ইনিংস ব্যবধানে জয় ঢাকার

প্রকাশ: ২০১৯-১১-০৫ ৪:৫০:০৮ পিএম
ক্রীড়া প্রতিবেদক | রাইজিংবিডি.কম

ইনিংস হার এড়ানোর জন্য সর্বাত্মক চেষ্টাই করেছে রাজশাহী বিভাগ। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের ইনিংস ব্যবধানে হারিয়ে চলতি জাতীয় ক্রিকেট লিগে প্রথম জয় তুলে নিয়েছে ঢাকা বিভাগ।

প্রথম স্তরের ম্যাচটি ঢাকা জিতেছে ইনিংস ও ৪ রানে। প্রথম ইনিংসে ২৩০ রানে অলআউট হওয়ার পর মঙ্গলবার শেষ দিনে রাজশাহীর দ্বিতীয় ইনিংস গুটিয়ে যায় ২৪১ রানে। তাইবুর রহমান, শুভাগত হোম ও নাদিফ চৌধুরীর সেঞ্চুরিতে একমাত্র ইনিংসে ঢাকা করেছিল ৭ উইকেটে ৪৭৫ রান।

কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে শেষ দিনে ইনিংস হার এড়াতে রাজশাহীর দরকার ছিল ১৬৮ রান, হাতে ছিল ৭ উইকেট। জুনায়েদ সিদ্দিক ৪১ ও নাজমুল হোসেন শান্ত ১৭ রান নিয়ে দিন শুরু করেছিলেন।

কিন্তু দিনের শুরুতেই জুনায়েদ ফেরেন আগের দিনের ৪১ রানেই। এরপর রাজশাহী লড়েছে শান্ত ও সাব্বির রহমানের ফিফটিতে। তবে ফিফটির পর দুজনের কেউই ইনিংস বড় করতে পারেননি। শান্ত ১২৫ বলে ৫১, সাব্বির ১০২ বলে করেন ৫৮ রানে। তার আগে অধিনায়ক ফরহাদ হোসেন ফেরেন ২৮ রানে।

এরপর মুক্তার আলী, সানজামুল ইসলাম ইনিংস হার এড়ানোর চেষ্টা চালালেও সফল হননি। সাইফ হাসানের শিকার হওয়ার আগে ৭৭ বলে ১১ রান করেন মুক্তার। ১৮ বলে ১৭ রান করা সানজামুলকে ফিরিয়ে রাজশাহীর ইনিংস গুটিয়ে দেন শুভাগত।

নাজমুল ইসলাম অপু ও সাইফ হাসান নেন ৩টি করে উইকেট। ৪৫ রানে ২ উইকেট নেন সালাউদ্দিন শাকিল। সেঞ্চুরি ও দুই ইনিংসে ৪ উইকেটের জন্য ম্যাচ সেরা হয়েছেন শুভাগত।

চার ম্যাচে এক জয় ও তিন ড্রয়ে ২০.৬ পয়েন্ট নিয়ে প্রথম স্তরের পয়েন্ট টেবিলে দ্বিতীয় স্থানে আছে ঢাকা। সমান ম্যাচে একটি করে জয় ও ড্র এবং দুই হারে ১৩.৬১ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে রাজশাহী।

চতুর্থ রাউন্ডের আরেক ম্যাচে রংপুরকে ১ উইকেটে হারানো খুলনা দুটি করে জয় ও ড্রয়ে ২৬.৪৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে। দুটি করে ড্র ও হারে ৮.২২ পয়েন্ট নিয়ে সবার নিচে আছে রংপুর। 


ঢাকা/পরাগ


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

রবিবার আখাউড়া স্থলবন্দর বন্ধ

২০১৯-১১-১৭ ২:২৫:৩০ এএম

বিপিএলে মাশরাফি-গেইলদের বেতন কত?

২০১৯-১১-১৭ ১২:০৪:৩৩ এএম

বিপিএলের লোগো উন্মোচন

২০১৯-১১-১৬ ১০:৪৩:৫৮ পিএম

কুষ্টিয়ায় পেঁয়াজের আড়তে অভিযান

২০১৯-১১-১৬ ১০:৪০:৪১ পিএম

ঝিনাইদহে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

২০১৯-১১-১৬ ১০:৩৫:৩৫ পিএম