বাংলাদেশে বিনিয়োগের ভবিষ্যৎ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে আলোচনা

প্রকাশ: ২০১৯-১১-১৪ ৭:৩৪:৫৬ পিএম
কূটনৈতিক প্রতিবেদক | রাইজিংবিডি.কম

বাংলাদেশে বিনিয়োগের ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনার লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রে ‘ফিউচার অব ইনভেস্টমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক একটি গোলটেবিল বৈঠক করা হয়েছে। এতে বাংলাদেশের বর্তমান বিনিয়োগ পরিস্থিতি পর্যালোচনার পাশাপাশি এ দেশে বিনিয়োগের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা ও অবকাঠামোর বিষয়ে আলোচনা হয়।

বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

গতকাল বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে ‘ইউএস চেম্বার অব কমার্স’ এর ইউএস-বাংলা ওয়ার্কিং গ্রুপ ও মার্কিন থিংক ট্যাংক ‘আটলান্টিক কাউন্সিল’ এর দক্ষিণ এশিয়া সেন্টারের যৌথ উদ্যোগে এ গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের চিত্র উপস্থাপন করেন।

যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন ও বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম আলোচনায় অংশ নেন। ইউএস চেম্বার অব কমার্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সাবেক সহকারী মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা বিসওয়াল এবং আটলান্টিক কাউন্সিলের দক্ষিণ এশিয়া সেন্টারের পরিচালক ড. আরফান নুরুদ্দিন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, ডিজিটাইজেশন, ফার্মাসিউটিক্যালস, জ্বালানি, তৈরি পোশাক, আধুনিক উৎপাদন খাত ও অবকাঠামো এবং কৃষিক্ষেত্রে বাংলাদেশের অর্জিত সাফল্য নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন সালমান এফ রহমান। নারীর ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে তৈরি পোশাক শিল্পের অবদানের কথাও তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি কৃষিজমি রক্ষা ও পরিকল্পিত শিল্পায়ন নিশ্চিতকরণে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা সম্পর্কে উপস্থিত বিনিয়োগকারীদের অবহিত করেন।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টার নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল ইউএস-বাংলা ওয়ার্কিং গ্রুপের সদস্য কোম্পানিগুলোর পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে উদ্ভূত বিভিন্ন আলোচনায় অংশ নেন। ওয়ার্কিং গ্রুপের সদস্যরা বাংলাদেশে বিনিয়োগে সম্ভাব্যতা ও বিদ্যমান বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশের কথা তুলে ধরেন।

এছাড়া ‘ইজ অব ডুইং বিজনেস’ ও ব্যবসায়িক প্রতিদ্বন্দ্বিতা সম্পর্কিত সূচকসমূহে অগ্রগতি অর্জনের লক্ষ্যে একটি টেকসই অনলাইন ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করাসহ বাংলাদেশকে যেসব পদক্ষেপ নিতে হবে সে সম্পর্কেও আলোচনা হয়।

বাংলাদেশের জনগণের জন্য নতুন সুযোগ সৃষ্টি করার পাশাপাশি বিদ্যমান সমস্যার দ্রুত সমাধান ও উদ্ভাবন  উৎসাহিত করতে বেসরকারি খাতের সঙ্গে একযোগে কাজ করার ব্যাপারে  প্রধানমন্ত্রী ও তার সরকারের অঙ্গিকার পুনর্ব্যক্ত করেন সালমান এফ রহমান।

ইউএস চেম্বার ও আটলান্টিক কাউন্সিলের এ অনুষ্ঠানে অংশীদার হিসেবে ছিল চেনিয়েরে ও জিই পাওয়ার। এতে অংশ নেয় শেভরন, এক্সালেরেট এনার্জি, পিএইচআরএমএ, টারগেট, ওয়ালমার্ট, বোয়িং, বাওয়ার গ্রুপ এশিয়া, স্কাই পাওয়ার গ্লোবাল, ম্যাকলার্টি অ্যাসোসিয়েটসের মতো বিশ্বখ্যাত মার্কিন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলো।


ঢাকা/হাসান/রফিক


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

বলিউডে আগ্রহী দ্য রক

২০১৯-১২-০৮ ১১:৩৬:৫৩ এএম

বাসচাপায় নিহত ৩

২০১৯-১২-০৮ ১১:২৩:৪৪ এএম

রোমান সানার দলগত সোনা জয়

২০১৯-১২-০৮ ১০:৫৬:২৩ এএম

হৃতিকের প্রশংসায় রানী

২০১৯-১২-০৮ ১০:৪৮:০৫ এএম

ঢাকায় সালমান-ক্যাটরিনা

২০১৯-১২-০৮ ১০:৩০:০৪ এএম