অস্ট্রেলিয়ার রেকর্ড ভেঙে ইংল্যান্ডের নতুন কীর্তি

প্রকাশ: ২০১৯-০৬-০৮ ৭:৫২:২৯ পিএম
ইয়াসিন | রাইজিংবিডি.কম

কার্ডিফ থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক : টানা সাত ওয়ানডেতে তিন’শ এর বেশি রান তুলে নতুন রেকর্ড গড়ল ইংল্যান্ড।

ওয়ানডে ক্রিকেটে দিনকে দিন ভয়ংকর হয়ে উঠছে ইংল্যান্ড।  বিশেষ করে তাদের ব্যাটসম্যানরা সীমিত পরিসরে বোলারদের ঘুম হারাম করে ছাড়ছেন।  জেসন রয়, জনি বেয়ারস্টো, ইউয়ন মরগ্যান, জস বাটলার ও বেন স্টোকসরা ২২ গজে বানিয়েছেন ব্যাটিং স্বর্গ।  মাঠ, প্রতিপক্ষ কিংবা কন্ডিশন কোনটাই তাদের পথে বাঁধা হতে পারছে না।  তাইতো শেষ সাত ওয়ানডের প্রত্যেকটিতে তাদের দলীয় রান তিন’শ ছাড়িয়েছে। 

ইনিংসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একই গতিতে রান তুলছেন তারা। শুরুতে টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান ব্যর্থ হলেও মিডল অর্ডার তা পুষিয়ে দিচ্ছেন। আবার মিডল অর্ডার ব্যর্থ হলে লেট অর্ডাররা করছেন লড়াই।  মোদ্দাকথা রঙিন পোশাকে তাদের ব্যাটসম্যানরা হয়ে উঠেছেন অনবদ্য, অনন্য। 

শনিবার সোফিয়া গার্ডেনে বাংলাদেশের বিপক্ষে ইংল্যান্ড তুলেছে ৬ উইকেটে ৩৮৬ রান।   জেসন রয়ের ১২১ বলে ১৫৩ ও জস বাটলারের ৪৪ বলে ৬৪ রানের ঝড়ে রানের পাহাড়ে উঠেছে স্বাগতিকরা।

তাদের রান উৎসবের শুরুটা হয়েছিল চলতি বছরের ১১ মে। পাকিস্তানের বিপক্ষে সাউদাম্পটনে ৩৭৩ তুলেছিল মরগানরা। ওই ম্যাচের পর পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের পরের তিনটিতে ইংল্যান্ডে রান ৩৫৯, ৩৪১ ও ৩৫১। বিশ্বকাপেও স্বাগতিকরা ধরে রাখেন নিজেদের ফর্ম। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওভালে উদ্বোধনী ম্যাচে ৩১১ রানের পর পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে নটিংহ্যামে করেন ৩৩৪ রান। আজ বাংলাদেশের বিপক্ষে তাদের রান ৩৮৬।

টানা সাত ওয়ানডেতে তিনশর বেশি রান তুলে ইংল্যান্ড গড়েছে রেকর্ড। এর আগে অস্ট্রেলিয়া টানা ছয় ওয়ানডেতে তুলেছিল তিন’শ এর বেশি রান। ২০০৭ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি অকল্যান্ডে ৩৩৬ রানের পর পরের পাঁচ ওয়ানডেতে তাদের রান ৩৪৬, ৩৩৪, ৩৫৮, ৩৭৭ ও ৩২২।  ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার পর পাঁচবার করে ওয়ানডে ক্রিকেটে তিন’শ এর বেশি রান তুলেছে শ্রীলঙ্কা ও ভারত।



রাইজিংবিডি/কার্ডিফ/৮ জুন ২০১৯/ইয়াসিন/আমিনুল

     


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

দেশের সংরক্ষিত বন ১৮ লাখ একর

২০১৯-০৬-১৭ ৯:৩৪:৫০ পিএম

সাকিবের ৬০০০

২০১৯-০৬-১৭ ৯:০৮:৩৩ পিএম

আবেদন পড়ে থাকে মাসব্যাপী!

২০১৯-০৬-১৭ ৮:১৬:৫৩ পিএম

যুবক হত্যায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

২০১৯-০৬-১৭ ৭:৫১:১৯ পিএম