প্রায়ই আত্মহত্যার কথা ভাবতেন উথাপ্পা

প্রকাশ: ২০২০-০৬-০৪ ৬:৫২:২৪ পিএম
ক্রীড়া ডেস্ক | রাইজিংবিডি.কম

২০০৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচ দিয়ে জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক হয় ভারতীয় ক্রিকেটার রবিন উথাপ্পার। বছর না পেরোতেই বিশ্বকাপজয়ী দলের অংশ হয়ে যান। ২০০৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের হয়ে খেলেছেন উথাপ্পা। এরপর ভারতীয় দলের হয়ে খেলা হয়েছে ৪৬ ওয়ানডে ও ১৩ টি-টোয়েন্টিও।

তবে এক সময় জাতীয় দলে উথাপ্পা যেন ব্রাত্য হয়ে পড়েন। আর তখনই মানসিকভাবে বেশ ভেঙ্গে পরেন তিনি। মানসিক অবসাদে ভুগতে থাকেন। ক্যারিয়ার নিয়ে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। অবস্থা এমন দাঁড়ায় যে, আত্মহত্যার চিন্তা করতে শুরু করেন উথাপ্পা। সম্প্রতি ইউটিউবে রাজস্থান রয়্যালসের সঙ্গে এক লাইভ আড্ডায় নিজের ক্যারিয়ারের সেই খারাপ সময়ের গল্প জানান উথাপ্পা।

নিজের ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে অসচেতন ছিলেন, দাবি করে উথাপ্পা বলেন, ‘২০০৬ সালে আমার যখন অভিষেক হয়, আমি তখন নিজের ব্যাপারে সচেতন ছিলাম না।’

আর এরপরই সাফল্যের পাশাপাশি ব্যর্থতার গল্পের সাথে পরিচিত হয়ে ওঠেন উথাপ্পা। আর সেই ব্যর্থতা তাকে আত্মহত্যা করার মতো সিদ্ধান্ত পর্যন্ত নিতে বাধ্য করেছে জানিয়ে উথাপ্পা বলেন, ‘ক্যারিয়ারের খারাপ সময়ে খুবই কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে গিয়েছি আমি। খুবই হতাশ ছিলাম, প্রায়ই আত্মহত্যার চিন্তা মাথায় চেপে বসতো। আমার মনে আছে, ২০০৯ থেকে ২০১১ পর্যন্ত এটা নিত্যদিনকার বিষয় ছিলো আমার জন্য।’

আর সে সময় ক্রিকেটকেই যেন ভুলতে বসেছিলেন উথাপ্পা। নিজেই জানালেন সে কথা, ‘এমনও অনেক সময় গেছে, যখন আমি ক্রিকেট নিয়ে চিন্তাও করতাম না। ক্রিকেট তখন আমার মনের অনেক দূরের এক জায়গার জিনিস। আমি ভাবতাম কীভাবে আজকের দিনটা অতিক্রম করবো এবং পরের দিনে যাব। আমি কী করছি, জীবনে কী হচ্ছে, কী হবে- এসবই ভাবতাম শুধু।’

তবে এই চিন্তাগুলো উথাপ্পার মধ্যে কাজ করতো যখন মাঠের খেলা থাকতো না। ক্রিকেট মাঠে এসব ভুলে থাকতে পারলেও অফ সিজনে সময় পার করা যেন কঠিন হয়ে পড়েছিল উথাপ্পার জন্য। তাঁর ভাষ্যে, ‘সাধারণত মাঠে খেলা থাকলে, ক্রিকেট খেলতে থাকলে, নিজের মধ্যে আমার এসব চিন্তাভাবনা আসত না। কিন্তু ম্যাচ না থাকার দিনগুলো বিশেষ করে অফ সিজনে সময় পার করা যেন খুব কঠিন হয়ে পড়ছিল আমার জন্য। সেসব দিনগুলোতে আমি বসে বসে এক-দুই-তিন গুনতাম, আর ভাবতাম এখনই বারান্দা দিয়ে লাফিয়ে পড়ব। তবে কিছু একটা জিনিস আমাকে তখন আটকে রাখত।’

তবে পরবর্তীতে নিজেকে গুছিয়ে নিয়েছেন তিনি। এখন হয়েছেন অনেক পরিণত, এমনটা দাবি করে উথাপ্পা আরও যোগ করেন, ‘এরপর অনেক কিছু শিখেছি, খেলায় অনেক উন্নতি হয়েছে। এ মুহূর্তে আমি নিজের ব্যাপারে সর্বদা সতর্ক এবং নিজের চিন্তাভাবনার প্রতি পূর্ণ আস্থা রয়েছে। ফলে কোথাও যদি ভুলও হয়ে যায়, সেটা সহজেই ধরতে পারি।’


ঢাকা/কামরুল


     



আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

চিংড়িতেও করোনা!

২০২০-০৭-১০ ৬:২০:২৮ পিএম

গাজীপুরে করোনা রোগী বেড়ে ৩৮২৯

২০২০-০৭-১০ ৫:৩৬:৩৬ পিএম