটির শেয়ার গত বছরের তুলনায় ৩৩ শতাংশ বেড়েছে। এই বৃদ্ধির হার অ্যাপেলের তুলনায় দ্রুততর হলেও অ্যামাজনের তুলনায় অনেক ধীরগতির।

যদি অ্যামাজন এর স্টক বৃদ্ধির হার গত বছরের মতোই অব্যাহত থাকে তাহলে কোম্পানিটির বাজার মূলধন আগস্ট মাসের শেষ দিকে ১ ট্রিলিয়ন ডলারে পৌঁছাবে। একই সময়ে স্টক মূল্য ক্রমাগত বাড়তে থাকলে অ্যাপল ১ ট্রিলিয়ন ডলারে পৌঁছাতে এক সপ্তাহ বেশি লাগবে। আর গত বছরের মতোই স্টক মূল্য বাড়তে থাকলে ২০১৯ সালের আগে অ্যালফাবেট ইনকর্পোরেটেড ১ ট্রিলিয়ন ডলারে পৌঁছাতে পারবে না।

বেশিরভাগ ওয়াল স্ট্রিট বিশ্লেষক অ্যাপল এবং অ্যামাজনের শেয়ার বৃদ্ধির ব্যাপারে যথেষ্ট আশাবাদী নয়। বিশ্লেষকরা আশা করছেন, অ্যাপল এর স্টক মূল্য ভবিষ্যতে ১১ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে এবং পরবর্তী ১২ মাসের মধ্যে তা ১৯৫ ডলারে পৌঁছাবে। তাতে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়াবে ৯৮৯ বিলিয়ন ডলার।

অন্যদিকে অ্যামাজন বিশ্লেষকরা আশা করছেন, আগামী বছরের মধ্যে কোম্পানিটির স্টক ১০ শতাংশ বেড়ে ১,৭০০ মার্কিন ডলারে পৌঁছাবে, যাতে করে এর বাজার মূল্য দাঁড়াবে ৮২৩ বিলিয়ন ডলার।

গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অ্যাপলের বাজার মূল্য ০.৬০ শতাংশ বেড়ে ১৭৬.০৫ ডলারে দাঁড়িয়েছে, আর অ্যামাজনের ০.৩১ শতাংশ বেড়ে ১,৫৪৯.৯০ ডলারে দাঁড়িয়েছে।

তথ্যসূত্র: গ্যাজেটস নাউ




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১০ মার্চ ২০১৮/ফিরোজ

   
 



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন নেইমার

২০১৮-০৭-২০ ১০:৩১:৩৬ পিএম

ফখর অপরাজিত ২১০, জিম্বাবুয়ে ১৫৫!

২০১৮-০৭-২০ ৯:১৯:১৬ পিএম

শেষ ম্যাচে যুবাদের বড় জয়

২০১৮-০৭-২০ ৭:৫১:৪১ পিএম

৫ দিনের সফরে ভারত যাচ্ছেন এরশাদ

২০১৮-০৭-২০ ৬:৫৫:৩৮ পিএম