মৃত্যুর পরেও লাল!

প্রকাশ: ২০১৯-১১-০৭ ৮:২০:৩৪ এএম
শাহিদুল ইসলাম | রাইজিংবিডি.কম

জোরিকা রোবার্নিক। উত্তর বসনিয়ার ব্রিজ শহরের বাসিন্দা এই নারী কোনো তারকা বা রাজনীতিক নন। তারপরও সেখানকার অধিকাংশ মানুষ তাকে একনামে চেনেন। কারণ তার লাল রং আসক্তি।

গত চার দশক ধরে শুধু এই একটি রঙের কাপড় পরছেন তিনি। শুধু লাল রঙের কাপড় নয়, জোরিকার বাড়ি, বাড়ির আসবাবপত্র থেকে শুরু করে খাবার বাসন-কোসন পর্যন্ত সবই লাল। এছাড়া তাকে কেউ উপহার দিলে উপহার সামগ্রির রং যদি লাল না হয় তবে সেটা যত দামি হোক না কেন জোরিকা গ্রহণ করেন না। অর্থাৎ লাল রঙের প্রতি তার তীব্র আকর্ষণ! এ কারণে তিনি ব্রিজ শহরতো বটেই, উত্তর বসনিয়ার পরিচিত মুখ।

জোরিকার লাল রঙের প্রতি আসক্তি শুরু হয় যখন তিনি অষ্টাদশী তরুণী। বিয়েতে তার স্বামী জোরান তাকে একটি লাল রঙের ভারতীয় গাউন উপহার দিয়েছিলেন- সেই থেকে শুরু। এরপর কেটে গেছে চল্লিশ বছর। কিন্তু লাল রঙের প্রতি তার আসক্তি এক বিন্দু কমেনি। বরং আরও বেড়েছে।

জোরিকা মৃত্যুর পর তাকে লাল রঙের কাপড়ে মুড়ে কবর দিতে বলেছেন। তার সমাধিও যেন লাল রঙের হয়, এজন্য তিনি মৃত্যুর আগে লাল রঙের সমাধি তৈরি করে রেখেছেন।

বর্তমানে অবসর জীবনযাপন করছেন সাবেক স্কুল শিক্ষিকা জোরিকা। রয়টার্সকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, লাল রং আমাকে আত্মবিশ্বাসী করে। মানুষের কাছে আমি এই রঙের জন্যই পরিচিত। তবে একটি সমস্যা রয়েছে। আমি যত নতুন কাপড়ই পরি না কেন আমার স্বামী বুঝতে পারে না। কারণ সব কাপড়ের রঙই যে এক!


ঢাকা/মারুফ/তারা


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

টিভিতে আজকের খেলা

২০১৯-১১-১৬ ২:২১:৪৪ এএম

সুরের মূর্ছনায় হেমন্তের রজনী

২০১৯-১১-১৬ ১:১৮:৫৭ এএম