কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিতে 'ফুড ফর নেশন'

প্রকাশ: ২০২০-০৫-২৩ ৯:৫৪:১২ পিএম
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক | রাইজিংবিডি.কম

দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে উৎপাদিত কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে এবং সবাইকে সংযুক্ত করে ফুড ইমারজেন্সি সাপ্লাইচেইন অব্যাহত রাখতে যাত্রা শুরু করলো 'ফুড ফর ন্যাশন'।

শনিবার (২৩ মে) বিকেলে কৃষিপণ্যের এ ডিজিটাল ওপেন প্ল্যাটফর্মটি উদ্বোধন করেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

এসময় কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, মহামারি করোনার কারণে শাকসবজি, মৌসুমি ফলসহ কৃষিপণ্যের স্বাভাবিক পরিবহন এবং সঠিক বিপণন ব্যাহত হচ্ছে। কৃষকেরা তাদের উৎপাদিত কৃষিপণ্য সময়মতো বিক্রি করতে পারছে না, আবার বিক্রি করে অনেক ক্ষেত্রে ন্যায্যমূল্যও পাচ্ছে না। বর্তমানে কৃষিপণ্যের বাজারজাত করা সবচেয়ে বড় সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে।

তিনি বলেন, এ অবস্থায় প্রান্তিক কৃষকেরা যাতে ন্যায্যমূল্য পেতে পারে এবং সেই সঙ্গে ভোক্তারা যাতে তাদের চাহিদা মোতাবেক সহজে, স্বল্প সময়ে এবং সঠিক মূল্যে প্রয়োজনীয় খাদ্যশস্য ও কৃষিপণ্য পেতে পারে সে লক্ষে ‘ফুড ফর ন্যাশন’ প্ল্যাটফর্মটি চালু করা হয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, সারা দেশের খাদ্য ও কৃষিপণ্য ব্যবস্থাপনায় যে নতুন চ্যালেঞ্জ আমাদের সামনে রয়েছে তা মোকাবেলায় এ উন্মুক্ত প্ল্যাটফর্মটি খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। বাংলাদেশে উৎপাদিত শাকসবজি, মৌসুমি ফলসহ কৃষিপণ্যের একটা বিরাট অংশ বিপণনের অভাবে প্রতিবছর অপচয় ও নষ্ট হয়। এ প্ল্যাটফর্মটি যথাযথভাবে কাজ করলে কৃষিপণ্যের অপচয়রোধেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব নাসিরুজ্জামান, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব, আইডিয়া প্রকল্পের পরিচালক সৈয়দ মজিবুল হক, এটুআই পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী, ই-ক্যাব প্রেসিডেন্ট শমী কায়সার প্রমুখ এ ডিজিটাল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন।

কৃষিপণ্যের উৎপাদনকারী, পরিবেশক, ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে ফুড ফর নেশনকে একটি ‘ডিজিটাল-সেতু’ উল্লেখ করে এ সময় জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, এটি উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করবে। একইসঙ্গে কৃষির যান্ত্রিকীকরণ, বাণিজ্যিকীকরণ ও পরিবহনের ডিজিটাল রূপান্তরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

তিনি জানান, দেশের ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে যেকোনো ইউনিয়ন থেকে কেউ তার উৎপাদিত পণ্য বিক্রয় করতে চাইলে বিক্রি করতে পারবে। বর্তমানে ১ লাখ ১৫ হাজার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী/ মুদিখানা এবং ১২ হাজার ফার্মেসি এ প্লাটফর্মের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। নিরাপদ পণ্য পৌঁছে দেওয়ার জন্য সংযুক্ত রয়েছে ১২ হাজার স্বেচ্ছাসেবী।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশের প্রথম উম্মুক্ত কৃষি বিপণন প্লাটফর্ম হিসেবে foodfornation.gov.bd প্লাটফর্মটি কৃষি ভ্যালুচেইনের সব অংশীজনকে এক ছাতার নিচে নিয়ে এসেছে। এটুআই-এর একশপ প্ল্যাটফর্ম এর মাধ্যমে ফুড ফর ন্যাশন প্ল্যাটফর্মটির সহায়তায় সংশ্লিষ্ট খাদ্যশস্য ও কৃষিপণ্যের কেনাবেচার জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ইতোমধ্যে ই-কমার্স অ্যাগ্রিগেটর অ্যাগ্রিগেটর 'একশপ' সেবা প্ল্যাটফর্মে ৫ হাজারের বেশি ডিজিটাল সার্ভিস ডেলিভারি সেন্টার সংযুক্ত রয়েছে। অদূরভবিষ্যতে 'এক পে' প্লাটফর্মের সঙ্গে যুক্ত হবে। বড় সুপার শপগুলো যেমন মীনা বাজার ইতোমধ্যেই এ প্লাটফর্মের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে।


ঢাকা/আসাদ/হাসান/এসএম


     




আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

করোনার টিকা প্রথম পাচ্ছে ব্রাজিল

২০২০-০৬-০৪ ১০:১৭:২৭ পিএম

বগুড়ায় বজ্রপাতে ৪ কৃষকের মৃত‌্যু

২০২০-০৬-০৪ ৯:৫৩:৪৩ পিএম