চাপমুক্ত ডি ভিলিয়ার্সের ওপর প্রত্যাশার চাপ

প্রকাশ: ২০১৯-০১-১৮ ১০:০৩:৫৫ পিএম
ইয়াসিন | রাইজিংবিডি.কম

ক্রীড়া প্রতিবেদক, সিলেট থেকে: চার বছর আগে আজকের দিনে এবি ডি ভিলিয়ার্স ক্রিকেট বিশ্বকে যে ব্যাটিং কারিশমা দেখিয়েছিলেন তা কি মনে আছে?

ক্যারিবীয় বোলারদের নাকের জল-চোখের জল এক করে ৪৪ বলে ১৬ ছক্কা ও ৯ চারে ১৪৯ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন মারকুটে ব্যাটসম্যান। ঘরের মাঠে খেলা ইনিংসটি ডি ভিলিয়ার্সের হৃদয়ে থাকবে চিরদিন। চার বছরে পাল্টেছে অনেক কিছু। কিন্তু ২২ গজে ডি ভিলিয়ার্সের দোর্দণ্ড প্রতাপ একটুও কমেনি। ব্যাট হাতে সেই ধার এখনও রয়েছে। সেই ব্যাটিং কারিশমা দেখাতে প্রোটিয়ান এ ক্রিকেটার এখন বাংলাদেশে।

সবকিছু ঠিক থাকলে শনিবারই বিপিএল অভিষেক হতে যাচ্ছে ডি ভিলিয়ার্সের। রংপুর রাইডার্সের জার্সিতে খেলবেন বিপিএলে। বাংলাদেশে ফিরে উচ্ছ্বসিত এ প্রোটিয়ান ক্রিকেটার বলেছেন,‘কিছুদিন আগে ক্রিকেটে ফিরেছি। দক্ষিণ আফ্রিকায় জানজি লিগে খেলেছি। বলতে পারেন নতুন মৌসুমে আমার খেলা শুরু হয়েছে। আমাকে ফিট এবং ব্যস্ত থাকতে হবে। বাংলাদেশে আসতে ভালোবাসি। অনেকদিন পর এখানে ফিরলাম। আমাদের রংপুর রাইডার্স দলটা বেশ ভালো। যদিও আমরা আমাদের মানের ক্রিকেট এখনও খেলতে পারিনি। আশা করছি আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পারব এবং ভালো করে টুর্নামেন্ট শেষ করতে পারব।’

ছয় ম্যাচে মাত্র দুটিতে জিতেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। শেষ ছয় ম্যাচে অন্তত চারটি ম্যাচ তাদের জিততেই হবে। পাশাপাশি প্রতিপক্ষের জয়-পরাজয়ের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে রংপুরকে। দলকে স্বরূপে ফেরানোর বড় দায়িত্ব নিতে হবে ডি ভিলিয়ার্সকে। তার ওপর অনেক প্রত্যাশার চাপ। সেই চাপ তাকে ভালো করতে অনুপ্রাণিত করছে বলে জানালেন।

‘পুরো ক্যারিয়ারে প্রত্যাশার চাপ নিয়ে খেলেছি। এটা আমার জন্য নতুন নয়। প্রত্যাশার চাপ অনুপ্রেরণা জোগায়। ক্রিকেট খেলায় আপ এবং ডাউন থাকে। আপনি সব ম্যাচে পারফর্ম করতে পারবেন না। আমি খেলাধুলা নিয়ে বাস্তবসম্মত চিন্তা করি। নিজের থেকে বেশি কিছুর প্রত্যাশা কখনোই করি না। তবে হ্যাঁ এটা ঠিক নিজের থেকে নতুন নতুন বিস্ফোরক কিছুর প্রত্যাশা করি।’- বলেছেন ডি ভিলিয়ার্স।

প্রত্যাশা চাপ পূরণে কঠিন পথ পাড়ি দিতে হবে ডি ভিলিয়ার্সকে। বিপিএলের ম্যাচগুলো যে উইকেটে হচ্ছে সেখানে রানের ফোয়ারা নেই। রান পেতে ব্যাটসম্যানদের কঠোর পরিশ্রম করতে হচ্ছে। মন্থর উইকেটে বল উচুঁ-নিচু হচ্ছে। টার্ন হচ্ছে বেশ। এমন উইকেটেও আপত্তি নেই ৩৪ বছর বয়সি ক্রিকেটারের।

‘উইকেট নিয়ে তেমন কিছু করার নেই। উইকেট সব সময়ই ভালো থাকে। এখানে আপনি টার্ন পাবেন। টার্ন পেলেও আমার কোনো আপত্তি নেই।  টার্ন হয় এমন উইকেটে খেলতে উপভোগ করি। অবশ্য এ ধরণের উইকেটে বেশি ব্যাটসম্যানই ভোগে। সিলেটে আমাদের শেষ ম্যাচটি দেখেছি। উইকেট ভালো ব্যবহার করেছে। আশা করছি তেমন উইকেটই পাব।’

২৬১ টি-টোয়েন্টিতে ৬৯৩১ রান করেছেন প্রোটিয়া ক্রিকেটার। বিপিএলে তার অংশগ্রহণ নিশ্চিতভাবেই ভিন্ন আবহ তৈরি করছে। দেখার বিষয় রংপুর ও দর্শকের চাওয়া কতোটুকু পূরণ করতে পারেন টি-টোয়েন্টি ফেরি করে বেড়ানো এ ক্রিকেটার।

 

 

 

 

রাইজিংবিডি/সিলেট/১৮ জানুয়ারি ২০১৯/ইয়াসিন/আমিনুল

   


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

দেশের বাজারে মটোরোলার জি-৭ পাওয়ার

২০১৯-০৪-২৪ ১০:২০:৪৪ পিএম

‘শূন্য থেকে’ শুরু করতে চান তামিম

২০১৯-০৪-২৪ ৯:৫০:০৯ পিএম