ডিআরএস: পাকিস্তানের সফলতা, কোহলির ব্যর্থতা

প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৯ ৫:০২:০৩ পিএম
ক্রীড়া ডেস্ক | রাইজিংবিডি.কম

বর্তমান সময়ে ক্রিকেটের খোলনচল অনেকটাই পালটে যাচ্ছে। সাম্প্রতিক ক্রিকেটে নিত্যনতুন ফরম্যাট চালু হচ্ছে। আকর্ষণীয় করা হচ্ছে খেলাটিকে।

ক্রিকেটে শুধু ধরণ নয়, বর্তমান সময়ে প্রযুক্তিগত উন্নয়নও করা হয়েছে ব্যাপক হারে। এর মধ্যে সবচেয়ে দারুণ সংযোজন ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস)। মাঠে সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে রক্ত মাংসের আম্পায়ারদের ভুল হওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যায়। আর ক্রিকেটারদের সে সিদ্ধান্ত বদলানোর সুযোগ দিয়েছে ডিআরএস।

২০১৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর টেস্টে ৮০ ওভার পর নতুন করে ডিআরএস যুক্ত হওয়ার নিয়ম নিয়ে আসে আইসিসি। সে থেকে এই পর্যন্ত ক্রিকেটবিশ্বে আম্পায়ারের নেওয়া ১১৪১টি সিদ্ধান্তের রিভিউ চায় ক্রিকেটাররা। আজ সেই পরিসংখ্যানকে বিশ্লেষণ করে দেখা যাক, রিভিউ নেওয়ার বিষয়ে কোন দল সবচেয়ে সফল আর কোন দল ব্যর্থ। কোন ক্রিকেটার রিভিউয়ের সবচেয়ে ভালো ব্যবহার করতে পেরেছেন।

ফিল্ডিং দলের চেয়েও বেশি সফল ব্যাটসম্যানরা

সর্বশেষ ১১৪১টি রিভিউয়ের মধ্যে ৩২৫টিতে সফলতা পেয়েছে ক্রিকেটাররা। তারমানে প্রায় প্রতি ৩.৫টা রিভিউ নিয়ে একবার করে সফলতা পায় ক্রিকেটাররা। তবে এর মধ্যে সফলতার হার বেশি ব্যাটসম্যানদের। প্রতি ২.৮ বারের মধ্যে একবার সফল ব্যাটসম্যানরা। অপরদিকে ফিল্ডিংয়ে থাকা দলের একবার সফলতা পেতে রিভিউ নিতে হয় ৪.৫ বার। শুধু তাই নয় ব্যাটসম্যানরা প্রায় ৫৭ ভাগ সময়ে রিভিউ ফিরে পায়। অপরদিকে বোলাররা আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে রিভিউ রিটেন করেছে মাত্র ৩৭ ভাগ সময়ে।

রিভিউ ভাগ্যে সবচেয়ে সফল দল পাকিস্তান

রিভিউ সিস্টেম চালু হওয়ার পর থেকে সবচেয়ে সফল দল পাকিস্তান। ন্যূনতম ১০ ম্যাচ টেস্ট খেলা দলগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ সফলতার হার পাকিস্তানের। ১০৪টি রিভিউ নিয়ে ৩৬টিতে সফল হয় দলটি। তারমানে ৩৫ শতাংশ সময়ে সফল হয়েছে পাকিস্তান। এরপরের অবস্থান ইংল্যান্ডের। দলটির সাফল্যের হার ৩২.৪ শতাংশ (১৭৬টির মধ্যে ৫৪)। পরের অবস্থান ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৩০.৩ শতাংশ। সবচেয়ে বাজে অবস্থায় আছে শ্রীলঙ্কা। তাদের সফলতার হার মাত্র ২৩.৩ শতাংশ।

রিভিউ রিটেন পাওয়া দলের শীর্ষেও পাকিস্তান

পাকিস্তানের মতো রিভিউ কাজে লাগানোর সুযোগ মেলেনি অন্য কারো। সবচেয়ে বেশি সিদ্ধান্ত বদলাতে পেরেছে পাকিস্তান। এমনকি সবচেয়ে বেশি রিভিউ রিটেনও করেছে দলটি, ৫৭.৭ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে আছে নিউজিল্যান্ড। প্রায় ৪৯ শতাংশ রিভিউ ফেরত পেয়েছে তারা। তৃতীয় স্থানে আরেক এশিয়ান টিম ভারত। দলটির সফলতার হার ২৭ হলেও রিভিউ রিটেন করেছে ৪৮ শতাংশ বার। তবে সবচেয়ে দুর্ভাগা দল শ্রীলঙ্কা এখানেও সবার নিচে। মাত্র ২১.৬ শতাংশ বার রিভিউ রিটেন পেয়েছে দলটি।

গোলমেলে শ্রীলঙ্কার রিভিউ টেকিং

ভারতীয় দলের ব্যাটিং লাইন আপ বিশ্বসেরা। তাদের শীর্ষ ছয় ব্যাটসম্যান মাঠে থাকা মানে প্রতিপক্ষের উপর ঝড় বইয়ে দেওয়া। গত দুই বছরে কোনো দলের শীর্ষ ছয় ব্যাটসম্যানের রিভিউ নেওয়ার পরিসংখ্যানে সবার চেয়ে এগিয়ে ভারতীয়রা। তাদের উপরের সারির ব্যাটসম্যানরা ৭২ শতাংশ বার রিভিউ নিয়েছে। আর এই তালিকায় সবার নিচে শ্রীলঙ্কা। তাদের শীর্ষ ছয় ব্যাটসম্যান রিভিউ নিয়েছে ৪০ শতাংশ সময়ে। আর নিচের সারির দিলরুয়ান পেরেরা, নিরোসান ডিকওয়েলা, সুরাঙা লাকমালরা নিয়েছেন বাকি ৬০ শতাংশ সময়ে। নিচের সারির ব্যাটসম্যান দিলরুয়ান একাই নিয়েছেন ১৭ বার। যা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চও।

ব্যর্থতার গ্যাঁড়াকলে ব্যাটসম্যান কোহলি

গত দুই বছরে ব্যাট হাতে রানের ফোয়ারা ছুটিয়েছেন কোহলি। তবে রিভিউ নিতে গিয়ে যত গড়বড় পাকিয়ে ফেলেছেন তিনি। ভারতীয়দের মধ্যে সর্বোচ্চ ১২বার রিভিউ নিয়েছেন কোহলি। এরমধ্যে সফল হয়েছেন মাত্র ১ বার। সফলতার হার মাত্র ৮ শতাংশ। এক্ষেত্রে তার চেয়ে নিচে আছে কেবল অজি ব্যাটসম্যান উসমান খাজা। এখন পর্যন্ত ৫ বার রিভিউ নিলেও একবারও সফলতার মুখ দেখেননি তিনি।

রিভিউ নেওয়া সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান আমলা

ব্যাটসম্যান হিসেবে রিভিউ নিয়ে সবচেয়ে সফল হাসিম আমলা। ৬ বার রিভিউ নিয়ে ৫ বারই সফলতার মুখ দেখেন আমলা। তবে ১০ বার রিভিউ নেওয়া ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সবচেয়ে সফল জো রুট। ইংল্যান্ডের এই ক্রিকেটার ১০ বার রিভিউ নিয়ে ৭ বারই সফলতার মুখ দেখেছেন। ৫ বার রিভিউ নিয়ে ৮০ শতাংশ (৪বার) করে সফলতা দেখেছেন পাকিস্তানের বাবর আজম ও নিউজিল্যান্ডের বিজে ওয়াটলিং।

বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল ওকস

ইংল্যান্ডের পেসার ক্রিস ওকস বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল রিভিউ টেকার। তার সাফল্যের হার ৫০ শতাংশ। এই নিয়ে ১০ বার রিভিউ নিয়ে ৫ বারই সফল হয়েছেন ওকস। দ্বিতীয় স্থানে আছেন পাকিস্তানের মোহাম্মদ আব্বাস। তার সাফল্যের হার ৪৬.৭ শতাংশ। এই বোলার রিভিউ নিয়েছেন সর্বোচ্চ ১৫ বার। এরমধ্যে ৭ বার সফল হয়েছেন তিনি।


ঢাকা/কামরুল


     




আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

যে চকলেট লাইটের মতো জ্বলজ্বল করে!

২০২০-০৬-০৭ ১০:৪৬:৪৯ এএম

আইপিএলে ‘কালু’ ডাকা হতো স্যামিকে

২০২০-০৬-০৭ ১০:১৪:৪৯ এএম

মাস্ক যাদের জন্য নিরাপদ নয়

২০২০-০৬-০৭ ৯:৪৬:২৮ এএম

নওগাঁয় আরও ১৩ জনের করোনা শনাক্ত

২০২০-০৬-০৭ ৯:২৭:৩৭ এএম

ক্রিকেট রেকর্ড থেকে

২০২০-০৬-০৭ ৮:৫৩:৩৮ এএম