এবার প্রত্যাশা পূরণের চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশের

প্রকাশ: ২০১৯-০৬-০৯ ৫:৩১:৫৫ পিএম
ইয়াসিন | রাইজিংবিডি.কম

কার্ডিফ থেকে ইয়াসিন হাসান : ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে যেতে হলে বাংলাদেশের জিততে হবে আরো চারটি ম্যাচ। বিশ্বকাপের তিন ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ জিতেছে মাত্র একটি। হেরেছে দুটিতে। শেষ ছয় ম্যাচে চারটি জিতলে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলবে। কাজটা কঠিন হলেও অসম্ভব নয়।  সেই লড়াই শুরু হচ্ছে পরবর্তী ম্যাচ থেকেই।

যে দলগুলোর বিপক্ষে সামনে বাংলাদেশের খেলা তাদেরকে নিকট অতীতে একাধিকবার হারিয়েছে, জিতেছে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ কিংবা ত্রিদেশীয় সিরিজ। তাই জয়ের প্রত্যাশা তো রয়েছেই। সাথে নিজেদের ফেবারিট ভাবতেও দ্বিধা বোধ করার কথা না মাশরাফির দলের। বিস্টলে বাংলাদেশের পরবর্তী ম্যাচ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। এ ম্যাচ দিয়ে প্রত্যাশা পূরণের চ্যালেঞ্জ শুরু হবে বাংলাদেশের।

সেমিফাইনালের লক্ষ্য নিয়ে বাংলাদেশ এবার ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে মাঠে নেমেছে। যেই ছক কষে বাংলাদেশ মিশন শুরু করেছে এখনও সেই পথেই আছে। বিশ্বকাপের প্রথম তিন ম্যাচে একটি জয়ের প্রত্যাশায় ছিল দল। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে উড়ন্ত সূচনার পর সবার প্রত্যাশা ছিল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আরেকটি জয়। সেই পথেই ছিল টাইগাররা। কিন্তু নিজেদের সামান্য ভুলে বড় খেসারত দেয় দল।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেলে বাংলাদেশের অবস্থা কেমন হতো তা মাশরাফির কথায় স্পষ্ট,‘ওই জয় পেলে ধরেন পুরো দল অন্যরকম থাকত।  ঈদ লেগে যাইতো।  দক্ষিণ আফ্রিকার পর নিউজিল্যান্ড।  এমন সূচনা তো আমরা প্রত্যাশাও করিনি।  হয়ে গেলে তো হয়েই যেত।

ইংল্যান্ড যে বিধ্বংসী হয়ে উঠবে তা প্রত্যাশাই ছিল। তাদের বিপক্ষে জয়ের থেকে নাড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যই ছিল সবথেকে বেশি। পরিকল্পনা সফল হয়নি।  তাতে অবশ্য মনোবল হারাচ্ছে না মাশরাফি।  প্রথম তিন ম্যাচের অর্জন নিয়ে সামনে তাকিয়ে পুরো দল।



দুই হাফ সেঞ্চুরি ও এক সেঞ্চুরিতে সাকিব বিশ্বকাপে হয়ে উঠেছেন অনন্য।  তারও বিশ্বাস সেমিফাইনালের লড়াইয়ে টিকে আছে বাংলাদেশ। পরবর্তীতে ম্যাচগুলোতে সেরা ক্রিকেট খেললে শেষ চারে থাকবে বাংলাদেশ। এই টুর্নামেন্টে আমাদের সেমিফাইনালে যেতে হলে ৫-৬ টা ম্যাচ আমাদের জিততে হবে। প্রতিটা প্রতিপক্ষই এখানে শক্তিশালী। সবার বিপক্ষেই সেরাটা দিতে হবে’ – বলেছেন সাকিব।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৪৫ ম্যাচে বাংলাদেশ জিতেছে ৭টিতে। সবশেষ পাঁচ মুখোমুখিতে বাংলাদেশ জিতেছে ২টি, লঙ্কানরা ৩টিতে। শেষ ম্যাচে দুই দল খেলেছিল এশিয়া কাপের মঞ্চে। সেখানে বেশ দাপটের সঙ্গেই বাংলাদেশ জিতেছে।  সাকিবের মতে সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স শ্রীলঙ্কাকে হারাতে ভালো আত্মবিশ্বাস জোগাবে।

শ্রীলঙ্কার সঙ্গে জিততে চাইলে আমাদরে সেরা ক্রিকেটাই খেলতে হবে। তাদেরও ওইরকম ম্যাচ উইনার আছে। যেহেতু শেষ কিছু ম্যাচ আমরা ওদের বিপক্ষে জিতেছি। কিছুটা আত্মবিশ্বাস থাকবে। কিন্তু দিন শেষে এগুলো কেবল পরিসংখ্যান। এগুলো দিয়ে ম্যাচ জেতা যাবে না। ওই দিনটা কেমন করি, ‍ওই দিনটা গুরুত্বপূর্ণ হবে ‘ – যোগ করেন সাকিব।

শ্রীলঙ্কার পরপরই বাংলাদেশের ম্যাচ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। এরপর খেলবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।  শেষ তিন ম্যাচ এশিয়ার তিন দল আফগানিস্তান, ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে।  ছয় ম্যাচে চার জয়ের প্রত্যাশা বাড়াবাড়ি নয় মোটেও।  নিকট অতীতের পারফরম্যান্স বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাসের জ্বালানি। সেই শক্তিতেই বিশ্বমঞ্চে সেমিফাইনাল খেলতে চান মাশরাফি, সাকিব, মুশফিকরা।




রাইজিংবিডি/কার্ডিফ/৯ জুন ২০১৯/ইয়াসিন/পরাগ

     


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

দেশের সংরক্ষিত বন ১৮ লাখ একর

২০১৯-০৬-১৭ ৯:৩৪:৫০ পিএম

সাকিবের ৬০০০

২০১৯-০৬-১৭ ৯:০৮:৩৩ পিএম

আবেদন পড়ে থাকে মাসব্যাপী!

২০১৯-০৬-১৭ ৮:১৬:৫৩ পিএম

যুবক হত্যায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

২০১৯-০৬-১৭ ৭:৫১:১৯ পিএম