ঠিকাদারীতে ব্যতিক্রমী উদাহারণ স্থাপন ছাত্রলীগ নেতার

প্রকাশ: ২০১৯-১০-০৯ ৯:৪৫:১৯ পিএম
নিজস্ব প্রতিবেদক | রাইজিংবিডি.কম

ঠিকাদারী কাজে ব‌্যতিক্রম উদাহরণ স্থাপন করলেন প্রকল্পের ঠিকাদার ও ছাত্রলীগ নেতা আবু তৈয়ব।

কার্যাদেশ অনুযায়ী যথাযথভাবে এবং নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বেই প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করে অর্থ সাশ্রয়ের মাধ্যমে গণপূর্ত বিভাগকে সাড়ে চার কোটি টাকা ফেরত দিয়েছেন তিনি।

ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে নানা অপবাদের মধ্যেও এমন সততা ও কর্তব্যনিষ্ঠার ব্যতিক্রমী উদাহারণ সৃষ্টিকারী আবু তৈয়ব চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সদ্য বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের নির্বাচনী এলাকা রাঙ্গুনিয়ার বাসিন্দা।

চট্টগ্রামের বায়েজিদ থানাধীন সেনানিবাস গেইট সংলগ্ন বায়েজিদ সবুজ উদ্যান নির্মাণ প্রকল্পে আবু তৈয়ব ১২ কোটি ৭৪ লাখ টাকার প্রকল্পে যথাযথভাবে ৮ কোটি ২৩ লাখ টাকায় কাজ সম্পন্ন করেন। প্রকল্পে সাশ্রয় হওয়া অর্থ তিনি সংশ্লিষ্ট বিভাগকে ফেরত দিয়েছেন।

আবু তৈয়ব রাইজিংবিডিকে জানান, তিনি দীর্ঘদিন ধরে ঠিকাদারী কাজের সাথে সম্পৃক্ত। প্রতিটি কাজই তিনি যথাযথভাবে, সরকারি নিয়ম মেনে এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই করার চেষ্টা করেন। এর ধারাবাহিকতায় ‘বায়েজিদ সবুজ উদ্যান’ নির্মাণের জন্য তিনি যথাযথ প্রক্রিয়ায় ২০১৭ সালের এপ্রিলে কাজটি করার জন্য কার্যাদেশ পান। এই প্রকল্পে গণপূর্ত বিভাগের সর্বমোট বরাদ্দ ছিলো ১২ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। কার্যাদেশ পেয়েই কার্যাদেশের শর্ত ও শিডিউল অনুযায়ী নির্দিষ্ট মেয়াদের ৪ মাস আগে সেপ্টেম্বর মাসেই কাজটি সম্পন্ন করেন।

গতকাল মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) এই সবুজ উদ্যান প্রকল্পটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনও হয়ে গেছে।

আবু তৈয়ব জানান, নিজের মুনাফা রেখেও এই প্রকল্পে সরকারের চার কোটি ৫৪ লাখ টাকা সাশ্রয় করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। গণপূর্ত বিভাগের প্রকৌশলী এবং কর্মকর্তাদের আন্তরিক সহযোগিতা এবং নিজের কর্মদক্ষতা ও সততার কারণে এই অর্থ সাশ্রয় ও সরকারকে ফেরত দেয়া সম্ভব হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘প্রকল্পের অর্থ সাশ্রয় করে গণপূর্ত বিভাগকে অর্থ ফেরত দিয়ে ব্যতিক্রমী উদাহারণ সৃষ্টি করেছেন আবু তৈয়ব। যেখানে ঠিকাদাররা দফায় দফায় নানা অজুহাতে প্রকল্পের ব্যয় বৃদ্ধি করেন। ওয়ার্ক অর্ডার অনুযায়ী কাজ করেন না, সেখানে ছাত্রলীগ নেতা আবু তৈয়ব ব্যতিক্রমী নজির। আবু তৈয়বের এই সততা ও কর্তব্যনিষ্ঠা প্রশংসার দাবি রাখে।’

উল্লেখ্য, বায়েজিদের সেনানিবাস এলাকায় ‘বায়েজিদ সবুজ উদ্যান’ প্রকল্পটিতে দুই একরের বিশাল এলাকা জুড়ে সবুজ উদ্যান তৈরি করা হয়েছে। সেখানে ৪১ প্রজাতির বৃক্ষরোপণ করে সবুজায়িত করার পাশাপাশি নাগরিকদের ভ্রমণ আর অবসর সময় কাটানোর নানা অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে। রয়েছে অসংখ্য বসার বেঞ্চ ও চার হাজার ফুটের ওয়াকওয়ে, শিশুদের রকমারি খেলনা, আলোক সজ্জা, পানির ফোয়ারাসহ দৃষ্টিনন্দন নানা কিছু।


চট্টগ্রাম/রেজাউল/সনি


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

বিশ্বের প্রথম চুলের ব্যাংক!

২০১৯-১০-২৩ ১০:২৭:৫৬ পিএম

বাংলা টিউন অ্যাপে নতুন ফিচার

২০১৯-১০-২৩ ১০:১২:২৭ পিএম

বিশ্বজুড়ে এখন বিক্ষোভের সময়

২০১৯-১০-২৩ ৯:২৫:২৬ পিএম
এসএম নজরুল ইসলাম স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্ট

টাইব্রেকারে সখীপুরের জয়

২০১৯-১০-২৩ ৯:০৬:১৩ পিএম