ইএফডি নিয়ে জরুরি বৈঠক ডেকেছে এনবিআর

প্রকাশ: ২০২০-০২-১৮ ৮:২৮:০৭ এএম
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক | রাইজিংবিডি.কম

ইলেক্ট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস (ইএফডি)। ভ্যাট আদায় ও ফাঁকি রোধে অত্যাধুনিক যন্ত্র।

এটির যাত্রা শুরু হওয়ার কথা ছিল চলতি বছরের শুরুতে। নানা জটিলতায় যাত্রা কেবল বিলম্ব হচ্ছে।

সেই কারণ খুঁজতে জরুরি বৈঠক ডেকেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিমের সভাপতিত্বে ওই বৈঠক আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে।

বুধবার সাড়ে ১১টায় এনবিআর সম্মেলন কক্ষে সংস্থাটির চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে ইএফডি বিষয়ে সভায় বোর্ড প্রশাসন, মূসক নীতি, মসক নিরীক্ষা ও গোয়েন্দা, মূসক বাস্তবায়ন ও আইটি, ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের পরিচালকসহ ইএফডি প্রজেক্টের সকল আইটি কর্মকর্তাদের উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

মূসক-তথ্য প্রযুক্তি ও পরিকল্পনা বিভাগের দ্বিতীয় সচিব নির্ঝর আহমেদের সই করা নোটিশ সূত্রে বিষয়টি জানা গেছে।

এ বিষয়ে এনবিআরে ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা রাইজিংবিডিকে বলেন, ইএফডির প্রথম চালান দেশে এসেছে। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে বিভিন্ন দোকানে স্থাপন করার কথা ওই ডিভাইস। কিন্তু নানা আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় এখনো এর বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি। মূলত সর্বশেষ অগ্রগতি ও কিভাবে দ্রুত সময়ে মধ্যে ব্যবসায়ীদের হাতে ওই ডিভাইস পৌঁছানো যায় সে বিষয়ে মূলত এ বৈঠক।

ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসতে যাওয়া এ ডিভাইস সরাসরি যুক্ত থাকবে ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের সঙ্গে। যার মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের বিক্রয়ে সার্বিক তথ্যসহ যথাযথ ভ্যাট আদায় সম্ভব হবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

এ বিষয়ে এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ইএফডি মেশিন স্থাপন করা হলে ভ্যাটে একটা নিয়মশৃঙ্খলা আসবে। ব্যবসায়ের গতি আরো বৃদ্ধি পাবে। রাজস্ব আদায়ের হারও বৃদ্ধি পাবে।

এনবিআর বলছে, প্রথম দফায় দেশে ১০ হাজার ইএফডি বসানো হবে। চীনের একটি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশের সিনেসিস আইটির সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করছে। ২৪ ধরনের প্রতিষ্ঠান পাবে এই ইএফডি।

যার মধ্যে আবাসিক হোটেল, রেস্তোরাঁ ও ফাস্টফুড, ডেকোরেটরস ও ক্যাটারার্স, মোটরগাড়ির গ্যারেজ-ওয়ার্কশপ এবং ডকইয়ার্ড, বিজ্ঞাপনী সংস্থা, ছাপাখানা ও বাঁধাই সংস্থা, কমিউনিটি সেন্টার, মিষ্টান্ন ভাণ্ডার, স্বর্ণকার-রৌপ্যকার ও স্বর্ণ পাইকারি, আসবাবপত্র বিক্রয়কেন্দ্র, কুরিয়ার ও এক্সপ্রেস মেইল সার্ভিস, বিউটি পার্লার, হেলথ ক্লাব ও ফিটনেস সেন্টার, কোচিং সেন্টার, সামাজিক ও খেলাধুলা বিষয়ক ক্লাব, তৈরি পোশাক বিপণন, ইলেকট্রনিক ও ইলেকট্রিক্যাল গৃহস্থালি সামগ্রীর বিক্রয়কেন্দ্র, শপিং সেন্টার, ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, জেনারেল স্টোর/সুপারশপ, বড় ও মাঝারি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান, যান্ত্রিক লন্ড্রি, সিনেমা হল ও সিকিউরিটি সার্ভিস।

মূলত আগে যারা ইলেকট্রনিক ক্যাশ রেজিস্ট্রার (ইসিআর) ব্যবহার করতেন তাদের ইএফডি ব্যবহার বাধ্যতামূলক।



ঢাকা/এম এ রহমান/জেনিস


     



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

২৯ বছর আগে এক মঞ্চে যমজ ভ্রাতৃদ্বয়

২০২০-০৪-০৫ ২:২০:২৪ পিএম