শনিবার অনুশীলনে ফিরছেন রুট-স্টোকসরা

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-১৬ ২:০১:৪০ পিএম
ইয়াসিন | রাইজিংবিডি.কম

লন্ডন থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক : এমন একটি রাতের জন্য কত বিনিদ্র রাত কেটেছে ইংল্যান্ডের। বিশ্বকাপের ট্রফি জয়ের মধ্য দিয়ে পূর্ণ হয়েছে স্বপ্ন।  সুপার সানডে রাতের একটাই গান, ‘চ্যাম্পিয়ন...চ্যাম্পিয়ন...উই আর চ্যাম্পিয়ন।’

টিউবের ভেতরে তাদের উল্লাসে ফেটে পড়ে আশপাশ। ট্রাফেলগার স্কয়ারের উৎসব থামে না। গোটা রাত ধরে চলে আনন্দ, মাতামাতি। ক্রিকেটের এত বড় অর্জন তো তারা দেখেনি এর আগে। ১৯৭৫ সালে তাদের ঘরেই প্রথম বিশ্বকাপ হয়েছিল। অথচ সেই শিরোপা তারা ঘরে তুলল পাক্কা ৪৪ বছর পর।

এত অপেক্ষার পর ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ জিতল, অথচ তাদের আলোচনা এখন অ্যাশেজ নিয়ে। ২৪ ঘন্টাও পেরুতে পারেনি, ইংলিশ অধিনায়ক জো রুটের আলোচনা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ নিয়ে। ভাবা যায়? বিশ্বকাপ থেকেও কি অ্যাশেজ তাহলে এত বড় তাদের কাছে?

ইংলিশ সাংবাদিকরা তো তেমনই মনে করেন। তাইতো দ্য সানের ক্রীড়া প্রতিবেদক টনি বলেন, ‘এখানে ক্রিকেট মানে অ্যাশেজ। ওই উত্তাপের কাছে এরকম বিশ্বকাপ কিছুই না।’

কথাটা বেশ কাটখোট্টা, দেমাগী হলেও ঘটনা সত্য! বিশ্বকাপের টিকিট সর্বনিম্ন ৩০-৩৫ পাউন্ড করে বিক্রি হলেও অ্যাশেজে সেই টিকিটের মূল্য হয়ে যায় ৭০-৭৫ পাউন্ড। পুরো পাঁচ দিনের টিকিটে খরচ হয়ে যায় প্রায় ৩৫০ পাউন্ড।

শুধু টিকিটে কেন? আয়োজকদেরও অ্যাশেজ নিয়ে থাকে ভিন্ন রকম উত্তেজনা।  এবারের বিশ্বকাপ মাঠে কাজ করেছেন হাজারো সেচ্ছাসেবক। মাঠের নিয়মিত কর্মীরা তাদের ইনচার্জ। লর্ডসের ইনচার্জ ট্রেসি।

 

বিশ্বকাপ শেষ, এবার তো ছুটি নেবার পালা? এমন প্রশ্ন করতেই বেঁকে বসেন ট্রেসি, ‘কোনো ছুটি নেই। সামনেই অ্যাশেজ।’ ওভালে অ্যাশেজ মানেই ভিন্ন কিছু। এখানে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড খেলা হলে অস্ট্রেলিয়ার সাংবাদিকরা বসেন সিডনি প্রেসবক্স লাউঞ্জে। বাকিটা সময় এটা বন্ধ থাকে। তবে বিশ্বকাপের জন্য চালু করেছিল। এবারের অ্যাশেজে ওভালে কোনো ম্যাচ নেই। তাই সুবিশাল ও যত্নশীল প্রেসবক্স খোলার কারণও নেই।  

বিশ্বকাপজয়ী দলকে সংবর্ধনা জানাতে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে সোমবার রাতে ডেকেছিলেন নিজ বাসভবনে। গেটের বাইরে এসে এউইন মরগানসহ পুরো দলকে স্বাগত জানান থেরেসা। চলে ফটোসেশন। ভবনের ভেতরে ঢুকতেই চলে অ্যাশেজ নিয়ে আলোচনা। ইংলিশ গণমাধ্যম বলছে, থেরেসা মে’র বাসভবনের ভেতরের গার্ডেনের অধিকাংশ সময় অ্যাশেজ নিয়ে নিজেদের মধ্যে কথা বলেছেন ক্রিকেটাররা।

বুধবার অ্যাশেজের প্রথম টেস্ট স্কোয়াড বেছে নেবেন ইসিবির নির্বাচকরা। গণমাধ্যমে দল ঘোষণা করবে কি না, তা নিশ্চিত করতে পারেনি কেউ।  অ্যাশেজের আগে অবশ্য ইংল্যান্ড খেলবে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে। ২৪ জুলাই থেকে শুরু হবে টেস্ট। আইরিশদের আমন্ত্রণ জানাতে উৎসব ভুলে মাঠে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছে ইংল্যান্ড। আগামী শনিবার লন্ডনে হবে তাদের প্রথম দিনের অনুশীলন। ভাবা যায়, বিশ্বকাপ জয়ের পাঁচ দিনের মধ্যে অ্যাশেজ প্রস্তুতি শুরু!

অ্যাশেজ সিরিজের দিয়েই শুরু হতে যাচ্ছে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়শিপ। ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ের পর টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম শিরোপা ধরে রাখতে চায় ইংল্যান্ড। ২০২১ সালের জুনে লর্ডসে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল হবে। সেই চ্যালেঞ্জ নিয়ে নতুন শুরু করতে চায় ইংল্যান্ড। তাইতো উৎসবের মঞ্চেও চলে ক্রিকেট নিয়ে আড্ডা কিংবা নির্মল কোনো আনন্দময় বিকেল।

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে মোট ছয়টি সিরিজ হবে। তিনটি ঘরের মাটিতে, তিনটি অতিথি মাঠে। মোদ্দাকথা, হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে হবে সিরিজ। সেই লক্ষ্যে পৌঁছতে মরগান হতে হবে জো রুটকে। এরই মধ্যে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রুট। মঙ্গলবার দল নিয়ে তার বৈঠকও রয়েছে।  সোমবার প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনেও তাকে অ্যাশেজ নিয়ে কথা বলতে হয়েছে।

তাইতো অ্যাশেজ তাদের কাছে অনেক বড়, অনেক গৌরবের, অনেক ঐতিহ্যের। বিশ্বকাপের ট্রফি হৃদয়ের ভেতরে থাকলেও অ্যাশেজ জড়িয়ে আছে তাদের চারপাশে। ১ আগস্ট শুরু হবে অ্যাশেজের প্রথম টেস্ট।

 

রাইজিংবিডি/১৬ জুলাই ২০১৯/ইয়াসিন/পরাগ

     


Walton AC

আজকের সর্বশেষ সংবাদ সমূহঃ

ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে...

২০১৯-০৮-১৯ ৯:৫৬:২৩ পিএম

বান্দরবান, রাঙামাটিতে টহল জোরদার

২০১৯-০৮-১৯ ৮:৫৬:৫৮ পিএম

‘সমগ্র জাতি বঙ্গবন্ধুর কাছে ঋণী’

২০১৯-০৮-১৯ ৮:২৭:৩৬ পিএম