ভ্যাট সফটওয়্যার নিয়ে বেসিসের কর্মশালা

প্রকাশ: ২০১৯-১০-০৫ ৬:২৫:২৮ পিএম
বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক | রাইজিংবিডি.কম

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-এর বৃহৎ করদাতা ইউনিট (এলটিইউ) ভ্যাট সফটওয়্যার বাস্তবায়নের লক্ষ্যে নতুন করে সফটওয়্যার নির্মাতা/ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান তালিকাভুক্তকরণের কাজ শুরু করেছে, যা বেসিস সদস্যদের জন্য ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য এক বিশাল সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করে দিয়েছে।

ভ্যাট সফটওয়্যার বাস্তবায়নের লক্ষ্যে নতুনভাবে তালিকাভুক্ত হতে আগ্রহী নির্মাতা/ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিয়ে বেসিসে একটি কর্মশালার আয়োজন করা হয় আজ।

কর্মশালাটি সঞ্চালনা করেছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের এলটিইউ বিভাগের কমিশনার মুহাম্মদ মুবিনুল কবীর। কর্মশালার উদ্বোধন করেন বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর। আরো উপস্থিত ছিলেন জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ফারহানা এ রহমান, সহ-সভাপতি (প্রশাসন) শোয়েব আহমেদ মাসুদ, সহ-সভাপতি (অর্থ) মুশফিকুর রহমান, মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল, চেয়ারম্যান, স্থানীয় বাজার সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি, বেসিস।

বেসিস সভাপতি বলেন, সরকার কর্তৃক গৃহীত নতুন ভ্যাট আইনকে বেসিসের পক্ষ থেকে স্বাগত জানাচ্ছি। বেসিস বিশ্বাস করে এর ফলে স্থানীয় সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানসমূহের কাজের পরিসর বৃদ্ধি পাবে। ডিজিটালাইজড করার প্রথম ধাপ হিসেবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সব নিয়ম মেনে ১১টি প্রতিষ্ঠান ভ্যাট সফটওয়্যার সফলভাবে তৈরি করেছে যার মাধ্যমে ক্রয়কৃত কাঁচামালের ভ্যাট হিসাবও করা যাচ্ছে সহজে। সেইসাথে প্রস্তুতকৃত পণ্যের ভ্যাটসহ সঠিক দাম নির্ধারণ করা যাচ্ছে এবং বিক্রি করে উপযুক্ত লাভও পাওয়া যাচ্ছে। আর দেশের প্রচলিত ভ্যাট আইন অনুসারে হিসেবে গড়মিলও থাকছে না।

কর্মশালার সার্বিক আয়োজক বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ফারহানা এ রহমান বলেন, ১১টি প্রতিষ্ঠানের অন্তর্ভুক্তির পাশাপাশি, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড যেহেতু ভ্যাট সফটওয়্যার ব্যবহার বৃহৎ করদাতা প্রতিষ্ঠানের জন্য বাধ্যতামূলক করেছে, সেহেতু আরো ভ্যাট সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানের অন্তর্ভুক্তির সুযোগ রয়েছে এবং এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া। দেশীয় ভ্যাট সফটওয়্যারের মাধ্যমে রাজস্ব আদায় নিশ্চিতের কাজ চলছে। এ প্রক্রিয়া স্থানীয় বাজার সম্প্রসারণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে এবং স্থানীয় প্রতিষ্ঠানসমূহের জন্য বিশেষ করে বেসিস সদস্য প্রতিষ্ঠানসমূহের ব্যবসা সম্প্রসারণে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে।

কর্মশালার সঞ্চালক জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের এলটিইউ বিভাগের কমিশনার মুহাম্মদ মুবিনুল কবীর বলেন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড প্রাথমিকভাবে ১১টি সফটওয়্যার কোম্পানিকে তালিকাভুক্ত করেছে। ভ্যাট সফটওয়্যার বাস্তবায়নের লক্ষ্যে নতুনভাবে তালিকাভুক্ত হতে আগ্রহী নির্মাতা/ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের কি ধরনের সফটওয়্যার থাকতে হবে এবং কি কি প্রাক যোগ্যতা থাকা দরকার, সে বিষয়ে সম্যক ধারণা থাকা আবশ্যক। এ লক্ষ্যেই আজকের কর্মশালায় বেসিস সদস্য প্রতিষ্ঠানসমূহকে দিক-নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। বেসিস সদস্যদের মতামতও জানতে পেরেছি।

কর্মশালায় দেড়শতাধিক বেসিস সদস্য প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

 

ঢাকা/ফিরোজ


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

ইউপি সদস্যসহ তিনজনের কারাদণ্ড

২০১৯-১০-১৭ ৭:৩৯:০৩ পিএম