সাদের জয়ে রওশনের আনন্দাশ্রু

প্রকাশ: ২০১৯-১০-০৫ ৯:১৬:২৭ পিএম
মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন | রাইজিংবিডি.কম

রংপুর-৩ আসনে উপ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ও বেগম রওশন এরশাদের ছেলে রাহগির আলমাহি সাদ এরশাদ জয়ী হয়েছেন। ভোটারের উপস্থিতি কম হলেও শান্তিপূর্ণ অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনে মোট ৫৮ হাজার ৮৭৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

উপ-নির্বাচনে সাদ এরশাদ বিজয়ী হয়েছেন খবর পেয়ে মহান আল্লাহর দরবারে সিজদায় যান বিরোধী দলের নেতা বেগম রওশন এরশাদ এমপি। অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে ছেলে সাদ এরশাদ বিজয়ী হওয়ায় মহান আল্লাহর দরবারে শোকরিয়া আদায় করেন জাতীয় পার্টির অন্যতম এই প্রতিষ্ঠাতা। বর্তমানে তিনি ঢাকায় গুলশানের বাসায় অবস্থান করছেন। সেখানে নেতাকর্মীদের ভিড়।

সাদের বিজয়ে রওশন এরশাদ আনন্দিত। আনন্দে অশ্রু ঝরেছে তার। ছেলের বিজয় রংপুরবাসীকে উৎসর্গ করে তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় মুঠোফোনে সাবেক এই ফার্স্টলেডি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘মহান আল্লাহর দরবারে অশেষ শোকরিয়া জ্ঞাপন করছি। আমি সাদের বিজয় রংপুরবাসীকে উৎসর্গ করলাম। এই বিজয় রংপুরবাসীর বিজয়। তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। সফল রাষ্ট্রনায়ক প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের উত্তরসুরি হিসেবে আপন করে নিয়ে, আস্থা রেখে লাঙলে ভোট দিয়ে সাদকে বিজয়ী করেছেন। তার জন্য দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীর প্রতিও ‍কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। যারা আন্তরিকতার সঙ্গে রাতদিন পরিশ্রম করেছেন।’

জানা গেছে, রংপুর উপ নির্বাচনে ছেলে সাদ এরশাদের জন্য সারাদিন টেনশনে ছিলেন রওশন এরশাদ। ঢাকায় গুলশানের বাসায় অবস্থান করে দিনভর আল্লাহকে ডাকেন তিনি। কোথায় খাওয়া দাওয়া, কোথায় কি। নামাজ পড়ে, কোরআন তেলাওয়াত করে, দোয়া দরুদ পড়ে ছেলের জন্য দোয়া মোনাজাতেই সময় পার করেছেন। সারাক্ষণ জায়নামাজে পড়ে ছিলেন রওশন এরশাদ। প্রয়াত স্বামী এরশাদের জন্যও মোনাজাত করেন। সন্ধ্যার পর ছেলের বিজয়ের খবর আসা মাত্রই তিনি সেজদায় লুটিয়ে পড়েন। আনন্দে কেঁদে ফেলেন। তার মনে শান্তনা ফিরে আসে।

রওশন এরশাদ বলেন, ‘প্রয়াত পিতার অসমাপ্ত কাজ এগিয়ে নিয়ে যাবেন সাদ এরশাদ। এলাকার সুখে দুখে রংপুরবাসী তাকে পাবেন।’ সংসদ সদস্য হিসেবে সততার সঙ্গে যাতে দায়িত্ব পালন করতে পারেন সে জন্য তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

জাপা নেতাকর্মীদের উল্লাস :

রংপুর ৩ আসনে উপনির্বাচনে সাদ এরশাদের জয়ের খবরে আনন্দ উল্লাস করেছেন জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা। রাতে রাজধানীর কাকরাইলে অবস্থিত কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের নেতাকর্মীরা মিষ্টি খাইয়ে উৎসবে মেতে উঠেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন রাজু, দপ্তর সম্পাদক সুলতান মাহমুদ, ছাত্রসমাজের সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান মিরু, স্বেচ্ছাসেবক পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি আজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন, মৎসজীবী পার্টির আজহার হোসেন, জাপা নেতা ফরহাদ আলী সরকার, মাহবুবুর রহমান পাটোয়ারিসহ নেতাকর্মীরা।

সাদের বিজয়ে আনন্দিত জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এসএম ফয়সল চিশতী বলেন, ‘প্রয়াত জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা ‍ও সফল রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছেলে হিসেবে রংপুরবাসী সাদ এরশাদকে আপন করে নিয়েছেন, নির্বাচনে বিজয়ী করেছেন। তারা সঠিক নেতৃত্ব বেছে নিয়েছেন। এজন্য জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে রংপুরবাসীকে অভিনন্দন জানাচিছ।’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনী প্রচারে লাঙলের গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছিল। ভোটের ফলাফলে লাঙলের বিজয়ে তারই বহিপ্রকাশ ঘটেছে।’ তিনি সাদ এরশাদকে অভিনন্দন জানান।’

সাদের বিজয়ে রংপুরবাসীকে অভিনন্দন জানিয়ে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আব্দুস সবুর আসুদ ও দলের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা অভিন্নসুরে বলেন, ‘রংপুর ৩ আসন জাতীয় পার্টির। সাবেক রাষ্ট্রপতির লাঙল থাকতে রংপুরবাসী অন্য কাউকে নেতৃত্বে বসাবে না সাদের বিজয় সেটাই প্রমাণ করেছে।’ তারা দলের নেতাকর্মী ও রংপুরবাসীকে অভিনন্দন জানান।

শনিবার অনুষ্ঠিত উপ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী রাহগির আলমাহি সাদ এরশাদের প্রাপ্ত ভোট হলো ৫৮ হাজার ৮৭৮। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির রিটা রহমান ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ১৬ হাজার ৯৪৭ এবং এরশাদের ভাতিজা স্বতন্ত্র প্রার্থী হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ মটরগাড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ১৪ হাজার ৯৮৪ ভোট। গণফ্রন্টের প্রার্থী কাজী মো. শহীদুল্লাহ বায়েজিদ (মাছ) ১৬৬২, খেলাফত মজলিসের তৌহিদুর রহমান মণ্ডল (দেয়াল ঘড়ি) ৯২৪ এবং এনপিপির শফিউল আলম (আম) প্রতীকে পেয়েছেন ৬১১ ভোট।


ঢাকা/নঈমুদ্দীন/এনএ


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

ইউপি সদস্যসহ তিনজনের কারাদণ্ড

২০১৯-১০-১৭ ৭:৩৯:০৩ পিএম