‘ক্যালিফোর্নিয়া হবে পরের নিউইয়র্ক, আর নিউইয়র্ক পরের ইতালি’

প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৭ ৯:২৬:০৯ এএম
আন্তর্জাতিক ডেস্ক | রাইজিংবিডি.কম

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের হিসেবে ইতালি ও চীনকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র। ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলস শহরের মেয়র এরিক গারসেত্তি আরো ভয়াবহ পরিস্থিতির আশঙ্কা প্রকাশ করলেন। করোনায় যুক্তরাষ্ট্রের পরিণতি দিনকে দিন খারাপের দিকে যাবে মনে করছেন তিনি।

গারসেত্তির মতে, ক্যালিফোর্নিয়া হতে যাচ্ছে পরের নিউইয়র্ক এবং নিউইয়র্ক হবে পরের ইতালি। তিনি বলেছেন, ‘একইভাবে এখন নিউইয়র্ক হতে যাচ্ছে পরের ইতালি এবং ইতালি হবে পরের ইরান। আর ইরান হবে পরের চীন। আপনি কোথায় থাকেন, তা ব্যাপার নয়। আপনি হতে পারেন পরের শিকার। ভাইরাস মানে না আপনি কোথায় আছেন।’

গারসেত্তির শঙ্কা অযৌক্তিক নয়। কয়েক দিন আগেও ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছিল তিন থেকে চার দিনের ব্যবধানে। কিন্তু এখন তা দ্বিগুণ হচ্ছে মাত্র দুই দিনের ব্যবধানে। শহরের প্রত্যেক মানুষকে নিয়ে শঙ্কিত গারসেত্তি।

শহরের সাধারণ মানুষদের জন্য মাস্ক তৈরিতে এরই মধ্যে গার্মেন্টস ও পোশাক উত্পাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা দিয়েছেন গারসেত্তি। ৫০ লাখ মাস্ক উত্পাদন হবে জানান লস অ্যাঞ্জেলস মেয়র।

করোনা সংক্রমণ বিস্তারে সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় আছে যুক্তরাষ্ট্র, তারা ছাড়িয়ে গেছে ইতালিকে। দেশটিতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫ হাজারের বেশি। ইতালিতে সে সংখ‌্যা ৮০ হাজার ৫৮৯ জন।

বিশ্বের ১৯৯টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মারা গেছেন ২৪ হাজারের বেশি মানুষ। আক্রান্ত হয়েছেন সোয়া পাঁচ লাখের বেশি মানুষ। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন প্রায় সোয়া এক লাখ মানুষ।

 

ঢাকা/ফাহিম


     



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

‘কোচ হিসেবে পন্টিং ছিল জাদুকর’

২০২০-০৪-০৪ ৫:০৬:৪৩ পিএম