খুনি মাজেদের ফাঁসি কার্যকর নিয়ে যা বললেন আইনজীবীরা

প্রকাশ: ২০২০-০৪-০৭ ৩:২১:১৯ পিএম
মেহেদী হাসান ডালিম | রাইজিংবিডি.কম

গ্রেফতারের পর পুলিশের সঙ্গে আদালতে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার আসামি আব্দুল মাজেদ (হেলমেট পরিহিত) । (ছবি: শাহীন ভূইয়া)

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যা মামলার আসামি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত)  আবদুল মাজেদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর নিয়ে ভিন্ন-ভিন্ন মত দিয়েছেন দেশের আইন বিশেষজ্ঞরা। একপক্ষের মতে, এই রায়ের বিরুদ্ধে আর আপিলের সুযোগ নেই। সরকার চাইলে যেকোনো সময় মাজেদের ফাঁসি কার্যকর করতে পারবে। অন্যপক্ষের অভিমত, এই আসামি শেষ সুযোগ হিসেবে তামাদি আইনে লিভ টু আপিল করতে পারবেন। তবে, অ্যাটর্নি জেনারেল এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

জানতে চাইলে সাবেক বিচারপতি ও সিনিয়র আইনজীবী মনসুরুল হক চৌধুরী বলেন, ‘সরকার চাইলে মাজেদের ফাঁসি এখন কার্যকর করতে পারবে। আসামি আপিল করার সুযোগ পাবেন না তিনি।’ কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘বিচারিক আদালতের দেওয়া মৃত্যুদণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে ডেথ রেফারেন্স ও আপিল শুনানি হয়ে গেছে। সেখানে নিশ্চয় আসামি পক্ষে রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী ছিলেন। হাইকোর্ট তার মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের পর আপিল বিভাগও তা বহাল রেখেছেন। সব আইনি প্রক্রিয়া শেষ হয়ে গেছে। এখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে মাজেদের ফাঁসি করতে পারবে সরকার।’

একই অভিমত জানালেন আরেক আইনজীবী এসএম শাহজাহান। রাইজিংবিডিকে তিনি বলেন, ‘এই আসামির মৃত্যুদণ্ড কনফার্ম করেছেন হাইকোর্ট। আপিল বিভাগও তা বহাল রেখেছেন। এখন বিচারিক আদালত থেকে মৃত্যু পরোয়ানা গেলেই কারাকর্তৃপক্ষ তার ফাঁসি কার্যকর করতে পারবে।’

তবে এই আইনজীবীদের সঙ্গে ভিন্নমত পোষণ করেছেন আইন বিশেষজ্ঞ খুরশিদ আলম খান। এই আইনজীবী রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আসামিতে তো এতদিন পলাতক ছিলেন। হাইকোর্টে তার পক্ষে রাষ্ট্র নিযুক্ত আইনজীবী ছিলেন। তাই হাইকোর্টের ফাংশন শেষ। এখন এই আসামি তামাদি আইনে মৃত্যুদণ্ডের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল করার সুযোগ পাবেন। লিভ টু আপিল খারিজ হয়ে গেলে তিনি রিভিউ করারও সুযোগ পাবেন। তবে, তাকে আবেদনে এত দিন লিভ টু আপিল না করার পেছনে যুক্তিসঙ্গত কারণ দেখাতে হবে।’

প্রায় অভিন্ন মত দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া আসামি এ কে এম মহিউদ্দিনের তৎকালীন আইনজীবী  ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মামুন। তিনি বলেন, ‘কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আসামি আব্দুল মাজেদ আপিল বিভাগে একটি আবেদন করতে পারেন। আপিল বিভাগ আবেদন গ্রহণ করলে তিনি লিভ টু আপিলের সুযোগ পাবেন। আপিল বিভাগ যদি মাজেদের জেল পিটিশন খারিজ করে দেন, তাহলে সরকার তার ফাঁসি করতে পারবে।’

এ বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আমি রাষ্ট্রপক্ষের প্রসিকিউটর হওয়ায় এই মুহূর্তে এ বিষয়ে আমার মন্তব্য করা ঠিক হবে না।’

প্রসঙ্গত, সোমবার (৬ এপ্রিল) দিবাগত রাতে বঙ্গবন্ধু হত্যামামলার অন্যতম আসামি আবদুল মাজেদকে গ্রেফতার করা হয়। পরদিন মঙ্গলবার তাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

এর আগে, ২০০৯ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় আবদুল মাজেদসহ ১২ আসামির বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেন আদালত।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সৈয়দ ফারুক রহমান, সুলতান শাহরিয়ার রশীদ খান, বজলুল হুদা, এ কে এম মহিউদ্দিন আহমেদ ও মুহিউদ্দিন আহমেদের ফাঁসি ২০১০ সালের ২৭ জানুয়ারি কার্যকর হয়।

রায় কার্যকরের আগে ২০০২ সালে পলাতক অবস্থায় জিম্বাবুয়েতে মারা যান আসামি আজিজ পাশা।

আবদুল মাজেদ গ্রেপ্তার হওয়ার পর এখন পলাতক আছেন পাঁচজন। তাঁরা হলেন খন্দকার আবদুর রশীদ, শরিফুল হক ডালিম, এস এইচ এম বি নূর চৌধুরী, এ এম রাশেদ চৌধুরী ও মোসলেম উদ্দিন। আসামিরা সবাই সাবেক সেনা কর্মকর্তা। তাঁরা বিভিন্ন দেশে পলাতক অবস্থায় আছেন।  

*  ২২ বছর কলকাতায় ছিলেন মাজেদ

* রায় কার্যকরের প্রক্রিয়া নিয়ে মন্তব‌্যে নারাজ অ্যাটর্নি জেনারেল

* যেভাবে গ্রেপ্তার হলেন বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদ

* খুনি মাজেদ কারাগারে

* মাজেদের ভারতে থাকার সর্বশেষ তথ্য ছিল সরকারের কাছে

* বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদ আদালতে

* বঙ্গবন্ধু হত্যা: পলাতক খুনি মাজেদ গ্রেপ্তার

 

ঢাকা/মেহেদী/এনই


     




আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

পাবনায় পৃথক স্থানে ২ জনকে হত্যা

২০২০-০৬-০৬ ৯:২৪:৪৪ এএম

রাবি শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত

২০২০-০৬-০৬ ৯:১০:১৭ এএম

এ সপ্তাহের রাশিফল (৬-১২ জুন)

২০২০-০৬-০৬ ৯:০৬:৫৭ এএম

টিভিতে আজকের খেলা

২০২০-০৬-০৬ ৮:২১:৫১ এএম

ক্রিকেট রেকর্ড থেকে

২০২০-০৬-০৬ ৮:০৭:০৭ এএম