বিটিআরসির বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশ: ২০১৯-০৯-১১ ৭:০৭:০৮ পিএম
আবু বকর ইয়ামিন | রাইজিংবিডি.কম

নিজস্ব প্রতিবেদক: পাওনা আদায়ের দাবি অযৌক্তিক ও ত্রুটিপূর্ণ বলে বাংলাদেশে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) বিরুদ্ধে মামলা করেছে গ্রামীণফোন ও রবি।

মামলার বিষয়ে গ্রামীণফোনের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘যে অডিটের ভিত্তিতে বিটিআরসি অযৌক্তিক অর্থ দাবি করছে সেটির প্রক্রিয়া, কার্যপ্রনালী এবং ফলাফল নিয়ে আমরা বরাবরই আপত্তি জানিয়ে এসেছি। ত্রুটিপূর্ণ ওই অডিট ঘিরে সৃষ্ট অচলাবস্থার নিরসনে আমরা বারবার সালিশী প্রক্রিয়াসহ স্বচ্ছ গঠনমূলক আলোচনার আহ্বান জানিয়েছি। কিন্তু দুঃখজনকভাবে আমাদের সকল প্রচেষ্টা বিটিআরসি অগ্রাহ্য করেছে এবং এই অযোক্তিক অডিট দাবি আদায়ে অন্যয্যভাবে বল  প্রয়োগ করেই যাচ্ছে। এরই প্রেক্ষিতে গত ২৬ অগাস্ট গ্রামীণফোন একটি দেওয়ানি মামলা দায়ের করতে বাধ্য হয়েছে। বিষয়টি এখন মহামান্য আদালতে বিবেচনাধীন।’

রবির পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘বিটিআরসির নিরীক্ষা প্রতিবেদনে উত্থাপিত প্রশ্নবিদ্ধ আপত্তিসমূহ আলাপ-আলোচনা এবং বিকল্প সালিশ নিষ্পত্তির (আরবিট্রেশন) মাধ্যমে সমাধানে আমরা সর্বোচ্চ আন্তরিকতার সাথে চেষ্টা করেছি। কিন্তু দুঃখজনকভাবে বিটিআরসি আমাদের সে প্রস্তাবে সাড়া না দিয়ে প্রশ্নবিদ্ধ নিরীক্ষা প্রক্রিয়ার মাধ্যমে দাবিকৃত অর্থ আদায়ে আইন বহির্ভূত পদক্ষেপ নিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে আদালতে যাওয়া ছাড়া রবির বিকল্প কোনো পথ ছিল না।’

এদিকে টাকা না দেওয়ায় গ্রামীণফোন ও রবির টু জি ও থ্রি জি সেবার লাইসেন্স কেন বাতিল করা হবে না- তা জানতে চেয়ে দুই অপারেটরকে কারণ দর্শানোর নোটিস পাঠায় বিটিআরসি। আগামী ৩০ দিনের মধ্যে তা জানাতে বলা হয় নোটিসে।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নোটিসের জবাব না দিলে বা পাওনা টাকা পরিশোধ না করলে পরবর্তী পদক্ষেপের বিষয়ে সোয়া ১২ কোটি গ্রাহকের এই দুই অপারেটরে প্রশাসক নিয়োগের মত পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে বলেও বিটিআরসির পক্ষ থেকে জানানো হয়।


রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯/ইয়ামিন/সাজেদ


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

রেলপথ থেকে লাশ উদ্ধার

২০১৯-১১-১২ ৯:১২:১৭ এএম

জুতা পায়ে বেদিতে উঠা নিষেধ

২০১৯-১১-১২ ৮:৩৩:১৩ এএম

বস নিজ হাতে ধুয়ে দিলেন কর্মীর পা

২০১৯-১১-১২ ৮:২০:০৬ এএম

‘আমি আল্লু অর্জুনের বস’

২০১৯-১১-১২ ৮:১৮:৪৮ এএম

টিভিতে আজকের খেলা

২০১৯-১১-১২ ৮:১৫:০৬ এএম

জয়পুরহাটে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

২০১৯-১১-১২ ২:৪৭:২৪ এএম