অনলাইন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে শহর-গ্রামের বৈষম্য দূর হবে: পলক

প্রকাশ: ২০২০-০৫-১৭ ৯:২১:৩৮ পিএম
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক | রাইজিংবিডি.কম

করোনাভাইরাসের কারণে বিরাজমান অবস্থায় অনলাইন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চালুর মাধ্যমে শহর-গ্রামের বৈষম্য দূর হবে বলে মনে করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতি পরবর্তী পৃথিবী আইটি ফ্রিল্যান্সারদের প্রয়োজনীয়তা  গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে। করোনার কারণে আমাদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হওয়ায়, অনলাইন ক্লাসই আমাদের ভবিষ্যৎ।  আর করোনা অনলাইন শিক্ষায় নতুন দিগন্ত উন্মোচন করেছে।

রোববার (১৭ মে) প্রতিমন্ত্রী জুম অনলাইন প্লাটফর্মে আইসিটি বিভাগের অধীন লার্নিং অ‌্যান্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট এর অনলাইন প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন উপলক্ষে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

ফ্রিল্যান্সিংই ভবিষ্যৎ উল্লেখ করে পলক বলেন, দেশের ৭০ শতাংশ তরুণের আত্মকর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে অনলাইনে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু করে আইসিটি বিভাগের লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্প।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনা এবং আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের পরামর্শে বাস্তবধর্মী বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের ফলে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমরা অনেক দূর এগিয়ে গেছি।  দেশজুড়ে ইউনিয়ন পর্যায়ে উচ্চগতির ইন্টারনেট এবং পেমেন্ট গেটওয়ে অবকাঠামো তৈরির ফলেই এখন আমরা ঘরে বসেই দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির মতো ফ্রিল্যান্সার প্রশিক্ষণের কার্যক্রম অনলাইনে শুরু করা সম্ভব হয়েছে।

প্রযুক্তিজ্ঞানকে উন্মুক্ত করেছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্পের অধীনে এসএসসি ও এইচএসসি পাসের পরও তরুণদের প্রশিক্ষণ দিয়ে তাদের আত্মকর্মসংস্থান করে দিতেই এই উদ্যোগ করোনাতেও চলমান রাখা গেছে।

আইসিটি সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. আখতার মামুন ছাড়াও প্রশিক্ষণ উপকরণ পরিকল্পনাকারী শফিউল আলম বক্তব্য রাখেন।


ঢাকা/হাসান/জেডআর


     



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

বিচিত্র দেশের গল্প (পর্ব-১)

২০২০-০৫-২৯ ৮:০৭:০৭ এএম