গুগল-ফেসবুক-ইউটিউবের ব্যাংকিং চ্যানেল হতে চায় সোনালী ব্যাংক

প্রকাশ: ২০১৯-১০-২৪ ১২:২৭:০০ এএম
এম এ রহমান মাসুম | রাইজিংবিডি.কম

দেশের সার্চ ইঞ্জিন গুগল, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, ইউটিউবের বিজ্ঞাপনবাবদ গত পাঁচ বছরে ২৪১ কোটি ৬৪ লাখ টাকা পরিশোধ হয়েছে।

বেসরকারি ও বিদেশি খাতের ১০টি ব্যাংকের মাধ্যমে এতোদিন পরিশোধ হয়েছে ওই টাকা। এবার রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সোনালী ব্যাংকের ২১৮টি শাখা এ সেবায় যুক্ত হতে চায়।

সম্প্রতি সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আতাউর রহমান প্রধান জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) চেয়ারম্যানকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি দিয়েছে। যেখানে ব্যাংকটি বিজ্ঞাপনের অর্থ থেকে রাজস্ব আহরণের সাথে যুক্ত হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

চিঠিতে বলা হয়, সোনালী ব্যাংক শতভাগ রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন দেশের একমাত্র ট্রেজারী ও বৃহত্তম বাণিজ্যিক ব্যাংক। দেশে ও বিদেশে এক হাজার ২১৮টি শাখা ও ৬৪৭টি করেসপন্ডেন্ট রিলেশনশীপ প্রতিষ্ঠানের বিস্তৃত নেটওয়ার্কের মাধ্যমে এ ব্যাংক সকল শাখায় রিয়েল টাইম অনলাইন ব্যাংকিংসহ অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত সেবা প্রদান করে আসছে। জাতিসংঘ ও সরকার ঘোষিত এমডিজি ও এসডিজি বাস্তবায়নের মূখ্য আর্থিক অংশীদার হিসেবে সরকারের সামগ্রিক আর্থিক কর্মযজ্ঞে এ ব্যাংক সক্রিয় সহযোগীর ভূমিকা পালন করে আসছে।

সরকারের ডিজিটালাইজেশন কর্মসূচি বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে কোর ব্যাংকিং, ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার, অটোমেটেড ক্লিয়ারিং, এটিএম, ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড, রিয়েল টাইম অনলাইন লেনদেন হয়। আরটিজিএস সফটওয়্যারের মাধ্যমে সকল শাখায় ট্রেজারী চালানের স্বচ্ছগ্রহণ এবং কাস্টমস ডিউটি, ই-চালান, ফি, কমিশন, ভূমি রেজিস্ট্রেশন ফিসহ দেশের সকল স্থল ও সমুদ্র বন্দর শাখায় সাতদিন ২৪ ঘণ্টা খোলা রেখে সরকারি সকল ধরনের লেনদেন করে আসছে।

আরও বলা হয়, সম্প্রতি ফেসবুক, গুগল, ইউটিউবসহ প্রযুক্তি নির্ভর আন্তর্জাতিক বা বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানসমূহের দেওয়া সেবার (বিজ্ঞাপন) উপর ভ্যাট আদায়ে এনবিআর বেশ তৎপর। সে অনুযায়ী বিভিন্ন ব্যাংকের মাধ্যমে প্রেরিত অর্থ থেকে ভ্যাটও আদায় হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় সোনালী ব্যাংক লিমিটেড এসব বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের সেবা মূল্য থেকে ভ্যাট আদায়ে আধুনিক ব্যাংকিং সেবা প্রদানে আগ্রহী। ভ্যাট আহরণ আর সেবা প্রদানের এমন কার্যক্রমে এ ব্যাংককে অংশীজন করলে গৌরবান্বিত বোধ করবো। এ সেবায় সম্পৃক্ত করতে চেয়ারম্যানকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত পাঁচবছরে বিজ্ঞাপন বাবদ গুগল-ফেসবুকসহ চারটি ইন্টারনেট জায়ান্ট বাংলাদেশ থেকে প্রায় দুই কোটি ৩২ লাখ ডলার আয় করেছে; যা বাংলাদেশি টাকায় ২৪১ কোটি ৬৪ লাখ টাকা।

বেসরকারি ও বিদেশি খাতের ১০টি ব্যাংকের মাধ্যমে এই অর্থ পরিশোধ করা হয়েছে। এর বিপরীতে ভ্যাট পেয়েছে ৪৪ কোটি ৭৬ লাখ টাকা।

২০১৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ব্যাংক এশিয়ার মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচারের বিল বাবদ ১০২ কোটি ৯৫ লাখ টাকা, সিটি ব্যাংক এনএ’র মাধ্যমে ৪৩ কোটি ৬ লাখ টাকা, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে ১৯ কোটি ২৬ লাখ টাকা, ঢাকা ব্যাংকের মাধ্যমে ১৫ কোটি ৬৭ লাখ টাকা, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে সাত কোটি এক লাখ টাকা, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডের মাধ্যমে দুই কোটি ৩০ লাখ টাকা, দি সিটি ব্যাংক লিমিটেডের মাধ্যমে তিন কোটি ৫৯ লাখ টাকা, সাউথইস্ট ব্যাংকের মাধ্যমে এক কোটি ৫৪ লাখ টাকা, ব্র্যাক ব্যাংকের মাধ্যমে এক কোটি ২৯ লাখ টাকা এবং এবি ব্যাংকের মাধ্যমে ২১ লাখ টাকা পরিশোধ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০১৪ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মোট বিজ্ঞাপনের মধ্যে ১০৩ কোটি ২৯ লাখ টাকা বা ৫২ শতাংশ গেছে গুগল এশিয়া প্যাসিফিক প্রাইভেট লিমিটেডে। ফেসবুক আয়ারল্যান্ড লিমিটেডে গেছে ৯০ কোটি টাকা বা ৪৫ শতাংশ, আল্টিমিডিয়া ই সল্যুশন প্রাইভেট লিমিটেডে তিন কোটি টাকা বা প্রায় তিন শতাংশ ও এসআরবি টেকনোলজিস প্রাইভেট লিমিটেডে গেছে এক লাখ ২৭ হাজার টাকা বা শুণ্য দশমিক এক শতাংশ। ব্র্যাক,  আড়ং, গ্রামীনফোন, গেকি সোশ্যাল লিমিটেড, বিল্ডিং টেকনোলজিস অ্যান্ড আইডিয়াস লিমিটেড, সফটউইন্ড টেক, মিডিয়া স্টার (প্রথম আলো), হাভাস মিডিয়া বাংলাদেশ, মিডিয়া এক্সিস, একটিভেট মিডিয়া সল্যুশন লিমিটেড, বিটোপি অ্যাডভারটাইজিং লিমিটেড, অ্যানালাইজেন বাংলাদেশ লিমিটেড, শপফ্রন্ট লিমিটেড, এশিয়াটিক মাইন্ডশেয়ার লিমিটেড, মিডিয়াকম লিমিটেড, রেইজ আইটি সল্যুশন লিমিটেড, এক্সেস মিডিয়া সল্যুশন, মেলনাডেস ও অ্যাকটিভ মিডিয়া সল্যুশন বিজ্ঞাপন প্রচারে বৈশ্বিক ওই যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে টাকা পাঠিয়েছে।
 

ঢাকা/এম এ রহমান/নাসিম


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

টিভিতে আজকের খেলা

২০১৯-১১-১৬ ২:২১:৪৪ এএম

সুরের মূর্ছনায় হেমন্তের রজনী

২০১৯-১১-১৬ ১:১৮:৫৭ এএম