নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনাকাটায় মনে রাখতে হবে যেসব টিপস

প্রকাশ: ২০১৯-১০-১০ ৪:৩১:৪২ পিএম
আহমেদ শরীফ | রাইজিংবিডি.কম

প্রতীকী ছবি

নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনতে গিয়ে প্রায় সবাই হিমশিম খান। দেখা যায় অনেকের বাজেট পার হয়ে যায়। কেউ কেউ সব সামগ্রী কেনার পর বুঝতে পারেন, আসলে এতো কিছু কেনার প্রয়োজন ছিল না। এই অবস্থায় কিভাবে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী কেনার বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করা যায়?

এক্ষেত্রে সব সময় যা মনে রাখতে হবে, তাহলো- নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনতে যাওয়ার আগে একটি তালিকা তৈরি করা। এই তালিকা তৈরি দু’ভাবে আপনার জন্য উপকারী হবে। প্রথমত, কী কী জিনিস এ মুহূর্তে প্রয়োজন তা আপনি তালিকা দেখে কিনতে পারবেন। আর দ্বিতীয়ত, অতিরিক্ত খরচের হাত থেকে রক্ষা পাবেন আপনি। আরেকটা বিষয় হলো এক দোকান থেকেই সব সামগ্রী কেনার ইচ্ছেটাবাদ দিতে হবে আপনাকে। একাধিক দোকান থেকে সামগ্রী কিনুন, এটা কিছুটা সময়সাপেক্ষ হলেও দামের দিক থেকে অন্য দোকানে কম পেতে পারেন আপনি। এখন যেহেতু ব্যবসায় প্রতিযোগিতা বেশি, তাই কোন কোন দোকানে বিশেষ ছাড় দেয়া হয়, ব্যয় সংকোচন করতে হলে সে খবরটাও রাখতে হবে আপনাকে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনাকাটায় যাওয়ার আগে তাই যেসব বিষয় মনে রাখা উচিত আপনার-

ক্ষুধার্ত অবস্থায় কেনাকাটা নয়: শুনতে অদ্ভুত মনে হলেও এটি একটি বায়োলজিক্যাল ব্যাপার। আপনি যদি ক্ষুধার্ত অবস্থায় কেনাকাটা করেন, তাহলে প্রয়োজন না থাকলেও অনেক বেশি খাদ্য সামগ্রী কিনে ফেলার প্রবণতা দেখা দেবে।

শপিং কুপনের খবর জেনে নিন: এখন অনেক বড় ডিপার্টমেন্টাল স্টোরই অনলাইন অ্যাপ ও ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নিয়মিত বিভিন্ন অফার, কুপন, ডিসকাউন্ট দিয়ে যাচ্ছে। তাই শপিং এ যাওয়ার আগে সেসব সুবিধার কথা জেনে নিন।

সবসময় তালিকা নিয়ে যান: আগেই বলা হয়েছে, নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী কেনার আগে সব সময় লিস্ট তৈরি করে নিয়ে যাওয়া উচিত। নিয়মিত লিস্ট নিয়ে শপিং এ যান, তাহলে নিজেই বুঝতে পারবেন কতোটা উপকৃত হচ্ছেন আপনি।

প্যাকেটজাত মাংস নয়, টাটকা মাংস কিনুন: প্যাকেটজাত মাংস কিনতে গেলে দাম সাধারণত বেশি পড়ে। তাই যদি গরু বা মুরগির মাংস কিনতে হয়, তাহলে টাটকা মাংসই কিনুন, তাতে খরচ কম পড়বে।

ক্যাশের চেয়ে কার্ড ব্যবহার ভালো: এখন অনেক ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড কোম্পানিই বড় ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের সঙ্গে ব্যবসায়িকভাবে জড়িত। তাই ক্যাশ টাকা দিয়ে সামগ্রী কেনার চেয়ে কার্ডে কিনলে বেশ কিছু আর্থিক সুবিধা পেতে পারেন আপনি।

কেনার আগে এক্সপায়েরি ডেট, দাম দেখে কিনুন: কোনো সামগ্রী, বিশেষ করে খাওয়ার কিছু হলে এক্সপায়েরি ডেট দেখে কিনুন। ওজন ও দাম ঠিক আছে কিনা তাও যাচাই করতে ভুলবেন না। এতে আপনার ঠকার সম্ভাবনা থাকবে না।

উপরের ও নিচের শেলভে দেখুন: ব্যবসায়ীদের একটা স্ট্র্যাটেজি হলো ক্রেতাদের নজর থেকে সস্তা সামগ্রী দূরে রাখা। এ কারণে ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে সাধারণত কম দামী সামগ্রী রাখা হয় উপরের বা নিচের শেলভে। তাই কম দামী সামগ্রী কিনতে হলে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে আপনার।

বেশি করে কিনুন: যদি প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনতে যান, তাহলে কয়েক মাসের সামগ্রী এক সাথে কিনতে চেষ্টা করুন। এতে করে বারবার দোকানে যাওয়ার ঝামেলা থাকবে না। আর এক সাথে কিনলে দামও কিছুটা কম পড়বে।

বাজেট সীমিত রাখুন: দোকানে যখন সামগ্রী কিনতে যাবেন, তখন আপনার বাজেট যেন সীমিত থাকে সে দিকে খেয়াল রাখুন। এতে করে পকেট যেমন চাপমুক্ত থাকবে, তেমনি অপ্রয়োজনীয় জিনিস কেনাও বন্ধ হবে আপনার।


ঢাকা/ফিরোজ


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

রবিবার আখাউড়া স্থলবন্দর বন্ধ

২০১৯-১১-১৭ ২:২৫:৩০ এএম

বিপিএলে মাশরাফি-গেইলদের বেতন কত?

২০১৯-১১-১৭ ১২:০৪:৩৩ এএম

বিপিএলের লোগো উন্মোচন

২০১৯-১১-১৬ ১০:৪৩:৫৮ পিএম

কুষ্টিয়ায় পেঁয়াজের আড়তে অভিযান

২০১৯-১১-১৬ ১০:৪০:৪১ পিএম

ঝিনাইদহে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

২০১৯-১১-১৬ ১০:৩৫:৩৫ পিএম