কী থাকে ক্যাঙ্গারুর থলের ভেতর?

প্রকাশ: ২০১৯-১১-০৫ ১০:১৩:৩৮ এএম
নিয়ন রহমান | রাইজিংবিডি.কম

ক্যাঙ্গারু সম্পর্কে বলতে গেলে প্রথমেই বলতে হয় এর অদ্ভুত লম্বা পা নিয়ে। অন্যান্য প্রাণীদের তুলনায় এদের পায়ের গঠন আলাদা। তবে এই প্রাণীটির সবচেয়ে আলাদা এবং আকর্ষণীয় বিষয়- স্ত্রী ক্যাঙ্গারুর পেটের থলে। মারসুপিয়াল গোত্রের স্ত্রী ক্যাঙ্গারুর পেটের মধ্যে থলে থাকে। নবজাতক সন্তান নিরাপদে বহন করার জন্য ক্যাঙ্গারুরা এই থলে ব্যবহার করে।

শার্টের পকেটের মতো দেখতে এই থলে ক্যাঙ্গারুদের সন্তান বহনের জন্য যতো না দরকারি তারচেয়ে বেশি দরকারি জৈবিক কারণে।

টেলিভিশনে আমরা যেমন দেখি ক্যাঙ্গারুর থলে আসলে তেমন না। ২০১৫ সালে ‘স্মার্টার এভরি ডে’ ইউটিউব চ্যানেলের ক্রিয়েটর ডেস্টিন স্যান্ডলিন ক্যাঙ্গারুর থলে নিয়ে একটি গবেষণামূলক ভিডিও তৈরি করেন। ভিডিওতে তিনি ক্যাঙ্গারুর থলেতে দুই আঙুল ঢুকিয়ে ভেতরটা কেমন দেখার চেষ্টা করেন। ডেস্টিন লক্ষ্য করেন, ক্যাঙ্গারুর থলের ভেতর একটা বাউন্ডারি আছে। ডেস্টিন আসলে কি দেখেছিলেন ভিডিওতে দেখুন-

ক্যাঙ্গারুর সন্তান জন্মদানের পদ্ধতিটা অন্যান্য স্তন্যপায়ী প্রাণীদের থেকে একটু আলাদা। অবাক করা বিষয় হলো, ক্যাঙ্গারু এক মাসেরও কম সময়ের গর্ভাবস্থার পর ছানার জন্ম দেয়। তবে পৃথিবীর মুখ দেখার আগেই মায়ের পেটে থাকা অবস্থাতেও ক্যাঙ্গারু ছানা লাফাতে শুরু করে। জন্মের তিন দিন আগ পর্যন্ত ভ্রুণের ওপর নজর রেখে বিজ্ঞানীরা বিষয়টি দেখতে পেয়েছেন।  ভ্রুণের এই লাফানোটা গুরুত্বপূর্ণ। কারণ একমাত্র এই উপায়ে মায়েরা থলে তৈরি করতে পারে।

জন্মের পরপরই মা ক্যাঙ্গারু বাচ্চাটিকে চেটে পরিষ্কার করে এবং থলেতে রেখে দেয়। এই অবস্থায় বাচ্চাটি বেশ কয়েকমাস থলের ভেতরে থেকেই শারীরিক বিকাশ ঘটায় এবং ধীরে ধীরে এর শরীরে লোম গজাতে শুরু করে। চারমাস পর ক্যাঙ্গারুর বাচ্চারা মায়ের দুধ পান করা শুরু করে। মাতৃদুগ্ধ ক্যাঙ্গারু শাবকের প্রকৃতির সাথে মানিয়ে নেওয়া এবং শারীরিক বিকাশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

ক্যাঙ্গারুর এই থলেটি এমনভাবে ডিজাইন করা যে এটিকে প্রথম দেখায় খুঁজে পাওয়া খুব কঠিন।কার্টুনে আমরা ক্যাঙ্গারুর থলের মধ্যভাগজুড়ে একটি পরিষ্কার লাইন দেখতে পাই, কিন্তু বাস্তবে এর কোনো অস্তিত্বই নেই। ক্যাঙ্গারুর থলে বুঝতে আপনাকে হাত দিয়ে ধরে অনুভব করতে হবে যে আসলে ঠিক কোন অংশটা খোলা। ক্যাঙ্গারুর পেটের সাথে এটি সমান্তরালভাবে থাকে। আর এই অংশটি এতটাই সুক্ষ্ম আর পাতলা যে আপনার কল্পনাকেও হার মানাবে। সন্তানদের সম্ভাব্য বিপদ থেকে বাঁচাতে এই থলে গোপন বাংকারের মতো কাজ করে।

আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে, দীর্ঘদিন ধরে এই থলেতে ক্যাঙ্গারু শাবক থাকা অবস্থায় থলেটি কি নোংরা হয়ে যায় না? নোংরা থলেতে ক্যাঙ্গারু শাবক থাকলে তো স্বাভাবিকভাবেই নানারকম রোগ জীবাণুতে আক্রান্ত হওয়ার কথা। কিন্তু স্ত্রী ক্যাঙ্গারু খুব পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকে। তারা নিয়মিত শাবকের শরীর চেটে পরিষ্কার করে। এমনকি থলের ভেতরে শাবকদের মল-মূত্র জিহ্বা দিয়ে চেটে পরিষ্কার করে রাখে।

ক্যাঙ্গারুর থলে শাবকদের থাকার জন্য অবশ্যই একটি আরামদায়ক, পরিষ্কার এবং সুরক্ষিত জায়গা। এই থলের জন্যই ক্যাঙ্গারু শাবকরা মায়ের খুব কাছাকাছি থাকতে পারে।

উল্লেখ্য যে, অনেক ক্যাঙ্গারু শাবককেই দেখা যায়, পরিণত বয়স হওয়ার পরেও থলে ছেড়ে যেতে চায় না। 

 

ঢাকা/ফিরোজ/তারা


   



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

রবিবার আখাউড়া স্থলবন্দর বন্ধ

২০১৯-১১-১৭ ২:২৫:৩০ এএম

বিপিএলে মাশরাফি-গেইলদের বেতন কত?

২০১৯-১১-১৭ ১২:০৪:৩৩ এএম

বিপিএলের লোগো উন্মোচন

২০১৯-১১-১৬ ১০:৪৩:৫৮ পিএম

কুষ্টিয়ায় পেঁয়াজের আড়তে অভিযান

২০১৯-১১-১৬ ১০:৪০:৪১ পিএম

ঝিনাইদহে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

২০১৯-১১-১৬ ১০:৩৫:৩৫ পিএম