ঢাকায় নিরাপদ পরিবেশ তৈরির পদক্ষেপ নেব: ইশরাক

প্রকাশ: ২০১৯-১২-২৫ ৭:৪৫:৪৩ পিএম
আরিফ সাওন | রাইজিংবিডি.কম

ইশরাক হোসেন, সম্ভাব‌্য মেয়র প্রার্থী, ঢাকা সিটি দক্ষিণ (ছবি: রাইজিংবিডি)

বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকা। তিনি অবিভক্ত ঢাকার শেষ মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। শুধু রাজনৈতিক জীবনেই নন, একজন আদর্শ বাবা হিসেবে নিজ সন্তানদের দিয়েছেন সুশিক্ষা। এবারের ঢাকা দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী তারই সন্তান ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন। তিনি চান ঢাকাকে একটি বসবাসযোগ্য পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ে তুলতে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর গোপীবাগে নিজ বাসায় নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেন রাইজিংবিডির সাথে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন রাইজিংবিডির নিজস্ব প্রতিবেদক আরিফ সাওন

রাইজিংবিডি: আপনার ব্যক্তি জীবন সম্পর্কে জানতে চাই..

ইশরাক হোসেন: আমি একজন প্রকৌশলী। পড়াশোনা করেছি ঢাকার স্কলাস্টিকা স্কুলে। সেখানে আমি ও লেভেল এবং এ লেভেন সম্পন্ন করেছি ২০০৩ ও ২০০৫ সালে। এরপর পড়াশোনার জন্য যুক্তরাজ্যে চলে যাই। সেখানে ইউনিভার্সিটি অব হার্টফোর্ডশায়ারে আন্ডার গ্রাজুয়েশন ও মাস্টার্স সম্পন্ন করেছি মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে। ২০১১ সালে গ্র্যাজুয়েশন শেষে দেশে ফিরে আসি।

রাইজিংবিডি: রাজনীতিতে আসার কারণ কী?

ইশরাক: আমার জন্ম রাজনৈতিক পরিবারে। রাজনীতিতে আসার কারণ যদি বলতে হয় আমি বলব যে রাজনীতিতে নতুন করে আশার কিছু ছিল না। জন্মই হয়েছে রাজনীতির ভিতরে। আমি বেড়ে উঠেছি রাজনীতি দেখে এবং রাজনীতি অনুধাবন করে। আমার শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত রাজনীতি জীবনের অংশ হয়ে থাকবে। এর বাইরে আমি যেটা বলতে পারি যে, আমি আমার বাবার থেকে রাজনৈতিক আদর্শ শিক্ষা নিয়েছি। উনি জনগণের রাজনীতি করতেন। উনি মানুষের জন্য রাজনীতি করতেন। তিনি এলাকা নগরবাসী বা অন্য যেকোনো এলাকার মানুষের সমস্যা দুর্ভোগের পাশে দাঁড়ানোর সর্বাত্মক চেষ্টা করতেন। উনি দেশপ্রেম থেকে রাজনীতি করতেন। জনসেবা এবং দেশপ্রেম, আমি বলতে চাই জনসেবা এবং দেশপ্রেমের উদ্দেশ্যে রাজনীতিতে এসেছি।

রাইজিংবিডি: বিএনপি থেকে মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে কতটা আশাবাদী?

ইশরাক: আমি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী পরিবারের একজন সদস্য। আমি নিজেকে সেই জাতীয়তাবাদের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে মনে করি। আমি যেহেতু রাজনীতি করবো, আমাদের দলের যেহেতু সিনিয়র নেতৃবৃন্দ আছেন; দলের যারা হাইকমান্ডে আছেন তারা আমাকে সাহস যুগিয়েছেন। বিশেষ করে আমার বাবার মৃত্যুর পর ওনারা আমার অভিভাবকের ভূমিকা পালন করেছেন। আমি যেহেতু রাজনীতি করতে ইচ্ছুক সেহেতু ওনারা আমাকে একটা সুযোগ দিতে চাচ্ছেন। আমার রাজনৈতিক প্রজ্ঞা প্রমাণ করার জন্য এবং আমার রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা অর্জন করার জন্য দল আমাকে আরো কয়েক মাস আগে প্রস্তুতি নিতে বলেছে ঢাকা সিটি নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য। আমি আশাবাদী দল আমাকে মনোনয়ন দেবে। দলও একটি নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে বিএনপি আমাকে মনোনয়ন দেবে বলে আমি আশাবাদী।

রাইজিংবিডি: কেমন হবে ইশরাকের স্বপ্নের ঢাকা?

ইশরাক: বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত নগরীর তালিকা প্রায় এক নম্বরে থাকে এবং ১ থেকে ৫ এর মধ্যে থাকা নগরীর একটি ঢাকা। বায়ুদূষণের দিক থেকেও কিছুদিন আগে আমরা এক নম্বরে ছিলাম এবং ১ থেকে ১০ এর মধ্যে রয়েছে সব থেকে দূষিত নগরী হিসেবে। আমার জন্ম ও বেড়ে উঠা ঢাকায়। তখনকার ঢাকা আর এখনকার ঢাকার মধ্যে তফাৎ দেখতে পাই। হ্যাঁ, কিছু কিছু এলাকায় নতুন কিছু রাস্তা হয়েছে। কিছু নতুন বিল্ডিং হয়েছে। সার্বিকভাবে ঢাকা কিন্তু একটি অনুন্নত বা অবাসযোগ্য নগরীর দিক থেকে আরো খারাপ থাকে খারাপ হয়েছে। আমরা আজকে যে ঢাকা দেখছি এই ঢাকা আমাদের কাম্য ছিল না। অনেকে মনে করেন যে ঢাকা একটি বিশ্বমানের নগরী হিসেবে গড়ে উঠবে- তা হয়তো অনেক দূরের স্বপ্ন। কিন্তু বর্তমানে একটি বসবাসযোগ্য নগরী হিসেবে গড়তে যা করণীয় আমি মেয়র নির্বাচিত হলে সেই পদক্ষেপ নেব। এটার বিস্তারিত আমার ইশতেহারে উঠে আসবে। আমি বলতে পারি যে আমাদের ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা, ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট, বর্জ‌্য ব্যবস্থাপনা, আমাদের এখন যে দূষিত নগরী হিসেবে পরিচিত হয়েছে সেখান থেকে বের হয়ে এসে নিরাপদ পরিবেশে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম গড়ে ওঠে সেই বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে চাচ্ছি। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে আমাদের সমন্বয়হীনতার অভাব। আপনারা জানেন ঢাকায় বিভিন্ন সেবাদানকারী সংস্থা কাজ করে যাচ্ছে। শুনেছি এখন ৫০ টির অধিক সংস্থা রয়েছে। সবগুলোকে একত্রিত করে একটি নগর সরকার করার দরকার বলে আমি মনে করি। আমার ইস্তেহারে এই বিষয়গুলো তুলে আনব।

রাইজিংবিডি: আপনার বাবা (সাদেক হোসেন খোকা) অবিভক্ত ঢাকার মেয়র ছিলেন। সুনামের সাথে নিজের দায়িত্ব পালন করে গেছেন। বাবার এমন কোনো অসমাপ্ত স্বপ্ন আছে- যা আপনাকে বাস্তবায়নের নির্দেশনা দিয়ে গেছেন?

ইশরাক: ঢাকাকে নিয়ে বাবার অনেক স্বপ্ন ছিল। বিএনপি সরকারের সময় উনি সর্বোচ্চ কাজ করতে পেরেছেন। পরবর্তীতে আরো দুটি সরকারের সময় মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। সেখানে সহযোগিতার অভাব ছিল বলে আমি জানতে পেরেছিলাম। ওনার অনেক অসমাপ্ত কাজ রয়েছে। এর মধ্যে একটি বা দুটি কথা এখানে বিশেষভাবে বলা সম্ভব না। তবে আমি এটুকু বলতে পারি আমার বাবা মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ করে অর্জিত এই রাজধানী ঢাকাকে যেভাবে দেখেছিলেন, সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়নি। ঢাকাকে বসবাসযোগ্য নগরী গড়ে তোলার জন্য, বাবার রেখে যাওয়া অসমাপ্ত কাজগুলো আমি পূরণ করবো।

রাইজিংবিডি: আপনার বাবার কোন বিষয়গুলো বেশি অনুপ্রাণিত করে?

ইশরাক: তিনি জনমানুষের রাজনীতি করতেন। যেকোনো মানুষের  বিপদে অন্যদিকে ঘুরে তাকাতেন না। মানুষের বিপদে ঝাঁপিয়ে পড়তেন সাহায্য করার জন্য। যেটা উনার মৃত্যুর পর আমি জানতে পেরেছি বিস্তারিত। অনেক অপরিচিত মানুষ এসে বলেছেন তারা কিভাবে সাহায্য সহযোগিতা পেয়েছেন। এটাই সবচেয়ে বেশি আমাকে অনুপ্রাণিত করে।

রাইজিংবিডি: কেমন রাজনীতি চান?

ইশরাক: আমি একটি ইনক্লুসিভ পলিটিক্স চাই। যেখানে জনগণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে একটি নির্বাচিত সরকারকে আনবে এবং সেই সরকারের পাঁচ বছর অতিবাহিত হওয়ার পর, সেই সরকারের পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে তারা ভোট দিয়ে আবারো একটি নির্বাচিত সরকারকে আনবে। এতে করে ক্ষমতার ভারসাম্য থাকবে। ক্ষমতার অপব্যবহার হবে না। জনগণ উপকৃত হবে এবং জনগণের অধিকার সমুন্নত হবে। মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে প্রাপ্ত স্বাধীনতা সফল হবে।


ঢাকা/সাওন/সাইফ


     



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

করোনা নিয়ে আতঙ্ক না ছড়ানোর আহ্বান

২০২০-০৩-২৮ ২:৫২:৩৪ পিএম

সংক্রমণে চীনকে ছাড়ালো ইতালি

২০২০-০৩-২৮ ২:৫১:৩৯ পিএম
রম্যগদ্য

বন্যেরা জনপদে, মানুষ গৃহকোণে

২০২০-০৩-২৮ ১:৪১:১৬ পিএম

করোনা সচেতনতায় আসিফের গান

২০২০-০৩-২৮ ১:৩৪:০৪ পিএম

গোপালগঞ্জ শহরে জীবাণুনাশক স্প্রে

২০২০-০৩-২৮ ১:২২:৩০ পিএম