স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে বেচাকেনা

প্রকাশ: ২০২০-০৫-২১ ৮:১৫:২৩ পিএম
হাসিবুল ইসলাম | রাইজিংবিডি.কম

ঈদের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি।  করোনার প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মার্কেট ও শপিংমল খোলা রেখে বেচাকেনা করছেন ব্যবসায়ীরা।

বৃহস্পতিবার (২১ মে)  রাজধানীর অ্যালিফেন্ট রোডের  পোশাকের শোরুম, আজিজ সুপার মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে ক্রেতাদের ভিড়।  করোনাকে উপেক্ষা করে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে ক্রেতাদের সমাগমও। সবাই যে যার মতো ব্যস্ত কেনাকাটায়। 

অ্যালিফেন্ট রোডের পোশাকের শোরুম প্লাস পয়েন্টে ঘুরে দেখা গেছে, শোরুমের প্রধান প্রবেশ পথে একজন কর্মী দাঁড়িয়ে রয়েছেন।  তিনি শোরুমে ৫ জনের বেশি ঢুকতে দিচ্ছেন না।  যে ৫ জন ক্রেতা প্রবেশ করছেন কেনাকাটার জন্য তাদের কেনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত কাউকেই প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। করোনাভাইরাসের প্রভাবেই এই পদক্ষেপ নিয়েছেন বলে জানায় প্লাস পয়েন্ট কর্তৃপক্ষ।

প্লাস পয়েন্ট শোরুমের ম্যানেজার মোহাম্মদ মাহাদী হোসেন রাইজিংবিডিকে বলেন, করোনার কারণে রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেট বন্ধ রয়েছে।  ঈদের কথা চিন্তা করে আমাদের মালিকপক্ষ এই এলাকার শোরুম খোলা রেখেছে।  তবে আমাদের কঠোরভাবে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যেন সবাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পণ্য বিক্রি করি।  ক্রেতারাও যেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কেনাকাটা করতে পারেন সেটা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের শরুমের দুজন কর্মীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ক্রেতারা যেন মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস পরে প্রবেশ করেন। শোরুমের নিজস্ব উদ্যোগে জীবাণুনাশক স্প্রে রাখা হয়েছে ক্রেতাদের জন্য।  যেন তারা শোরুমে প্রবেশের সময় এই স্প্রে দিয়ে জীবাণুমুক্ত হতে পারে।

প্লাস পয়েন্টের শোরুমের বাইরে ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।  ক্রেতা কাওসার মাহামুদ বলেন, প্রতিটি শোরুমে ৫ জন বা সাত জনের বেশি ক্রেতা শোরুমে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।  তাই বাইরে ভিড়। 

তিনি বলেন, শোরুমের পক্ষ থেকে বার বার বলা হচ্ছে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে, কিন্তু অনেকেই এই নিয়ম মানছেন না।  ধাক্কাধাক্কি করে শোরুমের মধ্যে আগে ঢুকতে চাচ্ছেন, যা ঝুঁকিপূর্ণ।

স্টাইলডোর শোরুমে গিয়ে দেখা গেছে, প্রত্যেক কর্মী পিপিই, মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস, মাথায় টুপি পরে বিক্রি করছেন।  কথা হয় এই শোরুমের কর্মী মোহাম্মদ রাসেলের সঙ্গে।  তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, করোনার কারণে এখন আমরা সবাই খুব ঝুঁকির মধ্যে আছি।

তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন, আমরা যেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা করি।  আমরা সরকারের নিয়ম মেনেই ব্যবসা করতে চাই।

অ্যালিফেন্ট রোড এলাকায় দায়িত্ত্বে থাকা পুলিশ কর্মকর্তা ইউসুফ হোসেন রাইজিংবিডিকে বলেন, এখানকার অধিকাংশ মার্কেট ও শোরুম বন্ধ রয়েছে। তবে ঈদ বলে কিছু কিছু শোরুম খোলা রেখেছে ব্যবসায়ীরা।  তবে আমাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে তারা যেন যথাযথভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা করে।  যদি স্বাস্থ্যবিধি না মানে ব্যবসায়ীরা তাহলে তাৎক্ষণিকভাবে আমরা সেই শোরুম বা দোকান বন্ধ করে দেবো।     


হাসিবুল/সাইফ


     



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

বিচিত্র দেশের গল্প (পর্ব-১)

২০২০-০৫-২৯ ৮:০৭:০৭ এএম