অস্ত্রোপচার পরবর্তী সংক্রমণ প্রতিরোধে সতর্ক থাকার আহ্বান

প্রকাশ: ২০১৯-১০-২৪ ৪:৫৭:৫৬ পিএম
নিজস্ব প্রতিবেদক | রাইজিংবিডি.কম

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) অস্ত্রোপচার পরবর্তী বিভিন্ন ধরনের সংক্রমণ বিষয়ে ‘কন্টিনিউ মেডিক্যাল এডুকেশন (সিএমই)’ প্রোগ্রাম হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় অবস অ‌্যান্ড গাইনি বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত সিএমই প্রোগ্রামে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএসএমএমইউর উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।

বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম। সভাপতিত্ব করেন অবস অ‌্যান্ড গাইনি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. তৃপ্তি রাণী দাস।

প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অবস অ‌্যান্ড গাইনি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. কানিফ ফাতেমা ও সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজদ।

ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া শরীরে অস্ত্রোপচারের স্থানে সংক্রমণ প্রতিরোধ ও সুচিকিৎসার মাধ্যমে নিরাময়ের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় চিকিৎসক, নার্সসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান তিনি।

উপাচার্য আরো বলেন, বিদ্যা মুখস্ত করলেই চলবে না, তা প্রয়োগ করতে হবে। প্রায়োগিক শক্তি ও জ্ঞান অর্জনের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। হাইজেনিক বা স্বাস্থ্যসম্মতভাবে অপারেশনস্থলে উপস্থিত হতে হবে। হাইজেনিক এনভায়রনমেন্ট নিশ্চিত করতে হবে। অত্যন্ত সতর্কতার সাথে নিজের অর্জিত জ্ঞান প্রয়োগের মাধ্যমে সংক্রমিত স্থান সারিয়ে তোলার মাধ্যমে রোগীকে সুস্থ করতে হবে।

তিনি বলেন, অবস অ‌্যান্ড গাইনির সিজারসহ যেকোনো ধরনের অপারেশন করার আগে পূর্ব প্রস্তুতি, অপারেশন চলাকালীন প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি ও সতর্কতা অবলম্বন এবং অর্জিত জ্ঞান কাজে লাগিয়ে যথাযথ পদ্ধতির প্রয়োগ ও ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ৯০ ভাগ সংক্রমণই প্রতিরোধ করা সম্ভব।

সভাপতির বক্তব্যে অবস অ‌্যান্ড গাইনি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. তৃপ্তি রাণী দাস বলেন, পরিবশেগত কারণে, রোগীর নিজের শরীরের নানা সমস্যার কারণে, ভিজিটরদের কারণে রোগী সংক্রমণের শিকার হয়ে থাকেন। এটা রোগীদেরকে দীর্ঘদিন ভোগ করতে হয়। এটা মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সতকর্তা অবলম্বনসহ পূর্ব প্রস্তুতির বিকল্প নেই।

সিএমই প্রোগ্রামে অস্ত্রোপচার পরবর্তী সংক্রমণের বিভিন্ন কারণ ও বিষয় নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়। এর পাশপাশি অস্ত্রোপচারস্থল সংক্রমিত হলে কীভাবে রোগীকে সুস্থ করা যায় সে বিষয়ে পর্যাপ্ত জ্ঞান অর্জন ও প্রায়োগিক দক্ষতা বৃদ্ধির ওপর জোর দেয়া হয়।

সিএমই প্রোগ্রামে অবস অ‌্যান্ড গাইনি বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষক, আবাসিক চিকিৎসক-ছাত্রছাত্রীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


ঢাকা/সাওন/রফিক


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

৫৮ পদক নিয়ে পঞ্চম স্থানে বাংলাদেশ

২০১৯-১২-০৬ ১২:৫২:২৮ এএম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চোলাই মদসহ আটক ৮

২০১৯-১২-০৬ ১২:২৭:২৪ এএম

নাটোরে টমেটোর ঝুড়িতে ফেন্সিডিল

২০১৯-১২-০৬ ১২:০৬:২৪ এএম

প্রেমের কারণে বন্ধুকে খুন!

২০১৯-১২-০৫ ১০:৩১:২৭ পিএম

তুই কি আমার হবি রে?

২০১৯-১২-০৫ ১০:০৯:১৭ পিএম