সুযোগের অপেক্ষায় আল-আমিন

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১৯ ১০:২১:১২ পিএম
আব্দুল্লাহ এম রুবেল | রাইজিংবিডি.কম

আবদুল্লাহ এম রুবেল : চোট আর পেস বোলার যেন মুদ্রার এপিঠ আর ওপিঠ। বাংলাদেশি বোলারদের ক্ষেত্রে এই সত্য যেন আরো বেশি কার্যকর। এই চোটের কারণেই বেশ কিছুদিন মাঠের বাইরে ছিলেন পেসার আল-আমিন হোসেন।

সর্বশেষ গত এপ্রিলে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে আঙুলে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন। এরপর পায়েও ব্যথা ছিল। এরপর থেকে অপেক্ষায় ছিলেন মাঠে ফেরার। খুলনায় অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরেছেন ডানহাতি এই পেসার।

চোটে পড়ার পর দমে যাননি আল-আমিন। চোট কাটিয়ে মাঠের লড়াইয়ে ফিরেছেন। লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন আবারো নিজের জায়গা ফিরে পেতে। বিসিবি তাকে এই সুযোগটা দিয়েছে হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) দলে জায়গা করে দিয়ে। এইচপি দলের হয়ে কঠোর পরিশ্রম করে আবারো জাতীয় দলে ফিরতে চান আল-আমিন। জানিয়েছেন, এখন অনেকটাই ফিট তিনি। পুরো ছন্দে বল করতে পারছেন।

 



চোট কাটিয়ে ওঠার পর এইচপি দলের হয়ে গত সোমবার খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে প্রথম মাঠে নেমে বোলিং করেন আল-আমিন। সেখানে তাকে অনেকটাই ফিট মনে হয়। আর আত্মবিশ্বাসী আল-আমিন জানিয়েছেন, এখন যে কোনো ম্যাচের জন্য নিজেকে ফিট মনে করছেন তিনি। খুলনায় এইচপি দলের হয়ে ম্যাচ খেলার ফাঁকে রাইজিংবিডির সঙ্গে একান্ত আলাপকালে এসব কথা বলেন ২৮ বছর বয়সি এই পেসার।

প্রথমেই বিসিবিকে ধন্যবাদ জানান আল-আমিন, ‘এইচপি দলের মতো একটি সুন্দর প্ল্যাটফর্ম পাওয়ায় আমার উন্নতি করা আরো সহজ হয়েছে। এখানে বোলিং, ফিল্ডিং এবং ফিটনেস তিন বিভাগেই ভালো উন্নতি করা যায়। আমার জন্য এটা ভালো একটা সুযোগ ছিল। সব মিলিয়ে ভালো যাচ্ছে আমার। ভালো একটা সেপে আছি।’

মাঠে উন্নতির প্রমাণও রেখেছেন তিনি। খুলনায় অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে ৮ ওভার বল করে ২৪ রান খরচায় ৩টি উইকেট নিয়েছেন। এই ম্যাচ থেকে অন্য কোনো পেস বোলার উইকেট পাননি। দ্বিতীয় ম্যাচেও ছন্দ ধরে রেখেছেন। দ্বিতীয় ম্যাচে ৮ ওভার বল করে নিয়েছেন ২ উইকেট।

 



নিজের উন্নতি নিয়ে আল-আমিন বলেন, ‘আমার মনে হয় আগের থেকে এখন আরো ভালো ছন্দে আছি। অনুশীলনে নতুন বলে বল করেছি, পুরোনো বলেও বল করেছি। ম্যাচেও ধারাবাহিকভাবে নতুন ও পুরোনো বলে বল করেছি। সেখানে ভালোভাবে সফলও হয়েছি। সবকিছু মিলিয়ে আমার জন্য ভালোই হচ্ছে। আশা করছি যেকোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচের জন্য প্রস্তুত আছি আমি।’

এত দ্রুত চোট থেকে ফিরে আসার রহস্য কী? আল-আমিন জানালেন, নিজে চেষ্টা করেছেন। আর এইচপি দলই তাকে এই সুযোগটা করে দিয়েছে। সেই সঙ্গে দলে  যোগ দেওয়া নতুন ট্রেইনার রিচার্ড স্টারনিয়ারও তাকে নিয়ে নিয়মিত কাজ করছেন। যেটা তাকে ফিটনেস ধরে রাখতে আরো সহায়তা করছে বলে জানান। নতুন ট্রেইনারের কাজ সবাই খুব উপভোগ করছেন বলেও জানালেন আল-আমিন, ‘ও আসলে সবকিছু উপভোগ করাচ্ছে। যেমন, রানিং করাচ্ছে, রানিংটা যাতে ব্যথার না হয়, রানিংয়ের ভিতর মজা দিয়ে রানিং করাচ্ছে, জিম করতেছি, নতুন নতুন কিছু আইটেম দেখাচ্ছে।’

আল-আমিন সর্বশেষ বাংলাদেশ দলের হয়ে খেলেছেন ২০১৬ সালের মার্চে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। কবে নাগাদ আবার নিজেকে জাতীয় দলে দেখতে চান- এমন প্রশ্নে আত্মবিশ্বাস ফুটে উঠল তার চোখে। ‘এখন আমি পুরো ছন্দে বোলিং করতে পারছি। এখন আমি সুযোগের অপেক্ষায় আছি। জাতীয় দল হোক বা দল হোক, আমি খুব শিগগির সেই সুযোগটা কাজে লাগিয়ে দলে জায়গা করে নিব’- বলেন আল-আমিন।



রাইজিংবিডি/খুলনা/১৯ জুলাই ২০১৮/আব্দুল্লাহ এম রুবেল/পরাগ

   
 



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

শিশু বিল পাস

২০১৮-১০-২২ ৯:১২:৩০ পিএম

সিরিজ জিততে চট্টগ্রামে বাংলাদেশ

২০১৮-১০-২২ ৭:৩৩:৩৫ পিএম