ঈদের আনন্দ বিলীন ৮ হাজার ডেঙ্গু রোগীর

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-১২ ৮:২০:৫১ পিএম
আরিফ সাওন | রাইজিংবিডি.কম

ফাইল ফটো

আরিফ সাওন :  উজ্জ্বল (৩৫) পেশায় একজন গার্মেন্টস ব্যবসায়ী। তার বাড়ি শরিয়রপুরের জাজিরা থানার হাজি অছিম উদ্দিন গ্রামে। পরিবারে স্ত্রী আর দুই ছেলে। বড় ছেলের বয়স ৮ বছর আর ছোট ছেলের বয়স ২ বছর।

উজ্জ্বল পরিবারের সাথে ঈদ করার জন্য ঈদের আগে শরিয়তপুরে গ্রামের বাড়িতে যান। কিন্তু গ্রামে স্বজনদের সাথে তার আর ঈদ করা হলো না। ফের তাকে রাজধানীতে ফিরতে হয় ডেঙ্গু জ্বরের কারনে। ঈদের ঠিক আগের দিন তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় জাজিরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা তাকে ঢাকায় আনার পরামর্শ দেন।

রোববার বিকেল থেকে তিনি শুয়ে আছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে। ঈদের আনন্দ যে উজ্জ্বলের একারই মাটি হয়েছে তা নয়, তার সঙ্গে থাকা স্বজনদের ঈদও নিরানন্দেই কেটেছে।

উজ্জ্বলকে হাসপাতালে নিয়ে এসেছেন তার স্ত্রীর ভাই, উজ্জ্বলের বাবা ও ভাগ্নে। সোমবার সকালে বিএসএমএমইউতে কথা হয় উজ্জ্বলের শ্যালক রাজু আহমেদের সাথে। তিনি জানান, ছয়দিন আগে উজ্জ্বল জ্বরে আক্রান্ত হন। এরপর তিনি হালকা জ্বর নিয়ে গ্রামের বাড়িতে যান। বাড়ি যাওয়ার পর খুব বেশি বমি আর পাতলা পায়খানা শুরু হয়। এরপর তাকে জাজিরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসকদের পরামর্শ মত তাকে ঢাকায় আনা হয়েছে।

শুধু উজ্জ্বল নন, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে ঈদ কাটিয়েছেন ৮ হাজার ৬ জন রোগী। এদের সঙ্গে স্বজনদের সংখ্যা যোগ করলে ঈদ আনন্দ বিলীন মানুষের তালিকা অনেক দীর্ঘই হবে।

রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালে গিয়ে কথা হয় যুগান্তরের জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রাশেদ রাব্বির সঙ্গে। তার ছেলে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে সেখানে চিকিৎসাধীন। ছেলেকে নিয়ে খুব দু:চিন্তায় আছেন তিনি। যেখানে ঈদে এই ফুটফুটে শিশুটির হাসি আনন্দে ঘর ভরে থাকার কথা সেখানে সে চুপচাপ শুয়ে আছে হাসপাতালের বিছানায়।

এদিকে রোববার সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘন্টায় সারাদেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ২ হাজার ৯৩ জন। যার মধ্যে ঢাকায় ৮৪২ জন এবং ঢাকার বাইরে ১ হাজার ২৫১ জন।

শুধু রোগী আর তাদের স্বজনই নয়, ডেঙ্গু জ্বরের কারণে অনেক চিকিৎসক ও নার্সের ঈদ কেটেছে রোগীদের সেবা করে। ঈদের দিন সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় রোগীর সেবায় নিয়োজিত রয়েছেন সিনিয়র স্টাফ নার্স ও স্বাধীনতা নার্সেস পরিষদের (স্বানাপ) নেতা মো. ইকবাল হোসেন সবুজ ও মো. মাজহারুল ইসলামসহ আরো অনেকে।

মাজহারুল ইসলাম বলেন, ঈদে রোগীদের সাথে কাটাতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। সেই সাথে আমার সহকর্মীদের ধন্যবাদ জানাই। বাংলাদেশে যখন ঈদুল আযহার আনন্দ পরিবার-পরিজনের সাথে ভাগাভাগি চলছে, তখন রোগীদের পাশে থেকে তাদের সেবা করা এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

এছাড়া ডেঙ্গুর কারণে জনপ্রতিনিধি ও স্বাস্থ্য বিভাগের সংশ্লিষ্টদের ঈদ আনন্দ অনেকটা বিলীন হয়েছে। সবাই পরিস্থিত মোকাবেলায় আন্তরিকভাবে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে ঈদের দিন দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্তদের দেখতে আসেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।


রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ জুলাই ২০১৯/সাওন/নবীন হোসেন


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

ইলিশ বাঁচাতে নদীতে পুলিশ

২০১৯-১০-১৮ ১০:৫৬:২৪ এএম

ড্রাগন ফল কতটা স্বাস্থ্যকর?

২০১৯-১০-১৮ ৯:০৬:২৯ এএম

দেয়ালচিত্রে আবরারের কথা

২০১৯-১০-১৮ ৮:৩৯:২৫ এএম

পাঁচ বছর বয়সেই মা

২০১৯-১০-১৮ ৮:২১:৫৭ এএম