উপকূলের ৪০টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র নতুন সাজে

প্রকাশ: ২০২০-০১-২০ ৯:৩৬:১১ এএম
কক্সবাজার প্রতিনিধি | রাইজিংবিডি.কম

কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলার উপকূলীয় এলাকার ৪০টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র এখন নতুন সাজে।

জীর্ণ ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে পড়া এই আশ্রয়কেন্দ্রগুলোর নতুন অবয়ব দিয়েছে জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচী (ডব্লিউএফপি) সংস্থা। আশ্রয়কেন্দ্রগুলোকে পুনঃ সংস্কার করে সরকারের কাছে রোববার আনুষ্ঠানিক হস্তান্তরও করেছে সংস্থাটি।

টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের উত্তর শিলখালী এলাকায় আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এসব আশ্রয়কেন্দ্রগুলো হস্তান্তর করা হয়। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহজাহান আলী।

এসময় বক্তব্য রাখেন, ডব্লিউএফপি কক্সবাজারের ইমার্জেন্সি কো-অর্ডিনেটর পিটার গেস্ট ও ইউএসএআইডি এর ইউএস ফরেন ডিসাসটার অফিসার রিচেল গালাগার সহ সরকারি-বেসরকারি প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

পিটার গেস্ট বলেন, ‘পুনঃ সংস্কার করা আশ্রয়কেন্দ্রগুলোকে সক্ষম-বান্ধব অর্থাৎ ঘূর্ণিঝড় ও বন্যার সময় ব্যবহারের আরো সক্ষমতা বাড়াতে উপযোগী করা হয়েছে। সংস্কার করা ৩০ টি আশ্রয়কেন্দ্রে সংযুক্ত করা হয়েছে বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য সৌর প্যানেল, পানি ও স্যানিটেশন সুবিধা।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহজাহান আলী বলেন, ‘পুনঃ সংস্কার করা আশ্রয়কেন্দ্রগুলো দুর্যোগকালীন সময়ের পাশাপাশি বেশিরভাগ সময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং অন্যান্য সামাজিক কাজেও ব্যবহার করা সম্ভব হবে।’

ডব্লিউএফপি’র একটি প্রোজেক্ট এর আওতায় প্রথম পর্যায়ের কাজের অংশ হিসেবে এই ৪০টি আশ্রয়কেন্দ্র সংস্কার করা হয়েছে। অংশীদার হিসেবে ছিল ইউএসএআইডি ও এফডিএ সহ স্থানীয় কয়েকটি এনজিও।

সংস্কারকৃত ৪০ টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রে দুর্যোগকালীন পরিস্থিতিতে ৩৬ হাজারের বেশি মানুষ আশ্রয় নিতে পারবে বলে জানান ডব্লিউএফপি’র সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

 

সুজাউদ্দিন/টিপু

     



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

পিলখানা হত্যা

রায়ের কপি সংগ্রহে লাগবে ৯ লাখ টাকা!

২০২০-০২-২৫ ১২:৩৪:৩৮ এএম

অবশেষে টনক নড়ল বিসিবির

২০২০-০২-২৫ ১২:১৩:৫২ এএম