যেসব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এড়িয়ে গেলেন জাকারবার্গ

প্রকাশ: ২০১৮-০৪-১০ ২:১১:৪৮ পিএম
নিয়ন রহমান | রাইজিংবিডি.কম

নিয়ন রহমান : ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ, ১১ এপ্রিল মার্কিন কংগ্রেসের এক বিশেষ কমিটির কাছে পেশ করার জন্য এক বিবৃতি (goo.gl/pbHyTC) প্রস্তুত করেছেন। যেটা ৯ এপ্রিল ইতোমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে। পূর্বের অন্যান্য প্রেস কনফারেন্সে ও বিভিন্ন মাধ্যমে দেয়া বক্তব্যের সঙ্গে এই বিবৃতি একইভাবে সামঞ্জ্যস্যতাপূর্ণ।

আজ, সিনেট বিচার বিভাগের কাছে দেয়া বিবৃতিতেও একই সামঞ্জস্যতা পরিলক্ষিত করা যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এই বিবৃতিতে বেশ কিছু সমস্যা রয়েছে বলে কংগ্রেসের বিভিন্ন এক্সপার্টরা জানান। ইতোমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের বিষয়টি নিয়ে ফেসবুক প্রচণ্ডভাবে সমালোচনার স্বীকার হচ্ছে। বিশেষ করে এই কারিগরি দুর্বলতার ও অস্বচ্ছতার কথাটি স্বীকার করে নিতেই যেখানে ফেসবুক দীর্ঘ দিন সময় নিয়ে নিয়েছে। 

কংগ্রেসের বিভিন্ন এক্সপার্টরা জানান, মার্ক জাকারবার্গের প্রস্তুত করা এই বিবৃতিতে বেশ কিছু অসামঞ্জস্যতা রয়েছে যেটা পরবর্তীতে আরো জোরালো ভাবে তদন্তের দাবী রাখে। আজকে ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী ব্যক্তিগতভাবে সিনেট মেম্বারদের সঙ্গে মিটিং করছেন।

জাকারবার্গের বিবৃতিতে অস্পষ্ট যেসব বিষয় আগামীকাল মার্কিন কংগ্রেসের সামনে খোলাসা করার জন্য তাকে বলা হতে পারে-

* ব্যক্তিগত তথ্যাদির গোপনীয়তা নিয়ে সমস্যা
জাকারবার্গের বিবৃতি শুধুমাত্র ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা নামের সেই ফেসবুক অ্যাপকে ভিত্তি করে যেটার মাধ্যমে ৮৭ মিলিয়ন মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে রাজনৈতিক ভাবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ ভাবে প্রভাব বিস্তার করা হয়েছে। কিন্তু শুধুমাত্র এই একটি ফেসবুক অ্যাপ্লিকেশনই নয়, এমন হাজার হাজার প্রতিষ্ঠান চাইলেই এখনো এমন ব্যক্তিগত তথ্য ব্যবহার করতে পারে।

কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান এবং নির্দিষ্ট কোনো কোনো অ্যাপ্লিকেশনের কাছে এমন ব্যক্তিগত তথ্য কাজে লাগানোর সুযোগ রয়েছে। কংগ্রেস মেম্বার রাজ গোয়েল ইতোমধ্যেই বলেছেন, ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা নামক অ্যাপ্লিকেশনের ঘটনা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়।

* ফেসবুকের প্রচুর পরিমাণে মুনাফা এবং স্বৈরাচারী মনোভাব
ফেসবুক ব্যবহারকারির সংখ্যা প্রায় দুই বিলিয়নেরও উপরে। ফেসবুকের এই সম্প্রসারণ এবং এর একচেটিয়া ক্ষমতা কল্পনারও বাইরে। জবাবদিহিতার স্বল্পতা নিয়ে ইতোমধ্যেই অনেকে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। ওপেন মার্কেট এক্সপার্ট ম্যাট স্ট্রোলার বলেছেন, ‘উনার বিবৃতিতে অনেক কিছুই উল্লেখ নেই। গত অর্থ বছরে ফেসবুকের ৪০ বিলিয়ন ডলার আয় এবং তার একচেটিয়া ও স্বৈরাচারী মনোভাবের ব্যাপারে কিছুই নেই এই বিবৃতিতে। এই একচেটিয়া ক্ষমতা কারো একক হাতে থাকা যে এক ধরনের সমস্যা এটা নিয়ে উনি কিছুই বলতে চান না।’

* নতুন নেতৃত্বের প্রয়োজনীয়তা
গত সপ্তাহের প্রেস কনফারেন্সে মার্ক জাকারবার্গ বেশ কিছু প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছিলেন, যেমন তিনি এই কোম্পানিকে নেতৃত্ব দেয়ার মতো সঠিক মানুষ কি না। অন্য আরেকজন সাংবাদিক প্রশ্ন করেছেন ফেসবুক কর্তৃপক্ষ কি তাকে সরিয়ে অন্য কাউকে বসানোর ব্যাপারে এই মুহূর্তে চিন্তা করছে কি না।

এমআইসি নামক একটি বিনিয়োগ গ্রুপের প্রধান মাইকেল কনর বলেন, ‘মার্ক জাকারবার্গের বিবৃতি থেকে পরিলক্ষিত করা যায় যে কত বড় কোম্পানি তিনি চালাচ্ছেন এবং এই কোম্পানির ক্ষমতা কি পরিমাণে সেটা তিনি নিজেই জানেন না। তিনি একই সঙ্গে দু দুটো অবস্থান দখল করে আছেন। এক, প্রধান নির্বাহী। দুই, চেয়ারম্যান। সময় এসেছে তার যে কোনো একটা অবস্থান ছেড়ে দেয়ার।’

* ব্যবসায়িক নীতিমালা পরিবর্তনের পরিকল্পনা
ফেসবুকের ব্যবসায়িক নীতিমালার জন্যই ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার তথ্য সংগ্রহ এবং প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ। এসব হয়েছে শুধুমাত্র ফেসবুকের নীতিমালা সঠিক প্রণয়ন না হওয়ার কারণে। কিন্তু মার্ক জাকারবার্গের বিবৃতিতে এই বিষয়ে সুস্পষ্ট কোনো কিছুর উল্লেখ নেই।

* ইউএস অথরিটিকে ফাঁকি দিয়েছে ফেসবুক
রাশিয়ান এজেন্টরা যেভাবে ফেক অ্যাকাউন্ট দিয়ে তথ্য পাচার করেছে এটা নাকি আরো আগেই ফেসবুকের কাছে রিপোর্ট এসেছিল। কিন্তু ফেসবুক প্রায় দুই বছর পর এটার স্বীকৃতি দেয়। যদিও জাকারবার্গ এখন পর্যন্ত এটা বলেননি যে, আর কোন কোন কোম্পানির কাছে এসব ব্যক্তিগত তথ্য মজুদ রয়েছে। যেটা ব্যক্তিগত তথ্যের গোপনীয়তা বিষয়ক আইন ভঙ্গ করে।

* ফেসবুকের স্বচ্ছতা ও পরবর্তী পদক্ষেপ
এই প্রথমবারের মতো আইন প্রণয়নকারীরা ফেসবুককে প্রশ্ন করছেন, ভবিষ্যতে এই ধরনের ঘটনা আবার যাতে না ঘটে এইজন্য ফেসবুক কি ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করছে? ফেসবুক কর্তৃপক্ষ থেকে শুধু বলা হয়েছে, তারা বিজ্ঞাপন দাতার লোকেশন ট্র্যাক করবে। কিন্তু সেই ব্যক্তির পরিচয় এবং বিজ্ঞাপনের উদ্দেশ্য কীভাবে ফেসবুক জানবে এই ধরনের কোনো কিছু এই বিবৃতিতে নেই।

* ফ্রান্সের নির্বাচনে ফেসবুকের ভূমিকা
ফ্রান্সের নির্বাচনে ফেসবুকের ভূমিকা নিয়েও এখন বেশ তোলপাড় চলছে। ফ্রান্স নির্বাচন উপলক্ষ্যে প্রায় ত্রিশ হাজার ভুয়া অ্যাকাউন্ট সরিয়ে ফেলেছিল ফেসবুক। কিন্তু যেখানে রাশিয়ার মাত্র ৪৭০টি ভুয়া অ্যাকাউন্ট সরানো হয়েছিল। ফেসবুকের ফ্রান্স এবং রাশিয়ার মধ্যে এই বৈষম্যের কারণ কি? এই ব্যাপারে ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গের বিবৃতিতে কিছুই পরিলক্ষিত করা যায়নি।

তথ্যসূত্র : কোয়ার্টজ

পড়ুন : ফেসবুকের এ দুর্দশা কেন?




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১০ এপ্রিল ২০১৮/ফিরোজ

   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

ফাইনালে আবাহনীর প্রতিপক্ষ মেরিনার

ফাইনালে আবাহনীর প্রতিপক্ষ মেরিনার

২০১৮-০৪-২১ ১০:৪০:০৮ পিএম
ক্লাব কাপ হকির ফাইনালে আবাহনী

ক্লাব কাপ হকির ফাইনালে আবাহনী

২০১৮-০৪-২১ ১০:৩০:৫৫ পিএম
প্রতিপক্ষের হামলায় ইউপি সদস্য নিহত

প্রতিপক্ষের হামলায় ইউপি সদস্য নিহত

২০১৮-০৪-২১ ১০:০৫:১৫ পিএম
বাণিজ্য-বিনিয়োগ সংযোগ বৃদ্ধিতে ৬ দফা এজেন্ডা
কমনওয়েলথ সম্মেলন

বাণিজ্য-বিনিয়োগ সংযোগ বৃদ্ধিতে ৬ দফা এজেন্ডা

২০১৮-০৪-২১ ৯:৫২:০০ পিএম