সেপ্টেম্বরের সেরা লেখকদের পুরস্কার দিল রাইজিংবিডি

প্রকাশ: ২০১৯-১০-১৪ ৭:১২:২৭ পিএম
নিজস্ব প্রতিবেদক | রাইজিংবিডি.কম

দেশের শীর্ষস্থানীয় ও জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল রাইজিংবিডি ডটকম সেপ্টেম্বর (২০১৯) মাসের সেরা প্রতিবেদক, জেলা প্রতিনিধি ও সেরা লেখক (ক্যাম্পাস, ফিচার) পুরস্কার দিয়েছে।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর মিরপুরে রাইজিংবিডির নিজস্ব কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে তাদের হাতে ক্রেস্ট ও নগদ টাকা তুলে দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব শাবান মাহমুদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন অভিনেত্রী জাহারা মিতু। রাইজিংবিডির উপদেষ্টা সম্পাদক উদয় হাকিম, মনিটরিং উপদেষ্টা ফিরোজ আলম, সম্পাদক নওশের আলী, ফিচার সম্পাদক তাপস রায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন রাইজিংবিডির প্রশাসনিক কর্মকর্তা মিলটন আহমেদ।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব শাবান মাহমুদ বলেন, দেশ যখন সংকটে পড়ে, জাতি যখন গভীর সংকটে নিমজ্জিত হয় অথবা আমাদের রাজনীতি সচেতন মানুষ যখন কোনো কারণে বিভ্রান্ত হয়, অথবা সরকারের সকল সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান যখন অনিয়মে নিমজ্জিত হয়, গণতন্ত্র প্রায় নির্বাসিত হয়-  তখন সব শেষ আস্থার জায়গা হয় গণমাধ্যম, সাংবাদিকতা এবং সংবাদপত্র। আপনারা জাতির কাছে নিশ্চই সর্বোচ্চ মর্যাদার আসনে সমুন্নত রেখেছেন।  আশা করি আপনার আরো এগিয়ে যাবেন।

রাইজিংবিডির উপদেষ্টা সম্পাদক উদয় হাকিম বলেন, আমাদের একটা উদ্দেশ্য ছিল সবকিছু আমরা ইতিবাচকভাবে দেখব। মিডিয়া শব্দটা মাথায় আসলে আমাদের মনে হয় ‘সামথিং নেগেটিভ’। পজেটিভ কিছুই নেই। কারো বিপক্ষে আমরা লিখি না। কেউই বলতে পারবে না আমরা কারো বিপক্ষে লিখেছি। আমাদের কাছে মনে হয়েছিল এই যে বাংলাদেশ, এক সময় তলাবিহীন ঝুড়ি বলা হতো। দিন দিন আমরা এ থেকে বেরিয়ে উন্নতি করেছি। এখন বাংলাদেশকে বলা হয় ইমার্জিং টাইগার। এ  ধারণা এবং ডেভেলপমেন্টের গতির সঙ্গে মিল রেখে রাইজিংবিডি নাম রাখা।   আমাদের নীতি হচ্ছে ‘উত্তম নিশ্চিন্তে চলে অধমের সাথে, তিনিই মধ্যম যিনি চলেন তফাতে’। কিন্তু বিশ্বাসযোগ্যতার দিক থেকে আমরা এক নম্বর।

তিনি বলেন, পৃথিবীর সবচেয়ে বড় আদালত হচ্ছে মানুষের বিবেক। সেই জায়গায় যদি আমরা সৎ থাকতে পারি, তাহলে কেউ আমাদের আটকাতে পারবে না। রাইজিংবিডিতে শুধু রিপোর্টার, সাব-এডিটররাই নয়, এখানে সবাই লিখতে পারেন।

রাইজিংবিডির মনিটরিং উপদেষ্টা ফিরোজ আলম বলেন, অনেকগুলো মেধাবী মুখ দেখছি। মেধাবী মুখগুলো যেন লেখায় উৎসাহিত হয়, সেজন্যই আজকের এই আয়োজন। একজন লেখকের কাছে বলার মাধ্যম হচ্ছে কলম। আর আধুনিক যুগে হচ্ছে কিবোর্ড। এই কিবোর্ডের মাধ্যমে যদি আপনারা এই জ্ঞান মানুষের মধ্যে বিতরণ না করেন, শুধু চাকরি করার জন্য লিখেন, তাহলে কিন্তু বিদ্যার বিতরণ হচ্ছে না। তাই চেষ্টা করবো চাকরির বাইরে কিছু লেখা যায় কিনা।

সেপ্টেম্বরে ‘গ্যাং কালচার: সন্ত্রাসী বানানোর কারখানা’-শীর্ষক লেখাটির জন্য সেরা প্রতিবেদকের পুরস্কার পেয়েছেন মাকসুদুর রহমান এবং ‘গোয়েন্দাগিরি, বৃষ্টিবিলাসের পর আফগান রূপকথা’- শীর্ষক প্রতিবেদনের জন্য সেরা প্রতিবেদকের  পুরস্কার পেয়েছেন ইয়াসিন হাসান।

এছাড়া ‘মালয়েশিয়ায় অপুর সঙ্গে জয়’ -শীর্ষক প্রতিবেদনের জন্য সেরা ফিচার লেখকের পুরস্কার পেয়েছেন রাহাত সাইফুল। ‘অসহায় চোখে মা বোনকে মরতে দেখল মুহিত’- শীর্ষক লেখার জন্য সেরা জেলা প্রতিবেদকের পুরস্কার পেয়েছেন রাইজিংবিডির সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি আল-আমিন। ‘চিকো মেন্দেস: পৃথিবীর ফুসফুস বাঁচাতে প্রাণ দেয়া বিপ্লবী’- শীর্ষক লেখাটির জন্য সেরা লেখকের পুরস্কার পেয়েছেন অনার্য মুর্শিদ।

এছাড়া ক্যাম্পাস থেকে দুজনকে পুরস্কৃত করা হয়েছে। তারা হলেন- জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী লোপা মুদ্রা রায় এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী সাইফুর রহমান।

পুরস্কার পাওয়ার পর অনুভূতি প্রকাশ করে মাকসুদুর রহমান বলেন, পুরস্কার মানেই হচ্ছে অনুপ্রেরণা। আমি অনুপ্রাণিত। আগামীতে এ ধরনের অনুসন্ধানী বা বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনে আরো উৎসাহ পাব।

ইয়াসিন হাসান বলেন, ভালো কাজের পর পুরস্কার পাওয়া সব সময়ই আনন্দের। আমি রাইজিংবিডির পুরোনো একজন সৈনিক। কর্তৃপক্ষ সব সময় ভালো কাজের স্বীকৃতি দেয়। এবার আমার শোকেসে উঠল সেরার ট্রফি। আশা করছি আগামীতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে।

রাহাত সাইফুল বলেন, পুরস্কার সব সময়ই অনুপ্রেরণা যোগায়। কাজের গতি বাড়ায়। আজকের এই পুরস্কার পেয়ে আমার ভালোলাগা অনেক বেশি কারণ আজ নিজের প্রতিষ্ঠান থেকে এই পুরস্কার পেয়েছি।

মোহাম্মদ আল-আমিন বলেন, আমি প্রত্যন্ত (সুনামগঞ্জ) এলাকায় কাজ করি। পুরস্কার পেয়ে আমার খুব ভালো লাগছে। রাইজিংবিডির সাফল্য কামনা করি।

লোপা মুদ্রা রায় বলেন, আমি আজ যে লেখাটার জন্য পুরস্কার পেয়েছি এটি আমার প্রথম লেখা। পূজার ছুটিতে বাড়ি গিয়েছিলাম। তখন বাসায় বসে ভাবলাম এই অবসর টাইমে কি করা যায়। তখনি আমার মাথায় আসে কিছু লেখার। তবে আমার এই লেখার জন্য যে পুরস্কার পাব সেটা আমি কল্পনাও করিনি। লেখার পরে ভাবলাম আমার জন্য রাইজিংবিডি হচ্ছে সব থেকে ভালো প্ল্যাটফর্ম। আমি রাইজিংবিডিকে ধন্যবাদ জানাই। রাইজিংবিডি কর্তৃপক্ষের  কাছে অনুরোধ, আমার মতো ক্যাম্পাস লেখকদের আরো বেশি সুযোগ করে দেয়ার জন্য।

অনার্য মুর্শিদ বলেন, আমি যে মুহূর্তে লেখা থেকে বের হয়ে যাচ্ছিলাম ঠিক সেই মুহূর্তে রাইজিংবিডি আমাকে পুরষ্কৃত করেছে। এজন্য রাইজিংবিডিকে ধন্যবাদ।

 

ঢাকা/হাসিবুল/নূর/সাইফ


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

হলো না জেতা, পেল না ৩২ লাখ টাকা

২০১৯-১২-০৯ ১২:০১:৪৪ এএম

ভারতকে উড়িয়ে দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

২০১৯-১২-০৮ ১১:১৩:১৩ পিএম

বাংলাদেশের পদকের সেঞ্চুরি

২০১৯-১২-০৮ ১১:০৯:০২ পিএম

টি-টোয়েন্টির চূড়ায় কোহলি

২০১৯-১২-০৮ ১০:৪৯:৩৬ পিএম

‘গবেষণায় চিকিৎসকদের মনোযোগ কম’

২০১৯-১২-০৮ ১০:৪২:৫১ পিএম